Select Page

শর্ট রিভিউ: মিশন এক্সট্রিম

শর্ট রিভিউ: মিশন এক্সট্রিম

আজ থেকে  দেশ-বিদেশের প্রায় ৮০টি প্রেক্ষাগৃহে দর্শক দেখবে ‘মিশন এক্সট্রিম’। কপ থ্রিলারটি পরিচালনা করেছেন সানী সানোয়ার ও ফয়সাল আহমেদ।

বৃহস্পতিবার রাতে বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সে প্রিমিয়ারের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক সংক্ষিপ্ত রিভিউ দিয়েছেন।

চিত্রনাট্যকার রুম্মান রশীদ খান লেখেন;

* সাহসী স্ক্রিপ্ট। ধন্যবাদ সেন্সর বোর্ড।
* ভীষণ গতিশীল।
* বাংলাদেশের বাজেটের তুলনায় বিশ্বমানের সিনেমা।
* প্রায় প্রত্যেকের বিশ্বাসযোগ্য অভিনয়। যদিও প্রায় ২০০ অভিনয়শিল্পীর মধ্যে গল্প-ই মূল নায়ক।
* দুর্দান্ত সম্পাদনা, আবহ সংগীত, অ্যাকশন।
* পরিচালক হিসেবে সানি সানোয়ার ও ফয়সাল আহমেদ : সফল অভিষেক।
* তথাকথিত অনেক সিনে নায়িকাদের মত ন্যাকামি না করলেও চিত্রনায়িকা ঐশীকে সাবলীল অভিনেত্রী হিসেবে পাওয়া-অনেক বড় অর্জন।
* আরিফিন শুভ’র ঝুলিতে আরেকটি সফল কাজ। বিশেষ করে তার এন্ট্রি দৃশ্য, সহকর্মীর মৃত্যুতে চোখের অভিব্যক্তি, ক্লাব থেকে বোম ডিজপোজালের দৃশ্যে অভিনয়-দারুণ!
* শেষটুকু অনেকের জন্য ধাক্কা লাগলেও লাগতে পারে। তবে আমি সাদরে গ্রহণ করেছি।
* ঢাকা অ্যাটাক-এর সাথে তুলনায় না গিয়ে এটুকু বলবো, MISSION EXTREME is a must watch film. Thanks Team.

অন্যদিকে মোশাররফ হোসেনের মতে, ‘মিশন এক্সট্রিমের প্রিমিয়ার শো দেখার সৌভাগ্য হল। বাজি রেখে বলতে পারি, সাম্প্রতিক সময়ে নায়ক আরিফিন শুভর মত স্ক্রিন প্রেজেন্স বাংলাদেশের অন্য কোনো নায়কের নেই। আমাদের দেশের এই অভিনেতা দেখিয়ে দিয়েছেন, কঠোর পরিশ্রম করলে নিজেকে কোন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব। তিনি যদি উপযুক্ত পরিবেশ পেতেন, বলিউডের হৃত্ত্বিক রোশানের “ওয়ার” সিনেমায় যে স্ক্রিন প্রেজেন্স, সেটা ধরে ফেলতেন।

নেটফ্লিক্সের যুগে বিশ্বমানের থ্রিলার দেখে যদি অভ্যস্ত হন, এবং একই মান আশা করেন, মিশন এক্সট্রিম সম্ভবত সেই আশা পূরণ করতে পারবেনা। তবে যদি বাংলাদেশের সিনেমা জগতের অবস্থার কথা মাথায় রেখে সিনেমাটি দেখেন, হতাশ হবেন না বাজি লাগতে পারি।’

আরেক চিত্রনাট্যকার শাহজাহান সৌরভ লেখেন, ‘স্বপ্নটা আমাদের একই ছিল, সিনেমার।
আপনার টা পূরণ করেছেন, পূর্ণাঙ্গভাবে হাজির করছেন নিজের স্বপ্ন সবার সামনে আজ; আর কয়েক ঘন্টা পরই। আমরা স্বপ্ন পূরণের পথে হাঁটছি। হয়তো পূরণ হবে, হয়তো হবে না। পথ বদলে যাবে কারও, পথ থেকে সরে দাঁড়াবে কেউ। তারপরও পথের শেষে, পথের সাথে আমাদের সবার ভালবাসা থাকবে সব সময়।

অভিনন্দন সিনেমার পরিচালক ফয়সাল আহমেদ ভাই।
অভিনন্দন সিনেমার পরিচালক সানী সানোয়ার ভাই।

যে স্বপ্নের জন্ম হতে যাচ্ছে আজ, সে দীর্ঘায়িত হোক।
অনেক, অনেক দোয়া মিশন এক্সট্রিমের জন্য। ভালবাসা এর সব কলাকুশলীর জন্য।

#জয়_হোক_বাংলাদেশী_সিনেমার।

শুভ ভাইয়ের সাথে সো ফার আমার দুটো সিনেমা হয়েছে। “ঢাকা অ্যাটাক” এবং “সাপলুডু”। ঐশীর সাথে হতে, হতে হয়নি “স্বপ্নবাজি”।

মোটা দাগে বললে, অভিনয়ের দুটো ভাগ থাকে। রিসিভ আর ডেলিভার। পরিস্থিতি কিংবা সহশিল্পীর সংলাপ আপনি কিভাবে নিচ্ছেন (রিসিভ) আর সে অনুযায়ী আপনার অভিব্যক্তি কিংবা সংলাপ যেভাবে দিচ্ছেন (ডেলিভারি), এ দুই মিলে হয় অভিনয়।

মিশন এক্সট্রিমে শুভ ভাইয়ের রিসিভ, তার এ যাবৎকালের (রিলিজ হওয়া) যে কোন সিনেমার চাইতে অনেক ভাল। অভিনয়ে তার এই অগ্রগতি আমাকে আনন্দিত করেছে ভীষণ।

ঐশীর স্নিগ্ধতা, ইনোসেন্স তাকে দর্শকের হৃদয়ের কাছে পৌঁছে দেবে আমার বিশ্বাস। প্রত্যাশাতীত সাবলীল ছিল সে।’

চলচ্চিত্রটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন আরিফিন শুভ, জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী, সাদিয়া নাবিলা, সুমিত সেনগুপ্ত, রাইসুল ইসলাম আসাদ,  তাসকিন রহমান, শতাব্দী ওয়াদুদ, মনোজ প্রামাণিক, ফজলুর রহমান বাবু, শহীদুজ্জামান সেলিম, ইরেশ যাকের, মাজনুন মিজান, মিশা সওদাগর, সৈয়দ নাজমুস সাকিবসহ অনেকে।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Shares