Select Page

অনুমতির পরদিনই স্থগিত ‘ডুব’

অনুমতির পরদিনই স্থগিত ‘ডুব’

১২ ফেব্রুয়ারি যৌথ প্রযোজনার প্রিভিউ কমিটি দেখে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ‘ডুব’। ১৫ ফেব্রুয়ারি মেলে অনাপত্তিপত্র। কিন্তু পরদিন অর্থাৎ, ১৬ ফেব্রুয়ারি জানানো হয় তথ্য মন্ত্রণালয়ের আদেশে অনাপত্তিপত্র বাতিল করা হয়েছে। খবরটি প্রকাশ করেছে ভ্যারাইটি ডটকম।

ছবিটি কেন নিষিদ্ধ করা হলো এ বিষয়ে ভ্যারাইটিকে বিএফডিসির ম্যানেজিং ডিরেক্টর তপন কুমার ঘোষ বলেন, ‘এটা বিএফডিসির বিষয় নয়। বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ড বিষয়টি তত্বাবধান করে।’

 এ বিষয়ে ফারুকী ভ্যারাইটিকে বলেন, ‘প্রথম পদক্ষেপেই ছবিটি আটকে দেওয়া হয়েছে। তবে ঠিক কি কারণে সেটা করা হয়েছে, তার ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি। আমার ছবির যে কনটেন্ট তাতে কোনও ধরনের সেন্সর রীতি ভঙ্গ করা হয়নি। এটা আসলে বাকস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ বলেই আমি মনে করছি।’

এ বিষয়ে ছবিটির প্রধান অভিনেতা ও এর সহ-প্রযোজক ইরফান খান পত্রিকাটিকে বলেন, ‘ছবিটি নিষিদ্ধ করায় আমি সত্যি বিস্মিত হয়েছি। এতে প্রধানত একজন নারী ও পুরুষের জটিল সম্পর্ক ও একটি মানবিক বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে নির্মিত। এতে সমাজের কি ক্ষতি হতে পারে? আমার বোধগম্য নয়।’

কয়েক মাস আগে গুজব উঠে লেখক হুমায়ূন আহমেদের দ্বিতীয় বিয়ের কাহিনী উঠে এসেছে ‘ডুব’-এ। সে বিতর্কের সূত্রে সেন্সর বোর্ডে আপত্তি মেহের আফরোজ শাওন ১৩ ফেব্রুয়ারি  একটি চিঠি লেখেন। তাতে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন যে, ‘ডুব’ ছবিটি তাঁর প্রয়াত স্বামী কথাসাহিত্যিক হ‌ুমায়ূন আহমেদের জীবনীনির্ভর কিনা, তা বিবেচনায় রাখার জন্য। কারণ, গত বছর ভারত ও বাংলাদেশের কিছু সংবাদমাধ্যমকে এ ছবিরই কয়েকজন শিল্পী এমন তথ্য দিয়েছিলেন।

‘ডুব’-এর প্রধান কয়েকটি চরিত্রে অভিনয় করছেন বলিউডের ইরফান খান, কলকাতার পার্নো মিত্র, ঢাকার নুসরাত ইমরোজ তিশা, রোকেয়া প্রাচীসহ অনেকে। প্রযোজনা করছে বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও কলকাতার এসকে মুভিজ। সহ-প্রযোজক হিসেবে আছেন ইরফান খান।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

Shares