Select Page

উত্তর আমেরিকায় শতাধিক প্রেক্ষাগৃহে প্রথম কোনো বাংলাদেশি ছবি

উত্তর আমেরিকায় শতাধিক প্রেক্ষাগৃহে প্রথম কোনো বাংলাদেশি ছবি

জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস ৩ এপ্রিল। এ দিন সুখবর দিয়েছে বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের আন্তর্জাতিক পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো। প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব জানান, গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘পাপ-পুণ্য’ যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার ১০৫টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিচ্ছেন।

‘পাপ-পুণ্য’ পরিচালক গিয়াস উদ্দিন সেলিমের সঙ্গে আফসানা মিমি, চঞ্চল চৌধুরী ও সিয়াম আহমেদ

এরই মধ্যে সেখানকার প্রেক্ষাগৃহসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করে সবকিছু চূড়ান্ত করেছেন। বাংলাদেশের কোনো চলচ্চিত্র এর আগে এতগুলো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়নি বলেও জানান তিনি। দেশের চলচ্চিত্রকে দেশের বাইরের এতগুলো প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দিতে পেরে ভীষণ আনন্দিত সজীব।

ঈদুল ফিতরের পর ২০ মে বাংলাদেশ ও উত্তর আমেরিকার এক শতাধিক মাল্টিপ্লেক্সে এই সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। এর আগে দেশের বাইরের ১৬টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছিল মাসুদ হাসান উজ্জ্বল পরিচালিত ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’।

প্রথম আলোকে সজীব বলেন, ‘এটাই সেই স্বপ্ন যা এত দিন অবিশ্বাস্য ছিল, অবশেষে বাস্তব হতে যাচ্ছে। আমাদের পরিবেশনায় বাংলাদেশের ১৬ নম্বর সিনেমা একযোগে এক শতাধিক প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির মাইলফলক স্পর্শ করতে যাচ্ছে। এ বছরের শুরুতে আমরা ঘোষণা দিয়েছিলাম, ২০২২ সালে আমাদের মুক্তি দেওয়া প্রতিটি সিনেমা আমেরিকা ও কানাডার এক শতাধিক হলে একসঙ্গে মুক্তি পাবে। অবশেষে “পাপ পুণ্য” মুক্তির মাধ্যমে সেটি শুরু হচ্ছে। এখন থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডায় বাস করা বাঙালিরা এএমসি, রিগ্যাল, সিনেমার্ক বা সিনেপ্লেক্সে গিয়ে বাংলাদেশের সিনেমা উপভোগ করতে পারবেন। এটা শুধু আমাদের জন্য নয়, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার বাংলাদেশি তথা সব বাংলাদেশির জন্য দারুণ গৌরবের।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, ‘পাপ-পুণ্যই হতে যাচ্ছে সেই সিনেমা যা প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের বাইরে ১০০ এর বেশি থিয়েটারে একযোগে মুক্তি পাচ্ছে। আমি যদি বলি, This is HUGE, ENORMOUS, EXTRAVAGANT & more than a Dream Come True thing তা ও সবটা বলা হবেনা। বাংলাদেশের সিনেমা এতে করে International Distribution এ এমন এক সাবালকত্বে পৌঁছাল, যেটা কিছুদিন আগে ভাবাও অবিশ্বাস্য ছিল। এর মাধ্যমে আমরা দ্বিতীয় বৃহত্তম সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি, Indian Cinema এর উত্তর আমেরিকার গড় হল সংখ্যার কাতারে প্রবেশ করে ফেললাম। কিছু ব্যতিক্রম (যেমন RRR, Radhe Shyam, Pushpa বা KGF 2 টাইপ সিনেমা) বাদ দিলে ভারতের বেশিরভাগ সিনেমা উত্তর আমেরিকাতে ১০০ থেকে ২০০ হলে রিলিজ হয়। আমাদের ‘পাপ-পুণ্য’ও সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ২০ মে ২০২২ তারিখে (সম্ভাব্য) আমেরিকা ও কানাডার প্রায় ১০৫টির মত মাল্টিপ্লেক্সে একযোগে মুক্তি পাচ্ছে। জাতীয় চলচ্চিত্র দিবসে এরকম একটি ভীষণ আনন্দের খবর জানাতে পেরে সত্যি খুব ভালো লাগছে।’

আগাম এ–ও জানিয়ে রাখেন, শাকিব খান ফিল্মসের নতুন চলচ্চিত্র ‘রাজকুমার’–এর আন্তর্জাতিক পরিবেশনার দায়িত্বে থাকছে তাদের প্রতিষ্ঠান স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো। ‘রাজকুমার’ নিয়ে তারা আরও বড় পরিসরে পরিকল্পনা করছেন।

সম্প্রতি ‘পাপ-পুণ্য’ চলচ্চিত্রের উত্তর আমেরিকা পরিবেশনা নিয়ে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের পক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর করেন প্রতিষ্ঠানটির বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের পরিচালক ইবনে হাসান খান এবং স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী সৈকত সালাহউদ্দিন।

‘মনপুরা’ চলচ্চিত্রের সফলতার পর আবারও গিয়াসউদ্দিন সেলিমের পরিচালনায় ‘পাপ-পুণ্য’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী। এতে আরও অভিনয় করেছেন আফসানা মিমি, ফারজানা চুমকী, সিয়াম আহমেদ, শাহনাজ সুমি প্রমুখ।


আমাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Shares