Select Page

গোয়ার উৎসবে বাংলাদেশের অংশগ্রহণকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে আন্তর্জাতিক মিডিয়া

গোয়ার উৎসবে বাংলাদেশের অংশগ্রহণকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে আন্তর্জাতিক মিডিয়া

ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব ইন্ডিয়া এবং দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বড় মার্কেট হিসেবে পরিচিত ফিল্ম বাজারে বাংলাদেশের সিনেমা বেশ ভালো প্রভাব ফেলেছে।

রোববার এক প্রতিবেদনে এমনটাই জানিয়েছে আমেরিকান মিডিয়া কোম্পানি ভ্যারাইটি। প্রতিবেদনটি বাংলায় প্রকাশ করেছে নিউজবাংলা২৪।

দেশের পরিচালক বিপ্লব সরকারের ফিচার ফিল্ম আগন্তুক-এর প্রাসাদ ডিআই পুরস্কার পাওয়া, নন-কম্পিটিশন বিভাগে বাংলাদেশের সাঁতাও, পাপ পুণ্য,পাতালঘর সিনেমার প্রদর্শনী এবং আইসিএফটি-ইউনেস্কো গান্ধী মেডেল অ্যাওয়ার্ড বিভাগে নকশিকাঁথার জমিন সিনেমার প্রতিযোগিতা করাকে বিশেষভাবে দেখছে ভ্যারাইটি।

প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, উৎসবে অংশ নিয়েছিলেন দেশের প্রযোজক পরিচালক আবু শাহেদ ইমন, চরকির প্রধান পরিচালক কর্মকর্তা রেদোয়ান রনি, জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসানসহ বাংলাদেশের সিনেমাসংশ্লিষ্ট বড় একটি দল।

এ ছাড়া ফিল্ম বাজার থেকে এইড অক্স সিনেমাস দ্যু মুন্দ (ফ্রান্সের ন্যাশনাল ফিল্ম বোর্ড থেকে পরিচালিত) ফান্ড পাওয়া একা সিনেমায় প্রযোজক হিসেবে সম্পৃক্ত আছেন বাংলাদেশের বিজন ইমতিয়াজ।

গোয়া উৎসব এবং ফিল্ম বাজারে দেশের সিনেমা ও সিনেমাসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের উপস্থিতি-সম্পৃক্ততা নিয়ে ভ্যারাইটিকে আবু শাহেদ ইমন বলেন, ‘এ বছর বাংলাদেশের চারটি ফিচার ফিল্ম এসেছে উৎসবে। এটা চমৎকার একটা ব্যাপার। এর অর্থ বাংলাদেশে ভালো মানের সিনেমা নির্মাণ হচ্ছে। ওটিটির অগ্রসরতা এবং সিনেমার উত্থানকে আমি অনুমান করে বলতে পারি বাংলাদেশ সিনেমার ইতিহাসের অন্যতম সেরা সময়।’

তিনি আরও বলেন, ‘কোভিডের পরে সবাই নতুন সুযোগ খুঁজছে এবং তারা ফিল্ম বাজারের মতো বিভিন্ন ফিল্ম ল্যাব, ওয়ার্কশপ এবং নেটওয়ার্কিং প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করছে। আমি মনে করি আসছে বছরগুলোতে এই অংশগ্রহণ আরও বাড়বে। কারণ দেশে আরও অনেক আকর্ষণীয় সিনেমা/প্রকল্প আসছে’।


মন্তব্য করুন

Shares