Select Page

তাদের ‘হঠাৎ দেখা’

তাদের ‘হঠাৎ দেখা’

91418_e4‘রেলগাড়ির কামরায় হঠাৎ দেখা, ভাবিনি সম্ভব হবে কোনোদিন।’— এভাবেই শুরু হয়েছিল এক গহীন প্রেমের গল্প৷ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘হঠাৎ দেখা’ কবিতার প্রতি লাইনের আড়ালে আছে ভালোবাসার এক চিরন্তন কাহিনীর আভাস৷ এবার সে কাহিনী উঠে আসছে বড়পর্দায়৷ ঢাকার শাহাদাৎ হোসেন বিদ্যুৎ ও কলকাতার রেশমী মিত্র পরিচালিত ‘হঠাৎ দেখা’য় অভিনয় করবেন বাংলাদেশ ও কলকাতার দুই জনপ্রিয় তারকা ইলিয়াস কাঞ্চন ও দেবশ্রী রায়।

ঢাকার ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লি. ও কলকাতার রেশমী পিকচার্সের যৌথ প্রযোজনায় সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে। ছবির শুটিং এ মাসেই শুরু হবে। আগামী ২৫ বৈশাখ বিশ্বকবির জন্মজয়ন্তীতে দুই বাংলায় একসঙ্গে মুক্তি দেওয়ার লক্ষ্যে ‘হঠাৎ দেখা’ নির্মাণ হচ্ছে।

জুলাই মাসে ‘হঠাৎ দেখা’র গানের রেকর্ডিংয়ে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক রেশমী মিত্র, সঙ্গীত পরিচালক রাজা নারায়ণ দেব, রেজওয়ানা চৈধুরী বন্যা ও অনুপম রায়৷

নতুন এ সিনেমা প্রসঙ্গে সে সময় রেশমী মিত্র বলেন, “রবীন্দ্রনাথের লেখার মধ্যে আমি সবসময় একটা ছবি খুঁজে পাই৷ বেশ কিছু কবিতা, যেমন ; ‘দেবতার গ্রাস’ বা ‘দুই বিঘা জমি’ পড়তে পড়তে আমি গোটা একটা ছবিই যেন দেখতে পাই৷ আসলে আমার মনে হয় ছবি ব্যাপারটাই অন্যরকম৷ খবরের কাগজের দু’লাইন একটা খবরের মধ্যেও অনেক ভিজ্যুয়াল থাকে, হয়তে একটা গোটা ছবিই লুকিয়ে থাকতে পারে৷ ‘হঠাৎ দেখা’র ক্ষেত্রেও তেমনি৷”

Hothat

তিনি আরও বলেন, “ভালোবাসা আমাদের জীবনের খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা অধ্যায়৷ আজ যখন চারিদিকে হিংসার এত হানাহানি, তখন আমার মনে হয়েছিল ভালোবাসার একটা ছবি হওয়া দরকার৷ অবশ্যই এখানে চিত্রনাট্যের একটা বিরাট ভূমিকা আছে৷ অলোক মুখোপাধ্যায় অসাধারণ বাঁধুনিতে এ ছবির চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন৷’’

‘হঠাৎ দেখা’র সঙ্গীত পরিচালনা করছেন রাজা নারায়ণ দেব৷ তিনি বলেন, “খুবই কঠিন কাজ এটা৷ যে মানুষটাকে নিয়ে কাজ করছি তার দক্ষতা তো তুলনাহীন৷ তাই রবীন্দ্রনাথের গানই রেখেছি ছবিতে৷ তবে ছবির থিম সংটা একটু অন্যরকম৷ সেখানও রবি ঠাকুর আছেন৷ ‘ভালোবাসি ভালোবাসি’ গানের দুটো লাইন থিম সংয়ে ফিরে ফিরে এসেছে৷’’

চলচ্চিত্রটিতে দুটি রবীন্দ্রসঙ্গীত গেয়েছেন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা ও মনোময় ভট্টাচার্য৷ ছবিতে ব্যবহার করা হচ্ছে কয়েকটি লোকসঙ্গীত৷ সেগুলো গেয়েছেন কার্তিক দাস বাউল৷

মানব জমিন ও কলকাতা২৪ অবলম্বনে।

 


মন্তব্য করুন

Shares