Select Page

‘শনিবার বিকেল’ কেন আটকা? জবাব না পেলে আদালতে যাবেন ফারুকী

‘শনিবার বিকেল’ কেন আটকা? জবাব না পেলে আদালতে যাবেন ফারুকী

 ‘শনিবার বিকেল’ চলচ্চিত্র নিয়ে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং সেন্সর বোর্ডের চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়েছেন প্রযোজক ও পরিচালক। সেখানে তারা জানতে চেয়েছেন কেন সিনেমাটিকে আটকে রাখা হয়েছে। সাত দিনের মধ্যে জবাব না পেলে তারা আদালতে যাবেন।

চলচ্চিত্রটির পরিচালক মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বুধবার সন্ধ্যায় তার ভেরিফায়েড ফেসবুক অ্যাকাউন্টে জানান, ‘আজকে (বুধবার) সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান শনিবার বিকেল ছবিটা দেখলেন। আমরা আশা করব চলচ্চিত্রের উন্নয়ন ও বিকাশের স্বার্থে ওনারা দ্রুতই সেন্সর সার্টিফিকেট প্রদান করবেন।’

তবে সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. সাইফুল্লাহর ‘শনিবার বিকেল’ দেখার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।

নিউজবাংলাকে মো. সাইফুল্লাহ বলেন, ‘এটা মিথ্যা কথা, আমি সিনেমাটা দেখিনি।’ এ সময় তিনি সেন্সর বোর্ডে অন্য সিনেমার সেন্সর শোতে ছিলেন।

পড়ুন রিভিউ/ শনিবার বিকেল: সিঙ্গেল-টেক থ্রিলারে সন্ত্রাসী হামলার বেদনাদায়ক ও আপোষহীন ব্যবচ্ছেদ

বুধবার পোস্ট করা ফারুকীর সেই স্ট্যাটাসে আরও লেখা আছে, ‘যা-ই হোক আমরা সাত দিন সময় দিয়ে চিঠি দিয়েছি সার্টিফিকেট ইস্যু করার জন্য। ২১ তারিখে সাত দিন শেষ হবে। তারপর আমরা আইনের পথে হাঁটব। এবং পাশাপাশি সিনেমা বা যেকোনো সৃজনশীল কাজের ওপর থেকে সকল প্রকার অন্যায় নিয়ন্ত্রণ তুলে নেয়ার জন্য আমাদের ভয়েস রেইজ করব। ফ্রিডম অফ এক্সপ্রেশন ইজ ফান্ডামেন্টাল অ্যান্ড নন নেগোশিয়েবল।’

সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. সাইফুল্লাহ সেন্সর আপিল বোর্ডেরও সদস্য। কিন্তু তার একার সিনেমা দেখাকে আপিল বোর্ডের সিনেমা দেখা বলা যাবে না। সেন্সর বোর্ডের উপপরিচালক মোমিনুল হক বলেন, ‘আপিল বোর্ডের সদস্য সংখ্যা সাত। কমিটির আহ্বায়ক তথ্য ও সম্প্রচার সচিব। তিনি যখন নোটিশের মাধ্যমে সবাই মিলে সিনেমাটি দেখবেন, তখনই সেটাকে আপিল বোর্ডের সিনেমা দেখা বলা যাবে।’

মোমিনুল হক আরও জানান, ‘ভাইস চেয়ারম্যান সিনেমাটি দেখেছেন কি না সেটি আমি জানি না। সেটা তিনি বলতে পারবেন। তবে আমি এটা বলতে পারি যে আমাদের অবস্থা এবং নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর অবস্থা একই রকম। আমরা সবাই আপিল কমিটির দিকে তাকিয়ে। আপিল কমিটি যা বলবে আমরা সেভাবে কাজ করব।’

সাড়ে তিন বছর ধরে আটকে আছে শনিবার বিকেল সিনেমাটি। সেন্সরে জমা দেয়ার পর এটি এখন আছে সেন্সর আপিল কমিটিতে। কেন সিনেমাটিকে ছাড়পত্র দেয়া হচ্ছে না, সে ব্যাপারে কিছু জানায়নি কমিটি।


মন্তব্য করুন

Shares