Select Page

শাকিব খানের হাতে শুরু না হওয়া সাত ছবি

শাকিব খানের হাতে শুরু না হওয়া সাত ছবি

ঢালিউডের পরিবর্তিত পরিস্থিতি, করোনা ও তারপর গ্রিনকার্ড নেয়ার জন্য আমেরিকায় পাড়ি; সব মিলিয়ে অনেকদিন ধরে শাকিব খান নতুন কোনো ছবির জন্য ক্যামেরার সামনে দাঁড়াননি। সাম্প্রতিক ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার মাঝে পরপর নতুন কিছু ছবির খবর দিলেন।

শাকিবের মন্তব্য বাস্তবায়িত হলে তাকে সামনে সাতটি ছবিতে দেখা যাবে। এর মধ্যে দুজন ছাড়া বাকি চার পরিচালকের সঙ্গে আগে কখনো কাজ করেননি তিনি।

বছরের শুরুর দিকে যুক্তরাষ্ট্রে হিমেল আশরাফের সঙ্গে ‘রাজকুমার’ ছবির ঘোষণা দিয়েছিলেন, এ ছাড়া ‘মায়া’ নামের সরকারি অনুদানের ছবিও করছেন তারা। এ ছাড়া কয়েকদিন আগে রায়হান রাফীর পরিচালনায় ‘প্রেমিক’ ছবির ঘোষণা দিয়েছেন। হাসিবুর রেজা কল্লোলের পরিচালনায় ‘সত্তা’ নামের একটি ছবি করেছিলেন শাকিব খান। এখন ঘোষণায় আটকে আছে ‘কবি’।

ঢাকাই ফেরার পরপরই পুলিশ কর্মকর্তা সানী সানোয়ারের সঙ্গে বৈঠক করেন শাকিব। সে হিসেবে পুলিশের সিনেমায় যুক্ত হচ্ছেন দেশের এই শীর্ষ নায়ক। তবে সবচেয়ে চমক বড় হলেন মিজানুর রহমান আরিয়ান। শাকিবের ঘোষণার পর মনে হচ্ছিল, ছোটপর্দার জনপ্রিয় এ নির্মাতার প্রথম ছবির নায়ক হতে যাচ্ছেন তিনি। কিন্তু আরিয়ানের মন্তব্য থেকে বোঝা যাচ্ছে, শিগগিরই শাকিবের সিনেমাটি হচ্ছে না।

তবে আরিয়ান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শাকিব খানের সঙ্গে যে প্রজেক্ট নিয়ে আলোচনা হয়েছে, সেই প্রজেক্টের আগেই আমার নতুন সিনেমার ঘোষণা আসবে।’

শবনম বুবলির সঙ্গে শাকিবের আপাতত শেষ ছবি হলো ‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’। বিয়ে-সন্তানের খবর প্রকাশের পরপরই তারা গানের দৃশ্যায়নের মাধ্যমে ছবিটির কাজ শেষ করেন। সেই ছবির পরিচালক তপু খানের সঙ্গে আবারো কাজের ঘোষণা দিয়েছেন শাকিব।

বর্তমানে ভাবমূর্তি উদ্ধার ও হাল সময়ের জন্য মানিয়ে দিতে নতুন নির্মাতা ও ভাবনা নিয়ে আগানোর দরকার; শাকিবকে নিয়ে সেই কথা অনেক পুরোনো। আপাতত সেটাই করছেন বলে তার মন্তব্যে মনে হচ্ছে।

বাংলাদেশ প্রতিদিনকে দেয়া সাক্ষাৎকার এই সাত ছবি প্রসঙ্গে ঢালিউডের শীর্ষ নায়ক বলেন, ‘এসব ছবির বেশির ভাগই আমার নিজের প্রযোজনা সংস্থা থেকে নির্মিত হবে। এখন চলচ্চিত্রের আবার সুসময় ফিরেছে, সব সময়ই আমার চেষ্টা ছিল নিজ দেশের চলচ্চিত্রকে সমৃদ্ধ ও বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের ছবিকে আবার প্রতিষ্ঠিত করা। এ কাজের পাশাপাশি দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে বেশ কিছু কাজ করতে চাই। আমি মৃত্যুর পরও ভালো কাজের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।’

‘লিডার আমিই বাংলাদেশ’ ছাড়ার আর একটি মাত্র ছবি রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়, সেটা হলো ‘অন্তরাত্মা’। এখন দেখার বিষয় গ্রিন কার্ডের জন্য দৌড়ের উপর থাকা কিং খান দেশের সিনেমায় কতটা সময় দিতে পারেন।


মন্তব্য করুন

Shares