Select Page

সারাদিন ঠিকঠাক, মধ্যরাতে গণ্ডগোল, মিশা-জায়েদ জয়ী

সারাদিন ঠিকঠাক, মধ্যরাতে গণ্ডগোল, মিশা-জায়েদ জয়ী

শুক্রবার দিনভর অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই ভোট গ্রহণ শেষ হয় বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির। এরপর সন্ধ্যা ৭ টা থেকেই চলছিল ভোট গণনা। ভোটে জয়ী হন মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান। কিন্তু বিপত্তি ঘটে ভোট গণনার শেষ মুহূর্তে। শাকিব খান ভোট কেন্দ্রে আসলে চরম গন্ডগোলের সৃষ্টি হয়। এতে আহত হয়েছেন চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক।

নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছেন মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খান। ভোট গণনা শেষে শুক্রবার গভীর রাতে নির্বাচন কমিশন থেকে ফলাফল ঘোষণা করা হয়।

রাত দুইটার দিকে শাকিব খান এফিডিসিতে যান। এসময় তিনি ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। এটি নিয়ে মিশা-জায়েদ প্যানেলের লোকজন আপত্তি জানান। তারা বারবার শাকিবকে অকারণে ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করতে বারণ করেন। কিন্তু শাকিব কারো বারণ না শুনেই ভোটকেন্দ্রে প্রবেশ করেন।

এ নিয়ে কেন্দ্রের বাইরে চরম উত্তেজনা শুরু হয়। একপর্যায়ে শাকিবকে মিশা-জায়েদ প্যানেলের নেতা কর্মীরা বের করতে উদ্ধত হন।

শাকিবকে বের হয়ে আসতে বলে বাইরে থেকে চেয়ার ছুঁড়ে মারতে থাকেন অনেকেই। এরমধ্যে গেটের বাঁশ পড়ে সাইমনের মাথায় আঘাত লাগে। এবং তিনি আহত হন বলে নিশ্চিত করেছেন চিত্রনায়ক নিরব। তবে তা গুরুতর কিছু নয়।

জানা গেছে, হট্টগোলের একপর্যায়ে শাকিব খানকে ভোটকেন্দ্র থেকে বের করে আনেন মিশা সওদাগর। এসময় তাকে ধাওয়া করেন মিশা-জায়েদ প্যানেলের বেশ কয়েকজন নেতা কর্মী। তারপর মিশা পুলিশের সহায়তায় শাকিবকে তার গাড়িতে তুলে দেন।

এই ঘটনার পর এফডিসিতে সুনশান নীরবতা বিরাজ করছে। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে জানা গেছে।

নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান মনতাজুর রহমান আকবর বলেন, `ভোট গণনাকক্ষে প্রার্থীর প্রতিনিধি ছাড়া কারও প্রবেশের অধিকার নেই। সেখানে শাকিব খান একজন সাধারণ ভোটার। আমরা ব্যস্ত ছিলাম, সে পেছনের গেট থেকে প্রবেশ করেছিলো বলে দেখতে পারিনি। তবে তাকে বেশিক্ষণ থাকতে দেয়া হয়নি। আমরা দ্রুত তাকে বের করে দিয়েছি।`

শাকিব বাইরে বেরিয়ে ধাওয়ার মুখে পড়েছেন জানার পর এই নির্মাতা বলেন, ‌`শাকিবের উচিত হয়নি এভাবে ভোট গণনাকেন্দ্রে আসা। এসব কিছুতে শিল্পীদের ভাবমূর্তিই ক্ষুন্ন হলো।`

প্রসঙ্গত, চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নির্বাচনে ওমর সানি-অমিত হাসান প্যানেলকে প্রকাশ্যেই সমর্থন দিয়েছেন সদ্য শেষ হওয়া কমিটির সভাপতি শাকিব খান।

মিশা সওদাগর ২৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ওমর সানী পেয়েছেন ১৫৩ ভোট। অপরদিকে জায়েদ খান খান ২৭৯ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী অমিত হাসান পেয়েছেন ১৪৫ ভোট।

সহ-সভাপতি পদে রিয়াজ ৩২৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এই পদে নাদির খান পেয়েছেন ২৬৫ ভোট।

কার্যনির্বাহী পরিষদে সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন সাইমন সাদিক। তিনি মোট ভোট পেয়েছেন ৩৬১।

কার্যনির্বাহী পরিষদে অনান্যদের মধ্যে নির্বাচিত হয়েছেন সুব্রত (৩১০ ভোট), আরমান (২৬৫), রোজিনা (৩৪৪ ভোট), অঞ্জনা ( ৩২২ ভোট), সুশান্ত (৩৪২ ভোট), আলীরাজ (৩০৩ ভোট), মৌসুমী (৩৪৯ ভোট), পূর্ণিমা (২৮২ ভোট), পপি (৩০২ ভোট), ফেরদৌস (২৬১ ভোট), নাসরিন (২৬৮ ভোট), জেসমিন (৩২৬ ভোট), ইমন (২৬২ ভোট), জ্যাকি আলমগীর (২৯৫ ভোট), জাকির হোসেন (১৯০ ভোট) ও কমল (২৪২ ভোট)। নির্বাচন কমিশনারের স্বাক্ষর করা কাগজ থেকে এই তত্ব সংগ্রহ করা হয়েছে।

নির্বাচনে মোট প্রার্থী ছিলেন ৫৭ জন। আর ৬২৪ জন ভোটারের মধ্যে ৫৫৮ জন ভোট প্রদান করেন, যারা প্রত্যেকেই চলচ্চিত্রের নিবন্ধিত শিল্পী।

শুক্রবার সকাল ৯ টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শেষ হয় সন্ধ্যা ৬টায়। সকাল থেকেই বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত চলে নির্বাচন। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নবীন-প্রবীণ সবশ্রেণির শিল্পীদের উপস্থিতিতে এফডিসিতে বসে তারার মেলা।

তবে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এফডিসির বাইরে ও ভিতরে প্রচুরসংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন ছিল।

সূত্র : জাগো নিউজ


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

স্পটলাইট

Saltamami 2018 20 upcomming films of 2019
Coming Soon

[wordpress_social_login]

Shares