Select Page

ফিরে দেখা ২০১০-১৯: নাটকে আলোচিত দশ অভিনেত্রী

ফিরে দেখা ২০১০-১৯: নাটকে আলোচিত দশ অভিনেত্রী

বাংলা নাটকের অভিনেত্রীদের কথা ভাবলেই চোখের সামনে ভাসে কোথাও কেউ নেই এর অভাগী মুনা, সংশপ্তকের ফুলমতি, নক্ষত্রের রাতের সব আগলে রাখা মনীষা কিংবা আজ রবিবারের চঞ্চল তিতলি ভাইয়া ও কংকা ভাইয়ার কথা। আহা, এই অভিনেত্রীদের যেমন সুন্দর মুখশ্রী তেমনি অসাধারণ অভিনয় আমাদের হৃদয়ে গেঁথে গেছে।

নাটকে আমাদের বেশ কয়েকজন গুণী অভিনেত্রীদের বিচরণ এই দশকেও ছিল। যেকারণে আমরা বুকের ভেতর কিছু পাথর থাকা ভাল, শ্যাওলা, আয়েশা, আয়েশা, ফেরার পথ নেই থাকেনা কোনকালে, মিস শিউলীর মত নারী চরিত্র কেন্দ্রিক শক্তিশালী কাজ পেয়েছি। তবে, এরকম ইতিবাচক কাজের পাশাপাশি হতাশ হবার মত বেশ কিছু ব্যাপারও ছিল! যেমনঃ শক্তিশালী অভিনেত্রীদের নিয়মিত নিম্নমানের নাটকে অভিনয়, জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা অভিনেত্রীর একই টাইপ নাটকে অহরহ দেখতে পাওয়া, কিছু আপত্তিকর ও ডাবল মিনিং নাটকে অভিনয় করে বেশ কয়েকজনের জনপ্রিয় হয়ে যাওয়া!

সবচেয়ে বড় আফসোসের ব্যাপার গত ৬-৭ বছরে আমরা বলার মত ভাল অভিনেত্রী খুব বেশি পাইনি। ৯০-২০১০ পর্যন্ত সময়ে ইন্ডাস্ট্রির গুণী অভিনেত্রীদের ব্যাকগ্রাউন্ড চেক করলে সিংহভাগই দেখা যাবে মঞ্চ, নতুন কুঁড়ি কিংবা সুন্দরী প্রতিযোগিতা থেকে আসা। নতুন কুঁড়ি বন্ধ হয়ে গেছে আগেই, মঞ্চের প্রতিও এখন বেশিরভাগ উঠতিদের আগ্রহ নেই! যার ফলাফল আমরা এই দশকে প্রত্যক্ষ করেছি। ইংরেজি একসেন্টে বাংলা বলা এক অদ্ভুত শ্রেণীর অভিনেত্রীদের মিডিয়াতে নিয়মিত দেখা গেছে। যারা দেখতে যথেষ্ট আকর্ষণীয় হলেও অভিনয় কিংবা বচনভঙ্গি দর্শকদের বিরক্তির উদ্রেক করে। এত হতাশার মাঝেও যে কয়জন অভিনেত্রী গত দশকের নাটককে আলোকিত করেছেন আজ তাদের নিয়ে কথা বলব:

১. নুসরাত ইমরোজ তিশা : টেলিভিশন নাটকে জনপ্রিয়তম অভিনেত্রীদের একজন তিনি। গত দশকেই যে শুভসূচনা করেছিলেন সেটা এই দশকে এসে আরো সমৃদ্ধ করেছেন। বলতে গেলে বেশ কয়েক বছর একচ্ছত্র আধিপত্য দেখিয়েছেন। একদিকে গ্র‍্যাজুয়েট,মনফড়িঙের গল্প,ভালোবাসি তাই,আরমান ভাই সিরিজ,চাঁদের নিজের কোনো আলো নেইয়ের মত জনপ্রিয় কাজ যেমন করেছেন অন্যদিকে আয়েশা, রাতারগুল, ছিন্ন,বুকের ভিতর কিছু পাথর থাকা ভালোর মত পরিক্ষীত কাজ ও করেছেন। সিকান্দার বক্স সিরিজের কিছু পর্বেও তিনি ছিলেন। নাটকের পাশাপাশি চলচ্চিত্রেও ছিলেন বেশ সরব,দ্বিতীয়বারের মত জাতীয় পুরস্কার ও পেতে যাচ্ছেন গুনী এই অভিনেত্রী।

২. মেহজাবীন চৌধুরী : ক্যারিয়ারের প্রতি একাগ্রতা থাকলে যে নিজেকে শীর্ষ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া যায় তার অনন্য উদাহরণ হচ্ছেন এই অভিনেত্রী। এক সময় তাকে নিয়ে দর্শকদের মনোভাব সন্তোষজনক ছিল না কিন্তু ‘বড় ছেলে’র বিশাল সাফল্যের পর তিনি এখন সবচেয়ে জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী। ছকের বাইরে গিয়েও নিজেকে ভেঙ্গেছেন ফেরার পথ নেই, এই শহরের মত টেলিফিল্মগুলোতে, এছাড়া বুকের বা পাশে, সোনালী ডানার চিল, তুমি না থাকলে, ভালোবাসা ১০১, হাতটা দাও না বাড়িয়ে, পতঙ্গর মত নাটক রয়েছেই। তবে বিশেষ ব্যাপারে অভিযোগ ও র‍য়েছে,অবশ্য এইক্ষেত্রে নির্মাতাদের ই দায় বর্তায়।

৩. অপি করিম : সমসাময়িকরা অনিয়মিত হয়ে গেলেও তিনি এখনো উজ্জ্বল আছেন অভিনয় জগতে। একেবারেই যে নিয়মিত ছিলেন তা নয়,তবে যখনই পর্দার সামনে এসেছেন দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন। গত দশকের জনপ্রিয়তা এই দশকে এসে আরো সমৃদ্ধ করেছেন গুণী এই অভিনেত্রী। সাম্প্রতিক সময়ে ‘মিস শিউলি’তে ভীষণ আলোচিত হয়েছেন, এছাড়া উল্লেখযোগ্য কাজের মধ্যে খুঁটিনাটি খুনসুটি, এফ এন এফ, আলো, এই শহর মাধবীলতার না, পুরাঘটিত বর্তমান,কেস ৩০৪০,দরজার ওপাশে,অবাক ভালোবাসায়,পিছুটান,সুইজারল্যান্ড কানামাছি ভোঁ ভোঁ অন্যতম।

৪. জাকিয়া বারী মম : ‘নীলপরী নীলাঞ্জনা’ বেশ জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর তিনি হয়ে উঠেন অন্যতম আলোচিত অভিনেত্রী। পূর্বের অভিনয় দক্ষতা নিয়েই সবার ই ভালো ধারনা ছিল,জনপ্রিয়তা পাওয়ার ক্যারিয়ার আরো সুসজ্জিত হয়। এরপর একে একে নীল প্রজাপতি,অক্ষয় কোম্পানির জুতো,ফুলমতি,শেষ পর্যন্ত,ভালোবাসার চতুষ্কোণ,উৎসর্গ সহ বেশিকিছু আলোচিত নাটকে অভিনয় করেছেন। তবে সম্প্রতি ‘অন্ধকার ঢাকা’ টেলিফিল্মে অভিনয় করে সমালোচিত হয়েছেন,এছাড়া একাধিক সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন।

৫. সুমাইয়া শিমু : বর্তমানে অভিনয় জগত থেকে দূরে থাকলেও এই দশকের শুরুতে তিনি বেশ জনপ্রিয় ছিলেন। ‘স্বপ্নচূড়া’ খ্যাত এই অভিনেত্রী ললিতা,এফ এন এফ,বিহাইন্ড দ্য ট্র‍্যাপ,ফাঁদ ও বগার গল্প,একজন ছায়াবতী,রেডিও চকলেট,তক্ষক সহ আলোচিত ছিলেন এই প্রতিভাবান অভিনেত্রী। অনেকদিন বাদে সম্প্রতি ‘ওয়াটার’ নাটকে অভিনয় করেছিলেন।

৬. তানজিন তিশা : মিউজিক ভিডিওর সুবাদে আলোচনায় আসা এই অভিনেত্রী বর্তমানে অভিনেত্রী হিসেবে ভীষন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। জনপ্রিয়তায় বেশ এগিয়ে থাকলেও অভিনয়ে উত্তরন ঘটানো আরো জরুরী যদি নিজেকে সমৃদ্ধ করতে চান,পাশাপাশি নাটক নির্বাচনেও সচেতনাতা প্রয়োজন। তাঁর অভিনীত উল্লেখযোগ্য নাটকের মধ্যে এই শহরে কেউ নেই,লালাই,দেখা হবে কি?,একটি সুখবর,পেন্ডুলাম,এই বৈশাখে,বেস্ট ফ্রেন্ড ২ অন্যতম।

৭. মিথিলা : হাউজফুল খ্যাত এই অভিনেত্রী ‘দেনমোহর’ নাটকে অভিনয় করে এই দশকের শুরুতে আলোচিত হয়েছিলেন। এরপর ল্যান্ডফোনের দিনগুলিতে প্রেমের জনপ্রিয়তার পর ধীরে ধীরে অভিনয় জগতে নিয়মিত থাকেন,মাঝখানে অবশ্য মাতৃত্বকালীন বিরতি নিয়েছিলেন। উল্লেখযোগ্য নাটকের মধ্যে ব্যাচ ২৭ সিরিজ, চিরকুঠের শব্দ,নীরার নীল আকাশ,সে এবং সে,আমার গল্পে তুমি,সুখের ছাড়পত্র,বিয়ের দাওয়াত রইলো,ভালোবাসার পঙ্কতিমালা,পাঞ্চ ক্লিপ অন্যতম।

৮. বিদ্যা সিনহা মিম : নাটক পাড়াকে বিদায় জানিয়ে আপাতত চলচ্চিত্রে ক্যারিয়ার গড়ার লক্ষ্যে আছেন এই অভিনেত্রী। তবে নাটকে যতদিন ছিলেন ততদিন বেশকিছু জনপ্রিয় কাজের মধ্যে দর্শকদের মাঝে আলোচনায় ছিলেন বেশ ভালোভাবেই। বিশেষ করে ভালোবাসি তাই,ট্র‍্যাম্প কার্ড,সেই মেয়েটা,স্পুক,স্মেল অব লাভ,অলসপুর,সেই সময়ে তুমি আমি,ওল্ড ইজ গোল্ড,কবিতা না ভালোবাসা অন্যতম।

৯. অপর্ণা ঘোষ : ‘মেড ইন চিটাগাং’ সিরিজে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক ভাষায় অভিনয় করে ভীষন আলোচিত হয়েছেন এই অভিনেত্রী। চলচ্চিত্রে অভিনয় করেও পেয়েছেন জাতীয় পুরস্কার। তাঁর অভিনয়ের প্রশংসা অনেকেই করেন,অভিনীত নাটকের মধ্যে লাইক এন্ড শেয়ার,আমরা ফিরবো কবে,আমি আকাশ পাঠাবো,অত:পর,মিস ফায়ার,আমাদের দিনরাত্রি অন্যতম।

১০. শার্লিন ফারজানা : ‘হঠাৎ তোমার জন্যে’ নাটকে অভিনয় করে আলোচিত হয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। দর্শকরা অভিনয়ে মুগ্ধ হলেও তিনি অভিনয়ে সিরিয়াস নন এই অভিযোগ অনেকদিনের,নইলে তিনি আরো জনপ্রিয় হতেন এটা অনেকের ই বিশ্বাস। যা কাজ করেছেন তার মধ্যে এয়ারবেন্ডার,লাইফ এন্ড ফিওনা,দাস কেবিন,যে তুমি হরণ করো,অপেক্ষার শেষ দিনে,সেই ছেলেটি অন্যতম। সিনেমাতেও অভিনয় করেছেন।

*বিশেষ:
১. জয়া আহসান : এই মুহূর্তে দুই বাংলার চলচ্চিত্রে সবচেয়ে আলোচিত অভিনেত্রী তিনি,তবে এই প্রতিভাময়ী অভিনয়ের সূচনা টিভি নাটকেই। বৈচিত্র্যময় চরিত্রে অভিনয় করে তিনি শীর্ষ অভিনেত্রী হয়েছিলেন। এই দশকেও শুরুতেও ছিল,সিনেমায় ক্যারিয়ার গড়ার লক্ষ্যে নাটককে বিদায় জানালেও তাঁর সেই স্বল্প কাজগুলো ‘ফেরার কোনো পথ নেই থাকে না কোনো কালে,চৈতা পাগল,আমাদের গল্প,ভালোবাসি তাই ভালোবেসে যাই’ এখনো আলোচনার শীর্ষে।

২. ঈশিতা : অভিনয়ে তিনি অনেক বছর ধরেই অনিয়মিত,তবে শুধুমাত্র ‘পাতা ঝরার দিন’ নাটকে অনবদ্য অভিনয়ের কারনে সর্বমহলে প্রশংসিত হয়েছেন,এছাড়া আমাদের গল্প ছিল আরেকটি অন্যতম কাজ।

৩. সানজিদা প্রীতি : সুঅভিনয়ের জন্য তিনি দর্শকপ্রিয়। সারফেস,কালারফুল,প্রতীক্ষা নাটকগুলোতে নিজের প্রতিভা দেখিয়েছেন,এছাড়া জনপ্রিয় টেলিফিল্ম ‘ভালোবাসি তাই ভালোবেসে যাই’ তেও অভিনয় করেছেন।

৪. তারিন : গত দশকের শীর্ষ জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী এই দশকে বেশকিছু প্রশংসিত নাটকে অভিনয় করেছেন তার মধ্যে সবুজ ভেলভেট,জং কুটুম্বপুর,ইনসমনিয়া,সহোদোরা,নূপুর,রুপাভাবী,ভাঙা গড়া অন্যতম।

৫. বিপাশা হায়াত : নব্বই দশকের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী এই দশকে মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন একাধিক নাটকে। বিশেষ করে ‘ইনসমনিয়া’য় দারুন অভিনয় করেছিলেন।এছাড়া চিনিখোর,শেষ বলে কিছু নেই,জোৎস্না ও জল অন্যতম নাটক।

৬. নাবিলা : আয়নাবাজি সিনেমার জন্য খ্যাত এই অভিনেত্রী উপস্থাপনাতেই বেশি ব্যাস্ত। তবে কথা হবে তো?,মার্চ মাসে শূটিং,সংসার,বাইশে এপ্রিল নাটকে অভিনয় করে আলোচিত হয়েছেন।

*প্রতিশ্রুতিশীল অভিনেত্রী:
১. সাফা কবির : এক সময় অভিনয় নিয়ে সমালোচিত হত খুব,এখনো যে দক্ষ হয়েছেন তা নয়। তবে অনেক উন্নতি করেছেন এই অভিনেত্রী। এইভাবে উত্তরন ঘটলে যদি নিয়মিত থাকেন তাহলে একজন জনপ্রিয়তম অভিনেত্রী হবেন সুনিশ্চিত ভাবে বলা যায়। উল্লেখযোগ্য কাজের মধ্যে আগুন্তক,মিস শিউকি,নো ওয়ে আউট অন্যতম।

২. সাবিলা নূর : ‘ইউটার্ণ’ টেলিফিল্মে অভিনয় করে আলোচনায় আসা এই অভিনেত্রীর উত্তরন সন্তোষজনক। শাড়ী নাটকে অভিনয়ে প্রশংসিত হয়েছিলেন,তিনিও ভীষন প্রতিশ্রুতিশীল। দর্শকরা তাঁর প্রতি প্রত্যাশা রাখছেন,তাঁর অভিনীত নাটকের মধ্যে মাংকি বিজনেস,সবার ই কিছু দু:খ থাকে,সব গল্প রুপকথা নয় অন্যতম।

৩. তাসনিয়া ফারিন : সম্প্রতি এই অভিনেত্রী নবীন থাকাকালীন ই বেশ আলোচনায় এসেছেন। এক্স গার্লফ্রেন্ড,আগুনের দিন শেষ হবে একদিন সহ বিভিন্ন নাটকে তার অভিনয়ে দর্শক রা সন্তুষ্ট হয়েছেন। নাটক নির্বাচন ও অভিনয়ে সচেতন থাকলে বেশ জনপ্রিয় হবেন।

*যারা আশা জাগিয়েছিলেন:
১. অর্চিতা স্পর্শিয়া : ‘উজান গাঙ্গের নাইয়া’ ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করে আলোচিত অভিনেত্রীর বেশ সংখ্যক জনপ্রিয় কাজ রয়েছে,তার মধ্যে চক্র,ইমপ্সিবল ফাইভ অন্যতম। তবে ব্যক্তিগত কারনে বিরতি নিয়েছিলেন। অভিনয়ে ফিরে আসলেও মনোযোগ এখন চলচ্চিত্রে।

২. অগ্নিলা : বিপ্রতীপ খ্যাত এই অভিনেত্রী কথাবন্ধু মিথিলা,লাল খাম বনাম নীল খাম,সাউন্ড অব সাইলেন্স নাটক করে তারুণ্যনির্ভর দর্শক প্রিয় হয়েছিলেন। তবে অভিনয়ে থিতু হন নি,নিয়মিত হলে আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী হতেন। তাঁর সর্বশেষ কাজ ‘তোমার আমার প্রেম’ জনপ্রিয় হয়েছিল।

৩. শবনম ফারিয়া : সমসাময়িকদের তুলনায় ভালো অভিনয় করে তিনি আলোচনায় এসেছিলেন,সিনেমা করেও প্রশংসিত হয়েছেন। তবে তিনি ম্লান হয়ে গেছেন। এখনো অভিনয়ে নিয়মিত,প্রত্যাশা করছি সচেতন হবেন। @18অলটাইম দৌড়ের উপর,প্রতীক্ষা,দোস্ত দুশমন,ফ্যামিলি ক্রাইসিস উল্লেখ্য কাজ।

৪. অর্ষা : সাম্প্রতিক কালে ‘এক হৃদয়হীনা’ টেলিফিল্মে অভিনয় করে সাড়া জাগিয়েছেন এই অভিনেত্রী। দর্শকদের আক্ষেপ কেন তিনি নিয়মিত অভিনয় করেন না,তবে তাকে নিয়েও অভিযোগ অনেক। যার কারনে তিনি এখনো সুপ্রতিষ্টিত হতে পারেন নি।

৫. বিন্দু : ‘লীলাবতী’ ধারাবাহিক নাটক করে অভিনেত্রী হিসেবে জনপ্রিয় হয়েছিলেন তিনি,তবে বিয়ে করে অভিনয় কে বিদায় জানিয়েছেন।

৬. সারিকা : মডেলিং এ জনপ্রিয়তা পাওয়া এই তারকার অভিনয় ছিল সন্তোষজনক। তবে ব্যক্তিগত কারনে হারিয়ে গিয়েছিলেন,সম্প্রতি ফিরেছেন ‘ডেইট’ নাটক দিয়ে।

৭. শখ : মডেলিং এর জনপ্রিয়তার সুবাদে অনেক নাটকেই অভিনয় করেছে,যদিও অভিনয়ে তিনি দূর্বল ছিলেন। এফ এন এফ,ফিফটি ফিফটি সহ বেশকিছু জনপ্রিয় কাজ রয়েছে,এখন অভিনয় থেকে দূরে সরে গেছেন।

৮. প্রভা : এই দশকের শুরুতে প্রতিশ্রুতিশীল অভিনেত্রী হিসেবে জায়গা করে নিয়েছিলেন তবে ব্যক্তিজীবনের এক ঝড়ে ছিটকে গিয়েছিলেন। অভিনয়ে ফিরে এলেও আগের মত আলোচিত হন নি। উল্লেখযোগ্য কাজ: রুপা,লিফলেট,সিকান্দার বক্স সিরিজ।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?

[wordpress_social_login]

Shares