Select Page

২ মাসে প্রদর্শনের অযোগ্য ১০ ছবি

২ মাসে প্রদর্শনের অযোগ্য ১০ ছবি

Sensor Boardসাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ সেন্সরবোর্ড বেশ কঠোর ভূমিকা পালন করছে। সেন্সর নীতিমালার ভঙ্গ করার কারণে প্রদর্শনের অযোগ্য ঘোষনা করা হয়েছে কিছু ছবিকে। আবার অশ্লীলতার অভিযোগে দুটি ছবি এবং সেন্সর বোর্ড কর্তনকৃত দৃশ্য জুড়ে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রতিযোগিতায় জমা দেয়ার অভিযোগে দু’টি ছবির সেন্সর সনদপত্র সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে। হিসেব করে দেখা গেছে গত দুই মাসে মোট দশটি ছবিকে প্রদর্শনের অযোগ্য ঘোষনা করেছে সেন্সরবোর্ড।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, যে ১০টি ছবিকে প্রদর্শনের অযোগ্য ঘোষণা করা হয়েছে সেগুলো হলো- এফ জাহাঙ্গীর পরিচালিত ‘অশান্ত মেয়ে’, আবুল হোসেন খোকন পরিচালিত ‘প্রেম যে করে সে জানে’, আকাশ আচার্য পরিচালিত ‘আকমল আলীর সংসার’, এ মুকুল নেত্রবাদী পরিচালিত ‘শাদি’, কালাম কায়সার পরিচালিত ‘ভালবাসতে মন লাগে’, জাহিদ হোসেন পরিচালিত ‘লীলামন্থন’, রকিবুল আলম রকিব পরিচালিত ‘নগর মাস্তান’, নজরুল ইসলাম খান পরিচালিত ‘রানা প্লাজা’, আজাদুর রহমান বাবু পরিচালিত ‘বাংলার ফাটাকেষ্ট’ এবং আহসান উল্লাহ মনি পরিচালিত ‘বাল্যবিবাহ নিষেধ’। এর মধ্যে কয়েকটি ছবি আপিল করেছিল। কিন্তু আপিল বোর্ড সেন্সর বোর্ডের সিদ্ধান্ত বহাল রাখেন।

এ সকল ছবির মধ্যে রানা প্লাজা নির্মানের শুরু থেকেই আলোচিত ছবি। গার্মেন্টস কর্মী রেশমা চরিত্রে অভিনয় করে পরীমণিে সবার নজর কাড়েন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর অফিসের নির্দেশে ছবিটিকে প্রদর্শনের অযোগ্য ঘোষনা করে সেন্সরবোর্ড। এছাড়া মান্না অভিনীত লীলা মন্থন মুক্তি পাচ্ছে এমন খবরে সাড়া পড়ে গেলেও আটকে গেছে ছবিটি। জায়েদ খানের নগর মাস্তান ছবিটিও আটকে দেয়া হয়েছে অবাস্তব দৃশ্য সংযোজনের জন্য।

চলচ্চিত্রের উন্নয়নে সেন্সরবোর্ড সবসময় কার্যকর ভূমিকা পালন করবে বলে চলচ্চিত্রবোদ্ধারা মনে করছেন।

সূত্র: মানবজমিন


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?

[wordpress_social_login]

Shares