Select Page

অনুমতি ছাড়াই বাংলাদেশে অভিনয়, পরমব্রতর নামে জিডি

অনুমতি ছাড়াই বাংলাদেশে অভিনয়, পরমব্রতর নামে জিডি

কলকাতার পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় নিয়ম ভেঙে বাংলাদেশের নাটকে অভিনয় করছেন। এই অভিযোগ এনে টিভিকেন্দ্রিক ১৩টি সংগঠনের জোট ‘এফটিপিও’-এর সদস্য সচিব নির্মাতা-অভিনেতা গাজী রাকায়েত বনানী থানায় জিডি (সাধারণ ডায়েরি) করেছেন।

বুধবার দুপুরে দায়ের করা ওই জিডিতে গাজী রাকায়েত একটি পত্রিকায় প্রকাশিত পরমব্রত অভিনীত নাটকের সংবাদকে রেফারেন্স হিসেবে তুলে ধরেন। সেখানে উল্লেখ করেন, ভারতীয় অভিনেতা পরমব্রত সরকারি অনুমোদন ও দেশের বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে কোনো রকম আলোচনা ছাড়াই বাংলাদেশের টিভি নাটকে নিয়মিত কাজ করে চলেছেন। যা মেনে নেওয়া যায় না।

তিনি পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘এটা পরমব্রতর বিরুদ্ধে জিডি নয়, অনিয়মের বিরুদ্ধে জিডি। আমাদের এখানে বিদেশিরা ট্যুরিস্ট ভিসায় এসে ওয়ার্ক পারমিট না নিয়ে কাজ করেন। এটা আমরা চলতে দিতে পারি না। তাই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। সবাই যেন এ ব্যাপারে সচেতন হন। নিয়ম মেনে কাজ হলে তাতে আমাদের কোনো অসুবিধা নাই। আমরা চাই তারাও আমাদের নাটকে কাজ করুক। যে প্রডাকশন হাউজ এটা নির্মাণ করছেন আমরা তাদেরও বিষয়টি জানিয়েছি।’

সত্যজিৎ রায়ের সৃষ্টি ফেলুদা সিরিজের স্বত্বাধিকার তাঁর পুত্র সন্দীপ রায়। সম্প্রতি বাংলাদেশের টেলিভিশন দশর্কদের জন্য ফেলুদা গল্পের মেগাসিরিজ তৈরির জন্য সন্দীপ রায় ফেলুদা গল্পের স্বত্ব দিয়েছেন। বাংলাদেশের শাহরিয়ার শাকিল সেই গল্প নিয়ে তৈরি করছেন “বাংলাদেশে ফেলুদা”। সেখানেই ফেলুদা চরিত্রে অভিনয় করছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়।

বাংলাদেশে ফেলুদার ধারাবাহিকটি প্রযোজনা করছে বাংলাদেশের ক্যান্ডি প্রোডাকসন্স লিমিটেডের জিয়া উদ্দিন আদিল ও শাহরিয়ার শাকিল এবং সংস্থার ক্রিয়েটিভ হেড গাউসুল আলম শাওন। ফেলুদার গল্পগুলো নিয়ে চিত্রনাট্য তৈরি করবেন কলকাতার পদ্মনাভ দাশগুপ্ত এবং গাউসুল আলম শাওন।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

Shares