Select Page

আইসক্রিমের গরম গরম প্রতিক্রিয়া

আইসক্রিমের গরম গরম প্রতিক্রিয়া

icecream

রেদওয়ান রনির দ্বিতীয় সিনেমা ‘আইসক্রিম’র প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হল বৃহস্পতিবার। বসুন্ধরা সিটির সিনেপ্লেক্সের নির্ধারিত হলটি ছিল দর্শকপূর্ণ।

সিনেমা দেখার পর অনেকে ফেসবুকে মন্তব্য দিয়েছেন। সেখান থেকে দেখে নিন চার মন্তব্য—

আবদুল্লাহ আল মানির দীর্ঘ স্ট্যাটাসের একটি অংশ, ‘কাল রিলিজ পাচ্ছে সবার জন্য “আইসক্রিম” মুভিটি। যদি আমার উপর কারো একটু বিশ্বাস থাকে তাহলে বলব বেশ ভালো মুভি হয়েছে, এমন বাস্তবতা ফুটিয়ে তোলাই সব থেকে বড় কথা। দারুণ মেকিং। নতুন তিনজন জাস্ট ফাটিয়ে দিয়েছে। সো ন্যাচারাল। মুভির একটি ডায়লগ আছে “প্রতিটি মানুষের মাঝে ২ টি মানুষ বাস করে, একটি ভালো মানুষ একটি খারাপ মানুষ। ভালো মানুষের গুনে খারাপ মানুষ ভালো হয়ে যায়।”

আমি ঠিক এমন ভাবেই বলতে চাই ভালো মুভির ছোঁয়ায় খারাপ মুভিও ভালো হয়ে যাবে। আর তেমন একটি ভালো মুভি হচ্ছে আইসক্রিম।’

তীর্থক আহসান রুবেল লিখেছেন, “সত্যিই বলছি… গত কয়েক বছরের বাংলাদেশী সিনেমার যত প্রশংসা করেছি… সবগুলো একসাথে ‘আইসক্রিম’কে দিলাম। রেদোয়ান রনি হ্যাটস অফ।”

নাফিস মুনতাসির রবিন দীর্ঘ স্ট্যাটাসের একাংশে লিখেছেন, “এমন গরমের সময় আইসক্রিম শব্দটা স্বস্ত্বিদায়ক হলেও পরিচালক এখানে বেশ কিছু ঝুঁকি নিয়ে রেখেছিলেন। একদম পিওর রোমান্টিক গল্প আর তার সাথে তিনজন নিউকামার। ঝুকি ছিলো। একটু এদিক ওদিক হলেই গলে যাওয়ার ঝুঁকি। তিনজন তরুণ-তরুণীর মাঝে সম্পর্কের নানা বাঁক নিয়ে মুভির গল্প। কাটায় কাটায় ২ ঘন্টার মুভি শেষ করেই উঠতে হলো। শুরু থেকেই বেশ স্মুথ গতিতে চলতে থাকে সিনেমার গল্প। নিউকামার হলেও তিনজনেরই অভিনয় পাশমার্ক পাবে। পরিচালক হিসেবে রনির যোগ্যতা নিয়ে কথা বলবো না। অযথা এখানে সেখানে গান বা অপ্রয়োজনীয় দৃশ্য জুড়ে না দিয়ে মুভিটাকে ২ ঘন্টার মাঝে রেখেছেন এজন্য সাধুবাদ পাবেন। সংলাপনির্ভর একটা মুভি বেশ সাবধানে বানাতে হয়। স্মার্ট স্ক্রিপ্ট এবং ডিরেকশনের জন্য সেটা অনেকাংশে উতরে গেছে। চোখের জন্য ক্যামেরার কাজগুলো বেশ আরামদায়ক ছিলো। ছিমছাম আর ঝকঝকে।”

শেখ সাখাওয়াত সৌরভের স্ট্যাটাসের একটা অংশ এমন, ‘যদিও বর্তমান প্রজন্মের সবার কাছে গল্পটা পরিচিত মনে হতে পারে, মনে হতে পারে “আরে এটা তো আমারই গল্প!” ইদানিং যা হচ্ছে সেটাই দারুণভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে মুভিটাতে। লিড কাস্টে ছিল নতুন তিনজন অ্যাক্টর অ্যাক্ট্রেস, কিন্তু একটা বারের জন্যও এদের নতুন মনে হয়নি। অনেকদিন পর বাংলা চলচ্চিত্র ভাল একজন অভিনেত্রী পেল, নাজিফা মেয়েটা খুবই ভাল পারফর্ম করেছে। আর হিরো দুইজন থাকায় মনে হলো হিরোদের জন্যেই সুবিধা হয়েছে। একজন আরেকজনের সাথে পাল্লা দিয়ে পারফর্ম করেছে। কেন্দ্রীয় চরিত্রে ঠান্ডা শান্ত ক্যারেক্টারের উদয়কে সব দর্শকের ভাল্লাগবে, কিন্তু আমার পারসোনালি ভিলেন পছন্দ বলে রাজকে হয়তো বেশি ভাল লেগেছে। প্লে বয় ক্যারেক্টারে ফাটিয়ে অভিনয় করেছে ছেলেটা। নতুন তিনজনই অনেক ভাল করেছে। সবচেয়ে ভাল লেগেছে নতুন বলে এদের কথা বলায় কোন রকম জড়তা ছিলই না, বরং তিনজনেরই ভয়েস ডেলিভারি ছিল প্রধান প্লাস পয়েন্ট। কাল মুভিটা সারাদেশে রিলিজ পাচ্ছে, আশা করি যারা দেখবে সবারই ভাল্লাগবে। মুভির পজেটিভ দিক অনেক। অনেক বেশি ভাল লাগার মধ্যে ছিল মুভির চোখ জুড়ানো সেট ডিজাইন, ডায়ালোগ, সবার অভিনয় আর কস্টিউম। নতুন একজন কম্পোজার মুভিটার দারুণ ব্যাকগ্রাউন্ড স্কোর করেছে। সাথে ছিল অর্নব, চিরকুট, তাহসান, মিনার, মমতাজের চমৎকার কিছু গান।”

সারাদেশের ২২টি হলে শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে ‘আইসক্রিম’। প্রধান তিন চরিত্রে আছেন উদয়, রাজ ও তুশি।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?

[wordpress_social_login]

Shares