Select Page

আশাবাদী ফেরদৌস

আশাবাদী ফেরদৌস

2_17066কিছু আশা কিছু ভালোবাসা‘ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অনেকদিন পর বড়পর্দায় আসছেন জনপ্রিয় নায়ক ফেরদৌস। তার সাথে এই ছবিতে আছেন দেশের দুই শীর্ষ নায়িকা মৌসুমীশাবনূর। তাদেরও দীর্ঘদিন পর পর্দায় দেখতে পাবে দর্শক। সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমে ফেরদৌস রোমান্টিক ও ড্রামা ঘরানার ছবিটি নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তিন তারকা একই সাথে অভিনয় প্রসঙ্গে নিজের একটি লেখায় বলেন, ‘এর আগে ২০০৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত আবুল কালাম আজাদের ‘বেয়াইন সাব’ ও ২০১০ সালে মুক্তি পাওয়া আমজাদ হোসেনের ‘গোলাপী এখন বিলেতে’ ছবি দুটিতে আমরা তিনজন একসঙ্গে অভিনয় করেছি। এগুলো দর্শক বেশ ভালোভাবে গ্রহণ করেছেন। এই তালিকায় যোগ হতে যাচ্ছে ‘কিছু আশা কিছু ভালোবাসা’।

একই লেখায় তিনি মৌসুমী ও শাবনূর প্রসঙ্গে বলেন, ‘এই ছবিতে দু’জনই সাবলীল অভিনয় করেছেন। মৌসুমী দেখতে এখনও দুর্দান্ত, অভিনয়েও। শাবনূরও তার সর্বোচ্চ অভিনয় করেছেন। তবে তাকে একটু গোছানো হতে হয়েছে। মৌসুমী হয়তো পর্দায় কম আসছেন, কিন্তু তার সৌন্দর্য ধরে রেখেছেন। অন্যদিকে শাবনূর তো অভিনয় প্রায় ছেড়েই দিয়েছেন! তাছাড়া নিজের চেহারার প্রতি মনোযোগ হারিয়ে ফেলেছেন তিনি। এ নিয়েও তার সঙ্গে কথা হয়েছে। বলেছি যে, তার এই উদাসীনতা চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য খুব ক্ষতিকর, তার জন্যও। শাবনূরকে বলেছি, নিজেকে তৈরি করে আবার ফিরে এসো। নিজেকে আবার প্রমাণ করো। আমি জানি, তিনি চাইলে সব পারবেন। মৌসুমীকেও প্রায়ই বলি, টিভিতে কেন তোমাকে দেখা যায়? নাটক কেন করো? এটা আমার পছন্দ নয়। ও হ্যাঁ-হুঁ করে’।

এছাড়া অন্য একটি সংবাদ মাধ্যমে দেয়া সাক্ষাতকারে তাকে প্রশ্ন করা হয়, ছবিটি নিয়ে তিনি কতটা আশাবাদী? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এর দর্শক গ্রহনযোগ্যতার ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। কারণ এ ছবির গল্প হেঁটেছে গতানুগতিকতার বিপরীতে। আরেকটি বিষয় হলো এই প্রথম একই চলচ্চিত্রে মৌসুমী ও শাবনূরের সঙ্গে রোমান্টিক চরিত্রে অভিনয় করেছি। এর আগে ‘গোলাপী এখন বিলেতে’ চলচ্চিত্রে এই দুজনের সঙ্গে কাজ করলেও আমি ছিলাম শুধু একজনের বিপরীতে। তাই একই চলচ্চিত্রে দুই শীর্ষ নায়িকার সঙ্গে আমার পর্দা রোমান্স মন ভরে উপভোগ করবে দর্শক। তা ছাড়া মানিকের নির্দেশনাও অসাধারণ হয়েছে। গানগুলোও চমৎকার। সব মিলিয়ে মনে রাখার মতো একটি চলচ্চিত্র হয়েছে ‘কিছু আশা কিছু ভালোবাসা’। এখানে আরেকটি বিষয় উল্লেখ করার মতো , এটি হচ্ছে এ দুই নায়িকার বিপরীতে আর হয়তো একসঙ্গে একই চলচ্চিত্রে কাজ করা হবে না আমার। কারণ শাবনূর অভিনয় থেকে বিরতিতে যাচ্ছেন। তাই শেষবারের মতো আমাদের তিনজনকে একসঙ্গে বড় পর্দায় দেখতে দর্শক অবশ্যই প্রেক্ষগৃহে যাবে বলে আমার বিশ্বাস। তাছাড়া গল্পে নতুনত্বতো রয়েছেই”।

সূত্র: সমকাল বাংলাদেশ প্রতিদিন


মন্তব্য করুন

Shares