Select Page

চিরঘুমে কাজী আজিজ আহমেদ

চিরঘুমে কাজী আজিজ আহমেদ

গীতিকবি, চিত্রনাট্যকার ও চলচ্চিত্র নির্মাতা কাজী আজিজ আহমেদ আর নেই। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বার্ধক্যজনিত বিবিধ অসুখে ভুগছিলেন তিনি। অবশেষে আজ (৩০ জানুয়ারি) সকালে শেরপুরে তার বড় মেয়ে কাজী বন্যা আহমেদের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন চলচ্চিত্রের এই নিবেদিত প্রাণ (ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।

দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর গেণ্ডারিয়ায় বসবাস করতেন কাজী আজিজ। তার মেয়ের জামাতা এ কে এম শহীদুল আলম তিতু জানান, বেশ কিছুদিন আগে বড় মেয়ে কাজী বন্যা আহমেদের শেরপুরের বাড়িতে বেড়াতে যান বর্ষীয়ান এই চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব। সেখানে বার্ধক্যজনিত কারণে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

১৯৩৯ সালে জন্ম নিয়েছিলেন চিত্রনাট্যকার, কাহিনিকার, সংলাপ রচয়িতা এবং চিত্র পরিচালক কাজী আজিজ আহমেদ।

দীর্ঘদিন ধরেই নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি । ১৯৬২ সালে ‘দুই দিগন্ত’ ছবিতে পরিচালক ওবায়দুল হকের সহকারী হিসাবে চলচ্চিত্রাঙ্গনে যাত্রা শুরু করেন তিনি।

সহকারী হিসেবে চলচ্চিত্র জীবন শুরু করে পরবর্তীতে কাহিনিকার, সংলাপ রচয়িতা, চিত্রনাট্যকার এবং চিত্রপরিচালনার কাজ করেছেন।

‘উলঝান’, ‘যে আগুনে পুড়ি’, ‘ক খ গ ঘ ঙ’, ‘এরাও মানুষ’, ‘ওরা ১১ জন’, ‘সংগ্রাম’, ‘গুনাই বিবি’, ‘অনন্ত প্রেম’, ‘বাজিমাত’ ইত্যাদি সিনেমার কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখে নন্দিত হয়েছেন। লিখেছেন বেশ কিছু কালজয়ী গান।

১৯৭০ সালে নায়করাজ রাজ্জাক অভিনীত ‘যে আগুনে পুড়ি’ চলচ্চিত্রের ‘চোখ যে মনের কথা বলে’ গানটি লিখে জনমানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছিলেন কাজী আজিজ। ১৯৬৮ সালে রচিত গানটির সুর ও কণ্ঠ দিয়েছিলেন খন্দকার নুরুল আলম।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?

[wordpress_social_login]

Shares