Select Page

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (১৯৯৯-২০০১)

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (১৯৯৯-২০০১)

১৯৯৯ : ব্রিটিশ ভারত ভাগ নিয়ে বাংলাদেশের একমাত্র চলচ্চিত্র তানভীর মোকাম্মেলের ‘ চিত্রা নদীর পাড়ে’ ও হুমায়ূন আহমেদের ‘ শ্রাবণ মেঘের দিন’ যৌথভাবে সর্বোচ্চ ৭ টি শাখায় জাতীয় পুরস্কার অর্জন করে। ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ ৭ টি শাখায় পুরস্কৃত হলেও হুমায়ূন আহমেদ পুরস্কৃত হননি। আফসানা মিমি,শাওনের সঙ্গে প্রতিদন্দ্বিতা করে প্রথম সিনেমায় সিমলা জাতীয় পুরস্কার জিতেন।অন্যদিকে মান্নার সাথে প্রতিদন্দ্বিতা করে জনপ্রিয় টিভি অভিনেতা জাহিদ হাসান প্রথম ও একমাত্র জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন।এই বছর সেরা গায়িকা, শিশুশিল্পীসহ কয়েকটি শাখায় পুরস্কার দেওয়া হয়নি। এই বছর ১৮টি শাখায় পুরস্কার প্রদান করা হয়-

১. সেরা চলচ্চিত্র- চিত্রা নদীর পাড়ে
২. সেরা পরিচালক- তানভীর মোকাম্মেল (চিত্রা নদীর পাড়ে)
৩. সেরা কাহিনীকার- তানভীর মোকাম্মেল (চিত্রা নদীর পাড়ে)
৪. সেরা চিত্রনাট্যকার- কাজী হায়াত (আম্মাজান)
৫. সেরা সংলাপ রচয়িতা- তানভীর মোকাম্মেল (চিত্রা নদীর পাড়ে)
৬. সেরা সংগীত পরিচালক- মকসুদ জামিল মিন্টু (শ্রাবন মেঘের দিন)
৭. সেরা অভিনেতা- জাহিদ হাসান (শ্রাবণ মেঘের দিন)
৮. সেরা অভিনেত্রী- সিমলা (ম্যাডাম ফুলি)
৯. সেরা সহ অভিনেতা- গোলাম মুস্তফা (শ্রাবণ মেঘের দিন)
১০. সেরা সহ অভিনেত্রী- রওশন জামিল (চিত্রা নদীর পাড়ে)
১১. সেরা কৌতুক অভিনেতা- এটিএম শামসুজ্জামান (ম্যাডাম ফুলি)
১২. সেরা গীতিকার- রশীদউদ্দিন আহমেদ (শ্রাবন মেঘের দিন)
১৩. সেরা সুরকার- আলম খান (বাঘের থাবা)
১৪. সেরা গায়ক- সুবীর নন্দী (শ্রাবণ মেঘের দিন)
১৫. সেরা চিত্রগ্রাহক- মাহফুজুর রহমান খান (শ্রাবণ মেঘের দিন)
১৬. সেরা শিল্প নির্দেশক- উত্তম গুহ (চিত্রা নদীর পাড়ে)
১৭. সেরা শব্দগ্রাহক- মফিজুল হক (শ্রাবণ মেঘের দিন)
১৮. সেরা রুপসজ্জাকর- দীপক কুমার সুর (চিত্রা নদীর পাড়ে)

২০০০ : সেলিম আল দীনের মঞ্চ নাটক অবলম্বনে আবু সাইয়িদের ‘কিত্তনখোলা’ সর্বোচ্চ ৯টি শাখায় পুরস্কার অর্জন করে।জনপ্রিয়। রিয়াজ প্রথমবারের মতো জাতীয় পুরস্কার পান। তাকে প্রতিদন্দ্বিতা করতে হয়েছিল মান্নার সাথে। ‘দুই দুয়ারী’র জন্য সেরা গায়ক বিভাগে আগুনের পুরস্কার না পাওয়াটা হতাশার ছিল। এই বছর সেরা শিশুশিল্পী শাখায় পুরস্কার দেয়া হয়নি। মোট ১৭টি শাখায় পুরস্কার প্রদান করা হয়-

১. সেরা চলচ্চিত্র- কিত্তনখোলা
২. সেরা পরিচালক- আবু সাইয়িদ (কিত্তনখোলা)
৩. সেরা কাহিনীকার- সেলিম আল দীন (কিত্তনখোলা)
৪. সেরা চিত্রনাট্যকার- আবু সাইয়িদ ও নুরুল আলম আতিক (কিত্তনখোলা)
৫. সেরা সংলাপ রচয়িতা- আবু সাইয়িদ ও সেলিম আল দীন (কিত্তনখোলা)
৬. সেরা অভিনেতা- রিয়াজ (দুই দুয়ারী)
৭. সেরা অভিনেত্রী- চম্পা (উত্তরের খেপ)
৮. সেরা সহ অভিনেতা- রাজিব (বিদ্রোহ চারিদিকে)
৯. সেরা সহ অভিনেত্রী- তমালিকা কর্মকার (কিত্তনখোলা)
১০. সেরা সংগীত পরিচালক – আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল (আজ গায়ে হলুদ)
১১. সেরা গায়ক- এন্ড্রু কিশোর (আজ গায়ে হলুদ)
১২. সেরা গায়িকা- সাবিনা ইয়াসমিন (দুই দুয়ারী)
১৩. সেরা চিত্রগ্রাহক- মাহফুজুর রহমান খান (দুই দুয়ারী)
১৪. সেরা সম্পাদক – সুজন মাহমুদ (কিত্তনখোলা)
১৫. সেরা শিল্প নির্দেশক- তরুন ঘোষ (কিত্তনখোলা)
১৬. সেরা শব্দগ্রাহক – নাসিম রেজা শাহ (কিত্তনখোলা)
১৭. সেরা রুপসজ্জাকর- খলিলুর রহমান (যোদ্ধা)

২০০১ : সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ র উপন্যাস অবলম্বনে তানভীর মোকাম্মেলের ‘লালসালু’ সর্বোচ্চ ৮টি শাখায় পুরস্কার অর্জন করে। মৌসুমী প্রথমবারের মতো ও শক্তিমান অভিনেতা রাইসুল ইসলাম আসাদ চতুর্থবারের মতো জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন।এই বছর প্রথমবারের মত খল চরিত্রে পুরস্কার দেয়া হয়। নৃত্যশিল্পী-টিভি অভিনেত্রী চাঁদনী ও গায়ক মনির খান প্রথম জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন। তবে ‘মেঘলা আকাশ’র জন্য ফেরদৌসী মজুমদারের পুরস্কার না পাওয়া হতাশাজনক ছিল।সংগীতজ্ঞ সত্য সাহা শেষ জাতীয় পুরস্কার অর্জন করেন। এই বছর সেরা সহ অভিনেতা শাখায় পুরস্কার দেয়া হয়নি। মোট ২১ টি শাখায় পুরস্কার প্রদান করা হয়-

১. সেরা চলচ্চিত্র – লালসালু
২. সেরা পরিচালক – তানভীর মোকাম্মেল (লালসালু)
৩. সেরা কাহিনীকার – সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ (লালসালু)
৪. সেরা চিত্রনাট্যকার- নারগিস আক্তার (মেঘলা আকাশ)
৫. সেরা সংলাপ রচয়িতা- তানভীর মোকাম্মেল(লালসালু)
৬. সেরা সংগীত পরিচালক – আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল (প্রেমের তাজমহল)
৭. সেরা নৃত্য পরিচালক -আমির হোসেন বাবু(মেঘলা আকাশ)
৮. সেরা অভিনেতা- রাইসুল ইসলাম আসাদ(লালসালু)
৯. সেরা অভিনেত্রী- মৌসুমী (মেঘলা আকাশ)
১০. সেরা সহ অভিনেত্রী – চাঁদনী (লালসালু)
১১. সেরা খল অভিনেতা – শহিদুল আলম সাচ্চু (মেঘলা আকাশ)
১২. সেরা কৌতুক অভিনেতা- এটিএম শামসুজ্জামান (চুড়িওয়ালা)
১৩. সেরা শিশুশিল্পী- শোভন,শিপু,টুইঙ্কেল,শান্তুনু (বিচ্ছু বাহিনী)
১৪. সেরা গীতিকার- গাজী মাজহারুল আনোয়ার (চুড়িওয়ালা)
১৫. সেরা সুরকার -সত্য সাহা(চুড়িওয়ালা)
১৬. সেরা গায়ক- মনির খান (প্রেমের তাজমহল)
১৭. সেরা গায়িকা- কনকচাঁপা (প্রেমের তাজমহল)
১৮. সেরা চিত্রগ্রাহক- আনোয়ার হোসেন (লালসালু)
১৯. সেরা সম্পাদক (যৌথভাবে)- মুজিবুর রহমান দুলু (মেঘলা আকাশ) ও আবুল খায়ের (শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ)
২০. সেরা শিল্প নির্দেশক- মহিউদ্দিন ফারুক (মেঘলা আকাশ)
২১ .সেরা শব্দগ্রাহক- রতন পাল (লালসালু)


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

স্পটলাইট

Saltamami 2018 20 upcomming films of 2019
Coming Soon
ঈদুল আজহায় কোন সিনেমাটি দেখছেন?
ঈদুল আজহায় কোন সিনেমাটি দেখছেন?
ঈদুল আজহায় কোন সিনেমাটি দেখছেন?

[wordpress_social_login]

Shares