Select Page

দর্শক প্রতিক্রিয়ায় ‘এইতো প্রেম’

দর্শক প্রতিক্রিয়ায় ‘এইতো প্রেম’

2

শুক্রবার মুক্তি পেয়েছে সোহেল আরমান পরিচালিত ‌‘এইতো প্রেম’। শাকিববিন্দু অভিনীত চলচ্চিত্রটির কাজ শুরু হয়েছিল ৪ বছর আগে। তারপরও দেখা গেছে ওই চলচ্চিত্রটি নিয়ে দর্শকদের আগ্রহ রয়েছে। নিচে কিছু দর্শকের ফেসবুক মতামত শেয়ার করা হলো—

মুভি বস লিখেছেন, আমি যদি ভুল না করে থাকি তবে, বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ছবি প্রায় শতাধিক হলে হাউজফুল যাচ্ছে। পরিচালক সোহেল আরমান চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন কিভাবে শিল্প আর বাণিজ্যকে এক করতে হয়। আর বর্তমান বাণিজ্যিক ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খান বুঝিয়ে দিয়েছেন ঢাকাই সিনেমায় তার সমতূল্য কেউ নেই!

তিনি আরো লিখেন, ‌‘এইতো প্রেম’ ছবির মাধ্যমে একটা কথা পরিষ্কার, ‘উন্নত গল্প, জনপ্রিয়(সঠিক) শিল্পী নির্বাচন এবং গল্পের সাথে মানানসই গান এই তিনটি জিনিস একত্রে করতে পারলে সেটা মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সিনেমা হোক আর আর্টফিল্মই হোক, বাণিজ্যিক সিনেমার মতই দাপুটে ব্যবসা করে যাবে।’ প্রথম সিনেমায় নিজের জাত চিনিয়েছেন আমজাদ হোসেন তনয়।

জহিরুল ইসলাম পাপ্পু লিখেন, অসাধারণ একটি গল্প, মানসম্মত সংলাপ, আনকমন লোকেশন, যা এর আগে কোনো সিনেমাতে দেখতে পায়নি, অসাধারণ ব্যাকগ্রাউন্ড সাউন্ড, শ্রুতিমধুর গান, সবশেষে সুন্দর পরিচালনা। প্রথম ছবি হিসেবে প্রশংসা পেতেই পারেন সোহেল আরমান। আর শাকিব খানের অভিনয়ের কথা নতুন করে আর কি বলব। শেষ ২০ মিনিটে তিনি যা দেখালেন, একেবারে দর্শকদের কাঁদিয়ে ছেড়েছেন।। বিন্দুর অভিনয়ও প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য।

প্রজন্ম সানু লিখেন, গতকাল সন্ধার শোতে দেখলাম সোহেল আরমান পরিচালিত শাকিব-বিন্দু অভিনীত এইতো প্রেম সিনেমাটা মিরপুরের সনি সিনেমা হলে হাউজফুল দর্শক ছিল। ডিসির টিকেট কাউন্টারে না থাকায় বাধ্য হয়ে ৩০ টাকার টিকেট ব্লাকে ১২০ টাকা দিয়ে কিনতে হলো।

তিনি আরো লিখেন, সনিতে যাওয়ার সময় পূরবী সিনেমা হলের সামনে দেখলাম ১৫/২০ জনের মতো দাড়িয়ে আছে, সেখানে ডন ২ চলছে। ওদের ১০০ কোটি টাকার সিনেমা আমাদের ১ কোটি টাকার বাজেটে বানানো সিনেমার কাছে ধরাশায়ী ভাবতেই ভালো লাগছে।

মহেশ্বর রায় রুদ্র লিখেছেন, এতদিন টিভিতে শাকিবের ন্যাতা ন্যাতা প্রেমকাহিনী দেখে আমার বিশ্বাস জন্মে গেছিল যে আর যাই হোক শাকিবের দ্বারা ভাল ছবি অন্তত হবে না। কিন্তু না, এই ছবিতে শাকিবের কাকতাড়ুয়া সেজে প্রবেশের দৃশ্য আর তারপরেই হাবিবের ‘আমি তোমার মনের ভেতর’ গানটা দেখে নড়েচড়ে বসলাম।

তিনি আরো লিখেন, শাকিবের অপ্রত্যাশিত সাবলীল অভিনয়, বিন্দুর হাসি, চারপাশের চরিত্রগুলোর চমৎকার সংলাপ, আর ভাল চিত্রায়নে তখন শুধুই মুগ্ধ হওয়ার পালা। তবে পরিচালক মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন শেষের বিশ মিনিটে। অসাধারণ সেইসব দৃশ্য, ডায়ালগ, আর চিত্রায়ন। ভাবাই যায় না। পুরোটাই হতভম্ব করে রাখার মত সব আয়োজন।


মন্তব্য করুন

Shares