Select Page

‘নবাব’ নিয়ে সেন্সর বোর্ডের ১১ আপত্তি

‘নবাব’ নিয়ে সেন্সর বোর্ডের ১১ আপত্তি

নবাব এলএল.বি’র মোট ১১টি দৃশ্য নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড। যা সচরাচর ঘটে না।

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে সেন্সর বোর্ডের সচিব মো. জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেন। বাংলা ট্রিবিউনকে তিনি বলেন, ‘১১টি দৃশ্য নিয়ে আমাদের আপত্তির বিষয়টি পরিচালক-প্রযোজককে জানানো হয়েছে। দৃশ্যগুলো বাদ দিয়ে ছবিটি আবারও সেন্সরে জমা দেওয়ার জন্য চিঠি দিয়েছি। না হলে এই ছবিটিকে কোনোভাবেই সেন্সর ছাড়পত্র দেওয়া সম্ভব নয়।’

এদিকে সেন্সর বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তের জবাবে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন ছবির পরিচালক অনন্য মামুন। তিনি এ ছবির একটি দৃশ্যের দায়ে এরইমধ্যে জেলও খেটেছেন, রয়েছেন জামিনে।

অন্যদিকে সেন্সর বোর্ড থেকে দেওয়া ১১টি আপত্তির মধ্যে শাকিব খানের কণ্ঠে একটি সংলাপ হলো এমন- ‘নারী ধর্ষণ মানে স্বাধীনতাকে হত্যা’। এখানে কেন আপত্তি তোলা হলো, সেই উত্তর খুঁজে পাচ্ছেন না নির্মাতা।

অনন্য মামুন বলেন, ‘‘পুলিশের সেই দৃশ্যের জন্য আমি আবারও ক্ষমা চাইছি। সেটি হয়তো ঠিক ছিল না। কিন্তু ‘নারী ধর্ষণ মানে স্বাধীনতাকে হত্যা’- এই সংলাপটিতেও উনারা আপত্তি করেছেন! এটাই মেনে নিতে কষ্ট হচ্ছে। এই সংলাপটির জন্য আমি শতবার জেলে যেতে চাই।’’

মামুন জানান, সেন্সর বোর্ডের আপত্তির সূত্র ধরে তিনি ১১টি দৃশ্যে পরিবর্তন আনবেন। এবং সেন্সর ছাড়পত্র নিয়ে ছবিটিকে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেবেন শিগগিরই। কারণ, এছাড়া আর কোনও উপায় নেই তার কাছে। যদিও তিনি মনে করেন, দৃশ্যগুলো ফেলে দেওয়ার ফলে ছবির ধারাবাহিকতায় ছন্দপতন ঘটবে।

১৬ ডিসেম্বর ‘নবাব এলএল.বি’ আই থিয়েটার অ্যাপে মুক্তি পায়। ছবিটির একটি দৃশ্যে পুলিশকে ‘হেয়’ করার অভিযোগে ২৪ ডিসেম্বর রাতে গ্রেফতার করা হয় এর পরিচালক অনন্য মামুন ও অভিনেতা শাহীন মৃধাকে। পুলিশের করা পর্নোগ্রাফি মামলায় দুজনকেই কারাগারে পাঠানো হয়।

১১ জানুয়ারি দুজনকেই জামিন দেওয়া হয়। মূলত জামিনের পরই ছবিটি সেন্সরের জন্য জমা পড়ে। ধারণা করা হচ্ছে, ছবিটি থেকে আপত্তিকর বিষয়গুলো ফেলে দেওয়ার শর্তেই জামিন পান দুজনে।

শাকিব খান অভিনীত ‘নবাব এলএল.বি’ ছবির অন্যান্য চরিত্রে আরও আছেন মাহিয়া মাহি, অর্চিতা স্পর্শিয়া প্রমুখ।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Shares