Select Page

নয় মাস পর ঢাকায় শাকিব খান

নয় মাস পর ঢাকায় শাকিব খান

স্থায়ী হওয়ার প্রক্রিয়া হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে ৯ মাস অবস্থানের পর দেশে ফিরলেন শাকিব খান। বুধবার (১৭ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রাখেন তিনি। এ সময় শাকিবকে বরণ করতে হাজার হাজার অনুসারী জড়ো হয়।

খুলনা, যশোর, ভোলা, কিশোরগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, চাঁদপুর, সিলেট, হবিগঞ্জ, চিটাগং, দিনাজপুর, গাজীপুরসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভক্তরা ফুল ও ব্যানার নিয়ে শাকিবকে বরণ করে নেয়।

এ সময় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন শাকিব খান; বলেন, ‘যখন যুক্তরাষ্ট্রে ছিলাম, তখন ভাবছিলাম দেশে কখন যাব, কখন যাব। যখন ফ্লাইটে ছিলাম, তখন একটু পরপর জিজ্ঞাসা করেছি, কখন ল্যান্ড করব। এখন দেশের মাটিতে পা রেখেছি। আমাকে পেয়ে ভক্তরা যেমন উত্তেজিত, তেমনি আমিও সেই একই উত্তেজনা আমার মধ্যেই কাজ করছে।’

বেলা আড়াইটার দিকে এয়ারপোর্ট থেকে সরাসরি গুলশানের বাসায় যান শাকিব খান।

আগত ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের উদ্দেশে শাকিব খান আরও বলেন, ‘আমি সবার কাছে কৃতজ্ঞ। আপনারা সব সময় আমাকে ভালোবাসেন। এত ভালোবাসা দেন সব সময়, এটা আমার কাছে অমূল্য সম্পদ। আপনারা সবাই যে আমাকে মিস করেছেন, এত ভালোবেসেছেন, সত্যই আমি স্পিচলেস। আমিও দারুণ খুশি।’

এ সময় সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন তিনি। এক সাংবাদিক জানতে চান, ভক্তদের কী সুখবর দেবেন? শাকিব বলেন, ‘ভক্তদের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ। তাদের জন্য ভালো স্পেশাল কাজ দিয়ে সুখবর দেব। তবে ভালো ভালো নিউজ সবার জন্য ওয়েট করছে। এটুকু বলব, সামনে অনেক ভালো কিছু অপেক্ষা করছে। আর আমি যুক্তরাষ্ট্রে কাজে ছিলাম, এখনো কাজেই আছি।’

তিনি বলেন, দেশে ও বিদেশে মিলে অনেকগুলো সিনেমার সিরিয়াল তৈরি হয়েছে। কোনটা কীভাবে শুরু করবো সবাই ধীরে ধীরে জানতে পারবে। তবে যা হবে আগে কখনই হয়নি। শিগগির এসকে ফিল্মসের ব্যানারে নাম চূড়ান্ত না হওয়া (মায়া) সিনেমার শুটিং শুরু হবে। পরিচালক চেইঞ্জ হবে না। এর বাইরে নতুন অনেকেই আমার সঙ্গে কাজ করবে। আগামীতে তপু খানের লিডার সিনেমা আসবে। হয়তো সে আমার সঙ্গে সামনে আরও কাজ করবে।

শাকিব খান নিজের ব্যক্তিগত জীবন প্রসঙ্গে বলেন, আর গোপনে কিছুই করবো না। বিয়ে করলে ধুমধাম আয়োজনে সবাইকে জানিয়ে করবো। পরিবার চাচ্ছে আমি সেটেল হই। আগেরবার নিজের ইচ্ছেতে করেছিলাম। এবার যা কিছু হবে পরিবারের পছন্দে হবে। হয়তো শিগগির হবে। আমার পরিবার চাইছে, সুন্দর গোছানো কিছু হোক। সবাই একসঙ্গে আনন্দে জীবনটা পার করে দেই।

পুত্র আব্রাম খান জয়ের প্রসঙ্গে শাকিব খান বলেন, ওর সঙ্গে তো প্রতিনিয়ত ভিডিও কলে কথা হয়েছে। আমি আবার বাবা মায়ের সঙ্গেও নিয়মিত কথা বলেছি। দেশে আমার অনেক আপন মানুষ আছে তাদের সঙ্গে সবসময় আমার যোগাযোগ ছিল। বিদেশেও নতুন নতুন বন্ধু হয়েছে। তারা সবসময় আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে।

শাকিব খান নিউইয়র্কে থাকা অবস্থায় বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে তাঁর দুটি চলচ্চিত্র ‘গলুই’ও ‘বিদ্রোহী’। ঈদুল ফিতরে মুক্তি পাওয়া ছবি দুটির মধ্যে ‘গলুই’ ঈদুল আজহায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেক্ষাগৃহেও মুক্তি পেয়েছে। নিউইয়র্কে থাকা অবস্থায় ‘লিডার: আমিই বাংলাদেশ’ চলচ্চিত্রের ডাবিংও সম্পন্ন করেন তিনি।


মন্তব্য করুন

Shares