Select Page

পরাণ: ১৫ কোটি টাকা থেকে প্রযোজকের ভাগ কেন ৩ কোটি?

পরাণ: ১৫ কোটি টাকা থেকে প্রযোজকের ভাগ কেন ৩ কোটি?

রায়হান রাফীর ‘পরাণ’ সিনেমার টিকিট বিক্রির একটি হিসাব দিয়েছেন পরিবেশক জাহিদ হোসেন অভি। ১২ কোটি টাকার পুরো হিসাব দিলেও তার ধারণা এই অঙ্ক ১৫ কোটি টাকা। তবে শুনতে বড় অঙ্ক মনে হলেও এ পরিমাণ অর্থ থেকে প্রযোজকের আয় ৩ কোটি টাকা।

এ নিয়ে খিজির হায়াত খানসহ বেশ কয়েকজন নির্মাতা সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও দিয়েছেন। পাশাপাশি অনেকেই বলছেন, একটি কম বাজেটের সিনেমাকে লাভের মুখ দেখতে যদি এত টাকার টিকিট বিক্রি হতে হয়, সেখানে বড় বাজেটের সিনেমার অবস্থা কী হবে!

এ বিষয়ে রুটস সিনেক্লাবের ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট দেয়া হয়েছে। সেখান থেকে ১৫ কোটি টাকার টিকিট বিক্রি থেকে ৩ কোটি টাকা প্রযোজকের পাওয়ার একটা ব্যাখ্যা রয়েছে।

১৫ কোটির মধ্যে ৩০ শতাংশ অর্থাৎ সাড়ে ৪ কোটি টাকা ভ্যাট, ট্যাক্স ও বিধিধ খরচ বাবদ প্রথমেই বাদ যাবে। এরপর থাকবে সাড়ে ১০ কোটি! এর মানে গ্রস আয় ১৫ কোটি ও নেট আয় সাড়ে ১০ কোটি।

নিয়ম অনুযায়ী, প্রথম সপ্তাহে প্রযোজক ও পরিবেশক ৫০ শতাংশ শেয়ার পাবেন, দ্বিতীয় সপ্তাহে ৪৫ শতাংশ, তৃতীয় সপ্তাহ থেকে ৪০ শতাংশ।

প্রযোজকের গড়ে ৪৫ শতাংশ ধরে নিলে সাড়ে ১০ কোটি টাকার মধ্যে ৫ কোটি ৭৭ লাখ টাকা নেবে সিনেমা হল মালিকরা। পরিবেশকের হাতে পৌঁছাবো বাকি ৪ কোটি ৭২ লাখ টাকা। যেখান থেকে ১৫ শতাংশ অর্থাৎ ৭০ লাখ টাকা পরিবেশক রাখার পর প্রযোজকের হাতে পৌঁছাবে ৪ কোটি টাকা! এরপর ছবির নির্মাণ, মেশিন ভাড়া, প্রচার, প্রকাশনা ও বিবিধ খরচ বাদ দিলে প্রযোজকের লাভ থাকবে প্রায় ৩ কোটি টাকা!

অবশ্য প্রথম আলোতে প্রতিবেদন প্রকাশের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় ১৫ কোটি টাকার টিকিট বিক্রির খবরটি অস্বীকার করেছেন ‘পরাণ’ ছবির প্রযোজক। তবে পরিচালক রায়হান রাফীকে এ সম্পর্কিত খবর শেয়ার করতে দেখা গেছে।


মন্তব্য করুন

Shares