Select Page

পুরনো ঢাকা খাদ্য ঐতিহ্য নিয়ে নাবিলের প্রামাণ্যচিত্র ‘ফুডিশিয়াস ঢাকা’

পুরনো ঢাকা খাদ্য ঐতিহ্য নিয়ে নাবিলের প্রামাণ্যচিত্র ‘ফুডিশিয়াস ঢাকা’

বছর কয়েক আগে ‘মিস্টার এক্স’ নামের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বানিয়ে প্রতিভার ঝিলিক দেখিয়েছিলেন মুহাম্মদ আলতামিশ নাবিল। এরপর বেশ কিছু স্বল্পদৈর্ঘ্য ও প্রোমোশনাল ভিডিওর সঙ্গে যুক্ত থাকলেও নির্দেশনা দেননি। এবার প্রামাণ্যচিত্রের নির্দেশক হিসেবে পাওয়া যাবে তাকে।

বিষয়ও লোভনীয়। পুরনো ঢাকার সমৃদ্ধ খাদ্য সংস্কৃতিকে উপজীব্য করে নির্মিত হচ্ছে ‘ফুডিশিয়াস ঢাকা’ শিরোনামের স্বল্পদৈর্ঘ্য প্রামাণ্যচিত্রটি, যার বাংলা শিরোনাম ‘ঢাক্কাই খানা’।  মোশন ভাস্কর ও ডাকপিয়ন২৪-এর যৌথ প্রয়াসের ছবিটি প্রযোজনা করছেন তাসনিম তারান্নুম নিটোল ও কার্যনির্বাহী প্রযোজক হিসেবে রয়েছেন ইকবাল হোসেন ইকু। চিত্রনাট্য তত্ত্বাবধানে আছেন রুবায়েত খায়ের রুশদী।

‌‘ফুডিশিয়াস ঢাকা’য় দেখা যাবে, ১৬০৮ সালে রাজধানীর মর্যাদা পাওয়ার পর ৪০০ বছরে নানান উত্থান-পতনের মাঝেও এখানকার অধিবাসীরা বনেদি খাবারগুলোর চর্চা ঠিকই বজায় রেখেছেন। গেল শবে বরাতে ঐতিহ্যবাহী বরাতি রুটির বাজারে দৃশ্যধারণের মাধ্যমে শুরু হয়েছে প্রামাণ্যচিত্রটির নির্মাণ।

নির্মাতা নাবিল জানান, ‘পুরনো ঢাকার খাবার আমাকে সেই ছাত্রজীবন থেকেই আকর্ষিত করে। মায়ার শহর ঢাকার মায়াজালটা যেন পুরনো ঢাকা অঞ্চলে একটু বেশি পরিমাণে ছেয়ে রয়েছে। পুরনো ঢাকার এই আকর্ষণীয় ভোজনরস ও খাদ্য সংস্কৃতিকে বিশ্বব্যাপী প্রচারের উদ্দেশ্যে আমরা এই প্রামাণ্যচিত্রটি নির্মাণ শুরু করেছি যার দৃশ্যধারন চলবে পুরো বছরজুড়ে। এতে আদি ঢাকার খাবারের দোকান, বিভিন্ন উৎসব থেকে শুরু করে ফুটিয়ে তোলা হবে এ অঞ্চলের খাদ্যের ইতিহাস-ঐতিহ্যগুলো।’

তিনি আরো জানান, ২০১৮ সালের মাঝামাঝিতে ছবিটি নিয়ে বিশ্বের নামী চলচ্চিত্র উৎসবগুলোতে অংশ নিতে চান।

ইংরেজি ধারাভাষ্যের এই প্রামাণ্যচিত্রটি চিত্রগ্রহণের দায়িত্বে রয়েছেন বিদ্রোহী দীপন এবং সম্পাদক হিসেবে আছেন সাইফ রাসেল। সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন মাহামুদ হায়াত অর্পণ।

অারো পড়ুন:   দর্শনীর বিনিময়ে ‘মিস্টার এক্স’

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

Shares