Select Page

বঙ্গবন্ধুরে নিয়ে সিনেমাটা বাংলাদেশের পরিচালকই বানাক

বঙ্গবন্ধুরে নিয়ে সিনেমাটা বাংলাদেশের পরিচালকই বানাক

(বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন-নির্ভর একটি চলচ্চিত্র তৈরির জন্য বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে অনেক আগেই সমঝোতা হয়ে আছে। এর সম্ভাব্য পরিচালক হিসেবে বাংলাদেশের কাছে তিনজনের নাম প্রস্তাব করেছে ভারত।

তিন নির্মাতা হলেন ভারতের বরেণ্য পরিচালক শ্যাম বেনেগাল, গৌতম ঘোষ ও কৌশিক গাঙ্গুলি। তবে বাংলাদেশ এখনও তাদের মধ্যে থেকে কাউকে চূড়ান্ত করেনি। বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা ঢাকায় ফিরে সরকারের শীর্ষপর্যায়ের সঙ্গে আলোচনা করে পরিচালক নির্বাচন করবেন।

গত বছরের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরের সময় বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক ও মুক্তিযুদ্ধের ওপর প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণের বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে সমঝোতাপত্র (এমওইউ) স্বাক্ষর হয়েছিল। সেই অনুযায়ী নির্মাণ কাজ শুরু হতে যাচ্ছে।)

ভারত তিন পরিচালকের নাম প্রস্তাব করেছে। কৌশিক গাঙ্গুলির দু-একটা সিনেমা ভালো এবং অধিকাংশই একই ফর্মুলার মুভি। থিয়েটার টার্ন টিভি টার্ন মুভি। গৌতম ঘোষের মুভিরও একই অবস্থা।

তাছাড়া কলকাতার ফিল্ম মেকিং স্টাইলে তারা যে বায়োপিক বানায় তার পরিসর খুব ছোট থাকে। পরিসর বড় করতে গেলেই একেবারে ঘেটে ঘ। জুলফিকার, আমাজন অভিযান ইত্যাদি যেসব আছে দেখলেই বোঝা যায়। নইলে তারা সুনীলের ‘প্রথম আলো’, বা মজুমদারের বায়োপিক বানিয়ে ফেলতো নিশ্চয়ই। ‘পূর্ব পশ্চিম’ বানানো যায়, পুর্বের সাইড বাংলাদেশের কেউ ডিরেক্ট করবে, পশ্চিমের সাইড তারা।

তাছাড়া বাংলাদেশ নিয়ে ওদের আন্ডারস্ট্যান্ডিং ভালো না। এদের কথা বাদ, বলিউডের অস্কার নোমিনি পরিচালক আশুতোষ গোয়ারিকারের ‘খেলে হাম জান সে’ দেখেই পোষায় নাই। ‘চিটাগাং’ সিনেমাটাও মূল এসেন্স ক্যাচ করতে পারে নাই। সো, ভারতীয় পরিচালক দিয়ে মহা কিছু হয়ে যাবে যা বাংলাদেশি পরিচালকরা বানাতে পারবে না আমার এরকম মনে হয় না।

এখন যদি আমরা চাই কলকাতার স্টাইলের বায়োপিক দেখবো, তাইলে সেই ফর্মুলা অনুযায়ী বাংলাদেশি পরিচালকরাইতো তা হুবহু একটা কৌশিক গাঙ্গুলির মুভি বানিয়ে দিতে পারে। যেমন চূর্নি গাঙ্গুলি ‘নির্বাসিত’ বানিয়েছে। পারবে না?

পর্যাপ্ত বাজেট থাকলে, সরকারি সহায়তা থাকলে বাংলাদেশেই এই মুভি বানানো সম্ভব। ব্যাণিজিক খাতিরে ইন্ডিয়ার আর্টিস্ট নেওয়া যেতে পারে। টেনকিক্যাল সাহায্য নিতে হবে।

সিনেমা বানানো তো সমস্যা না, সমস্যা হলো এর ব্যাপকতা রক্ষা করা। বড় প্রজেক্ট হ্যান্ডেল করতে বাংলাদেশের কেউ পারবে না?
হাস্যকর। না করলে পারবে কিভাবে? ‘ঢাকা আট্যাক’-এর পরিচালক দীপঙ্কর দীপনই পারবে।

ভারতীয় পরিচালকদের বাংলাদেশ বিষয়ক ছবি বানাতে কোন সমস্যা নেই। তারা বানাক বঙ্গবন্ধুরে নিয়ে সিনেমা। আমরা দেখবো। তবে বাংলাদেশি পরিচালকেরা পারবে না দেখে ভারতীয় পরিচালক ধার করতে হবে এটা প্যারাদায়ক।

বাংলাদেশের পরিচালকেরা বিকল্প প্রস্তাব পাঠান। প্রজেক্টের পরিকল্পনা এবং কেন আপনিই কাজটা করতে পারবেন সরকারকে বা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রাণালয়কে জানান।


মন্তব্য করুন

Shares