Select Page

বাপ্পীর দশ বছর পর রাজ, মাঝে কেউ হ্যাটট্রিক করেনি!

বাপ্পীর দশ বছর পর রাজ, মাঝে কেউ হ্যাটট্রিক করেনি!

বাপ্পী চৌধুরী ও মাহিয়া মাহিকে নিয়ে পরপর সিনেমা বানিয়ে বড়পর্দায় নতুন প্রজন্মের প্রজেকশন জনপ্রিয় করে জাজ মাল্টিমিডিয়া। ওই সময় দুই তারকাকে নিয়ে একাধিক হিট সিনেমা উপহার দেয় তারা।

আব্দুল আজিজ দাবি করছেন, ২০১২ সালে বাপ্পী পরপর তিনটি হিট সিনেমা দিয়ে হ্যাটট্রিক করেছিলেন। গত দশ বছরে সেই ঘটনা আরেকবার মাত্র ঘটেছে। চলতি বছরে শরিফুল রাজের পরপর হিটের সুবাদে।

জাজের কর্ণধার বলছেন, ২০১২ সালে নায়ক বাপ্পীর পরপর তিনটি সিনেমা হিট করেছিল— ভালবাসার রং, অন্য রকম ভালোবাসা এবং তবুও ভালবাসি। কিন্তু বাপ্পীর এই হ্যাটট্রিক করতে ২ বছর লেগেছিল; ২০১২-১৩ সাল।

এরপর গত ১০ বছরে আর কোনো নায়কের হিট সিনেমার হ্যাটট্রিক নেই উল্লেখ করে আজিজ বলেন, ২০২২ সালে এসে শরিফুল রাজ সেই রেকর্ড ভেঙ্গে দিল। সে এক বছরেই তিনটি হিট সিনেমা উপহার দিল— পরাণ, হাওয়া ও দামাল।

এ সময় রাজের সর্বশেষ সিনেমার প্রশংসা করে বলেন, মান ও গল্পের দিক বিবেচনা করলে ‘দামাল’ অন্য দুটির চেয়ে অনেক অনেক এগিয়ে। এমন একটি সিনেমা, যা প্রতিটি বাঙালির দেখা উচিত। জানা উচিত আমাদের সেই আগুণ ঝরা দিনগুলোর কথা।

রায়হান রাফী পরিচালিত ‘দামাল’-এ মুক্তিযুদ্ধের একটি অন্যরকম অধ্যায় ওঠে এসেছে। মুক্তিযুদ্ধ প্রসঙ্গে হুমায়ূন আহমেদের ‘আগুনের পরশমণি’ নিয়েও বলেন আব্দুল আজিজ।

তিনি বলেন, শুধু ‘দামাল’ নয়, আরেকটি সিনেমা আছে যেটা দেখা উচিত ‌‘আগুনের পরশমণি’। তুলনামূলকভাবে এও বলেন, ‌‘দামাল’ ‘আগুনের পরশমণি’ হয়ে উঠতে পারেনি একটুর জন্য। সব ঠিক ছিল, যদি কিছু দৃশ্যে সংলাপগুলো আরেকটু ইমোশনাল করা যেতো, তাহলে এটা হয়ে উঠতে পারতো আরেকটা ‘আগুনের পরশমণি’।

আরো জানান, তার দেখা বিশ্বের সেরা পাঁচটি সিনেমার তিন নম্বরে আছে ‘আগুনের পরশমণি’। ‘দামাল’-এ যদি সংলাপ কিছুটা উন্নত হতো, তাহলে সেরা পাঁচে রাখতেন।

রাফীকে ‘আমারই সন্তান’ উল্লেখ করে বলেন, সে আমার মান-সম্মান রক্ষা করেছে। কারণ রাফীকে যখন পরিচালক হিসাবে সুযোগ দেই, অনেকেই আমাকে মানা করেছে, টিটকারিও করেছে কেউ কেউ। কিন্তু এখন, বাকিটা ইতিহাস।


মন্তব্য করুন

Shares