Select Page

‘বিয়ে’ নিয়ে সেই নাটকগুলো

‘বিয়ে’ নিয়ে সেই নাটকগুলো

‌‘বিয়ে’,এই সময়ে ইউটিউবভিত্তিক নাটকে বেশ আলোচিত শব্দ। তাই বিয়ে নিয়ে ঘটে যাওয়া আমাদের পুরোনো কিছু নাটক নিয়ে এই পর্ব—

হাবলঙের বাজারে: তালুকদারের মেয়ের বিয়ে ঠিক হয়েছে পাশের গ্রামের আব্দুল মজিদের সঙ্গে। সে আবার চৈত্র মাসে পাগল থাকে। শিরিনকে ভালোবাসে তার গ্রামেরই এক ছেলে আর তার গৃহশিক্ষক। কিন্তু সেই দিকে তার নজর নেই, বরং পাগল ছেলেকে বিয়ে করতেই বেশি আগ্রহী। শেষে ঘটে চমক। হুমায়ূন আহমেদ যত কমেডি নাটক বানিয়েছে তার মধ্যে এটি বেশ এগিয়ে থাকবে।

জাহিদ হাসান,মাহফুজ আহমেদ, শাওন, রিয়াজ, আতাউর রহমান, সালেহ আহমেদ,শামীমা নাজনীন, ফারুক আহমেদের পাশাপাশি এই নাটকের বিশেষ আকর্ষণ হয়ে উঠেন এজাজুল ইসলাম।

আরও পড়ুন: আমাদের টিভি নাটক: পর্ব এক/ হুমায়ূনের অদেখা ভুবন

চার দুকোনে চার: হুমায়ূন আহমেদের নির্মল কমেডির নাটক, একেবারে নির্ভেজাল। গ্রামের চেয়ারম্যান তার চার কন্যার বিয়ে ঠিক করেছেন পাশের গ্রামের চার ভাইয়ের সঙ্গে, একই দিনে। গ্রাম্য বিয়ের সংস্কৃতি, কমেডি, অভিনয় সব মিলিয়ে দারুণ উপভোগ্য। আমিরুল হক চৌধুরীর অভিনয়ে মুগ্ধ হবার পাশাপাশি মনিরা মিঠু, মাসুম আজিজ, সালেহ আহমেদ, এজাজুল ইসলাম, ফারুক আহমেদ, স্বাধীন খসরু সবাই খুবই ভালো অভিনয় করেছেন। ২০০২ সালে প্রচার হয়েছিল।

বিয়ে নিয়ে ইয়ে: একমাত্র নাতনী বিয়েতে অসম্মতি জানায় জেদের বশে দাদু ঠিক তিনি নিজেই বিয়ে করবেন। শুরু হয় দাদুর জন্য মেয়ে খোঁজা, তা নিয়ে হাস্যরসাত্মক কাহিনী। শাহরিয়ার নাজিম জয়ের রচনায় এই নাটকে বুলবুল আহমেদ, আব্দুল কাদের,নাদিয়া আহমেদ ছাড়াও জয় নিজে অভিনয় করেছিলেন। বিটিভিতে নাটকটি ২০০৩ সালের দিকে প্রচার হয়।

অপরাহ্ন: হুমায়ূন আহমেদের নাটক, ২০০৭ সালে প্রচারিত হয়েছিল। বাবা তার একমাত্র আদুরে কন্যার বিবাহ দিতে কোনো কার্পণ্য করছেন না, বিয়ের আগের রাতে বরপক্ষ এসে চাচাকে জানিয়ে যায় যৌতুক বাড়িয়ে দিতে। এই নিয়ে চাচা বেশ চিন্তিত, বিয়ের দিন দুপুরে বাবাকে সাপে কামড়ায়, শুরু হয় অন্য জটিলতা। হুমায়ূন আহমেদের চিরায়ত চিত্রনাট্য; এজাজুল ইসলাম, মনিরা মিঠু, রহমত আলীদের ভালো অভিনয় ও সুন্দর সমাপ্তির জন্য এই নাটকটা দেখতে ভালো লাগে।

আজ জরির বিয়ে: মাহফুজ-শাওন পালিয়ে গিয়ে কাজী অফিসে বিয়ে করতে চায় কিন্তু বিয়ে করতে গিয়ে কাজীর নানান প্রশ্নে আরো জটিলতা বাড়ে। হুমায়ূন আহমেদের স্বভাবজাত হাস্যরসাত্নক চিত্রনাট্যে বেশ উপভোগ্য; আরো অভিনয় করেছেন চ্যালেঞ্জার, এজাজুল ইসলাম। পরে একই নাটক তৌসিফ-সাফাকে নিয়ে নির্মাণ করেন শাওন।

শুভ বিবাহ: গ্রামের হতদরিদ্র ছেলে-মেয়ের বিয়ে নিয়ে নাটক। গ্রামের মানুষেরা বেশ উৎসব সহকারে দুজনের বিয়ে দেন। ২০০৭ সালে প্রচারিত কামরুল হাসানের রচনায় আবু সাইয়িদের পরিচালনায় এই নাটকে অভিনয় করেন মীর সাব্বির ও সুমাইয়া শিমু। দেখতে বেশ ভালো লাগে।

পাত্রী চাই: সালাউদ্দিন লাভলুর হাসির নাটক। বৃন্দাবন দাসের রচনায় এই নাটকে দেখা যায় চঞ্চল চৌধুরী বিয়ের জন্য শুধু পাত্রীই দেখে, কিন্তু পছন্দ হয় না। বয়স পেরিয়ে যায় বিয়ে আর হয় না। আরো অভিনয় করেছেন আ খ ম হাসান, শাহনাজ খুশি।

আল্পনা কাজল: বিয়ে মানেই এলাহি কাজকারবার, এই কথাটা দিন দিন আরো প্রকট হয়ে উঠেছে। যুগের তাগিদে যুক্ত হয়েছে অনেক কিছু। বিয়ের ঝক্কি ঝামেলা সাড়াতে ‘ওয়েডিং প্ল্যানার’ শব্দটি আমাদের এখন পরিচিত শব্দ। তবে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে আল্পনা, অথচ এটা আমাদের ঐতিহ্য। আর এই নিয়েই ২০১৪ সালের নাটক ‘আল্পনা কাজল’। আশফাক নিপুণের নির্মাণে শখ, আবির মির্জা, ইরেশ যাকের, শাহতাজ অভিনীত নাটকটি নির্মল আনন্দ দেবে।

মিডলক্লাস সেন্টিমেন্ট: আদনান আল রাজীব খুব কমই নাটক বানিয়েছেন, তার মধ্যে এটি একটি। বিয়ে নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যবিত্ত যে চিন্তাভাবনার জন্য জটিলতার সৃষ্টি হয় তাই নিয়েই এই নাটক। আশফাক নিপুণ ও সোনিয়া হোসেনের অভিনীত নাটকটির সমাপ্তি ভালো না লাগলেও উপভোগ্য। ২০১৫ সালের অন্যতম আলোচিত নাটক।

খুঁটিনাটি খুনসুঁটি: পার্থ বড়ুয়া-অপি করিম জুটির খুবই সুন্দর একটি নাটক। অপির ভাইয়ের বিয়েতে গিয়ে বিশেষ জামাই আদর আবদার করে পার্থ, সঙ্গে আরো নানান রসবোধ নিয়ে আশফাক নিপুণের এই উপভোগ্য নাটক।


লেখক সম্পর্কে বিস্তারিত

চলচ্চিত্র ও নাটক বিষয়ক লেখক

মন্তব্য করুন

Shares