Select Page

মিশন এক্সট্রিম: কে কী বললেন?

মিশন এক্সট্রিম: কে কী বললেন?

অনেকটা গোপনে দৃশ্যায়ন শুরু হয় ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবির। তবে ইচ্ছা থাকলেও শুটিং চলাকালের ছবি ও খবরাখবর কোথাও জানাননি সংশ্লিষ্টরা। সেজন্য টানা একমাস শুটিং শেষে সোমবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন ছবির পুরো ইউনিট। উদ্দেশ্য সিনেমার সম্পর্কি তথ্য ও কলাকুশলীদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়া।

ছবির অন্যতম পরিচালক সানি সানোয়ার বলেন, ‘বিভিন্ন কৌশলগত কারণে শুটিংয়ের কোন তথ্য সাংবাদিকদের জানানো হয়নি। এতে করে আমরা খুব মনোযোগ দিয়ে কাজটি করতে পেরেছি। ইতোমধ্যে ছবির ৮৫ শতাংশ কাজ শেষ হয়ে গেছে। “মিশন এক্সট্রিম” পূর্বের “ঢাকা অ্যাটাক” ছবির মতো একই ঘরানার। এটিও পুলিশ অ্যকশনধর্মী ছবি। এই ছবিটি যখন দেখবেন তখন মনে হবে এটি কোন বিদেশি সিনেমা। আমরা চেষ্টা করেছি অল্প বাজেটে ভালোমানের একটি ছবি নির্মাণ করতে। ছবিতে প্রচুর অ্যাকশন দৃশ্য থাকছে।’

তিনি আরিফিন শুভর প্রশংসা করে বলেন, ‘ছবির জন্য আরিফিন শুভর ডেডিকেশন প্রশংসনীয়। তিনি ছবির জন্য নিজেকে যেভাবে প্রস্তুত করেছেন তা সত্যিই অসাধারণ লেগেছে।’

এদিকে আরিফিন শুভ বলেন, ‘নায়ক, নায়িকা কিংবা ভিলেনের ছবি নয় “মিশন এক্সট্রিম”। এর প্রতিটি চরিত্র সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ। সেটা যেকোনো চরিত্রই হোক। এখানে প্রধান চরিত্র বলে কোনো কথা নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ব্যক্তিগতভাবে এর আগে এ ধরণের কাজ করিনি। এত সংখ্যক লম্বা লিস্টের জনপ্রিয় শিল্পীদের নিয়ে কাজ হয়নি। আমিসহ পুরো ইউনিট চেষ্টা করেছে প্রত্যেকেই একেবারে সেরা যোগ্যতা দিয়ে কাজ করার জন্য। এরপরেও ‘মিশন এক্সট্রিম’ সফল কিংবা ব্যর্থ হলে আমার খুব একটা কষ্ট লাগবে না। কারণ আমরা সেরাটা দিয়ে চেষ্টা করেছি। আর এটাই আমার সফলতা।’

গোপীয়নতা রক্ষা করে ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর শুটিং প্রসঙ্গেও কথা বলেন শুভ। তিনি বলেন, ‘পৃথিবীর প্রায় সব ছবির শুটিং ই খুব গোপনীয়তার সাথে শুট করা হয়। ব্যতিক্রম দেখা যায় শুধু আমাদের ছবির শুটিংয়ের সময়। শুটিং চলাকালীন কোনো মুহূর্ত যেন ফাঁস না হয়, সে বিষয়টি এবার আমরা লক্ষ্য রেখে কাজ করেছি।’

‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিতে জিসান চরিত্রে অভিনয় করে রাতারাতি তারকা বনে গিয়েছিলেন তাসকিন রহমান। এবার তিনি ‘মিশন এক্সট্রিম’-এ খালিদ চরিত্রে অভিনয় করছেন।

শুভর প্রশংসা করে বললেন, ‘মিশন এক্সট্রিম’ কি হচ্ছে এটা পুরোটা স্ক্রিনে দেখলে বোঝা যাবে। আর শুভর যে শারীরিক পরিবর্তন দর্শক দেখতে পাবে এটা আমাদের জন্য একটা অনুপ্রেরণা হতে পারে। কারণ এটা খুব সহজ কাজ নয়। চরিত্রের জন্য যে পরিমাণে পরিশ্রম সে করেছে এটা অনেক চ্যালেঞ্জের ব্যাপার ছিল।’

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা থেকে বেরিয়ে ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর নায়িকা হয়েছেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। তিনি বলেন, আমি খুব খুশি এমন একটি টিমের সঙ্গে কাজ করতে পেরে। যদিও এখনো ফিল্মের পথ পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারিনি তবে চেষ্টা করছি সেরা দেয়ার।

ছবিটি পরিচালনায় আরও আছেন ফয়সাল আহমেদ। তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্রটিতে যে চরিত্রগুলো দেখা যাবে তার একেবারে বাস্তবের। সানী ভাই তার চেনা কিছু চরিত্র ও অভিজ্ঞতা ছবিতে তুলে ধরেছেন। আমি চেষ্টা করেছি সেগুলো ফুটিয়ে তুলতে।’

পরিচালনায় পাশাপাশি ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন সানী সানোয়ার। তিনি বললেন, দু-একের মধ্যে ‘মিশন এক্সট্রিম’ টিম দুবাই যাচ্ছে। সেখানে পাঁচদিনের মতো শুটিং হবে। এছাড়া দেশে রোজার মধ্যে কয়েকদিনের কাজ করবো। মুক্তির বিষয়ে তিনি বলেন, চলতি বছরের অক্টোবর কিংবা নভেম্বরের মাঝামাঝিতে ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তি দিতে পারবো।

‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবির অন্যান্য চরিত্রে আরও অভিনয় করছেন সাদিয়া নাবিলা, ইরেশ যাকের, মাজনুন মিজান, সুষমা সরকার, দীপু ইমাম, শতাব্দী ওয়াদুদ, আরেফ, মনোজ, সুমিত, ইমরান, সুদীপ্ত, সৈয়দ নাজমুস সাকিব, তারিক আনাম খানসহ অনেকেই।

হাইভোল্টেজ ঢাকা অ্যাটাকের সাফল্যের পর ‘মিশন এক্সট্রিম’ দেশের দ্বিতীয় পুলিশ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা। ছবিটি প্রযোজনা করছে কপ ক্রিয়েশন।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

স্পটলাইট

Saltamami 2018 20 upcomming films of 2019
Coming Soon

[wordpress_social_login]

Shares