Select Page

যৌথ প্রযোজনা স্থগিত!

যৌথ প্রযোজনা স্থগিত!

নতুন করে নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তথ্য মন্ত্রণালয়। রোববার সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো তথ্য বিবরণীতে এ কথা জানানো হয়েছে। সচিবালয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিবারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকের পর এ সিদ্ধান্ত নেয় মন্ত্রণালয়।

তথ্যসচিব মরতুজা আহমদের সভাপতিত্বে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে চলচ্চিত্রের সুষ্ঠু বিকাশ ও উন্নয়নের স্বার্থে অনুষ্ঠিত বিশেষ সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু উপস্থিত ছিলেন। আরো ছিলেন চলচ্চিত্র পরিবারের প্রতিনিধিদের পক্ষে অভিনেতা ফারুক এবং চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর। তারা একগুচ্ছ প্রস্তাবনা তুলে ধরেন।

বৈঠক শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, ‘আমরা নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেছি। বর্তমানে যৌথ প্রযোজনার চলচ্চিত্র নিয়ে যে নীতিমালা আছে সেখানে অনেক ফাঁকফোকর আছে। সিদ্ধান্ত হয়েছে এই নীতিমালা পরিবর্তন করা হবে। নতুন নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত যৌথ প্রযোজনার ছবির অনুমোদন হবে না। এখন যে প্রিভিউ কমিটি আছে তা নতুন করে গঠন করা হবে। কোরবানি ঈদের পরে ৫০টি সিনেমা হলে ডিজিটাল মেশিন বসানো হবে।’

ঈদুল ফিতরের আগে থেকেই যৌথ প্রযোজনার সিনেমার নামে ‘যৌথ প্রতারণা’র বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছে চলচ্চিত্র পরিবার। এর আগেও তথ্যমন্ত্রীর সাথে তাদের বৈঠক হয়। কিন্তু সে বৈঠকে কোনো ফল পাওয়া যায়নি। ঈদুল ফিতরে নীতিমালার ফাঁকফোকর গলিয়ে যৌথ প্রযোজনার সিনেমা নবাব ও বস-২ মুক্তি পায়।

নতুন নীতিমালা কমিটির সমন্বয়কের দায়িত্ব পেয়েছেন বিটিভির ডিজি হারুন-অর-রশিদ। তিনি বলেন, ‘আমি যেহেতু বহুদিন যাবত চলচ্চিত্রের বহু কিছুর সাথে যুক্ত তাই আমাকে সমন্বয়কের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। নতুন নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত নতুন কোন ছবি যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হতে পারবে না। তবে আজ পর্যন্ত অনুমোদিত ছবিগুলো মুক্তি দিতে পারবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘দেশের স্বার্থ যাতে বজায় থাকে সেভাবেই নীতিমালা করব আমরা। আশা করছি এবার আর কারো আপত্তি থাকবে না। যৌথ প্রযোজনা বিষয়ক নীতিমালা প্রণয়ন কমিটিতে পরিচালক-প্রয়োজক ও কলাকুশলীরাও থাকবেন। তাদের সমন্বয়ে এই কমিটি গঠন করা হবে। তবে এক্ষেত্রে মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হবে।’

অারো পড়ুন:   কে ঠেকাবে বুলেট? (টিজার)

উত্থাপিত প্রস্তাবগুলো পর্যালোচনা করে ‘দেশের চলচ্চিত্রের স্বার্থে যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণ নীতিমালা দ্রুত যুগোপযোগী ও পূর্ণাঙ্গ করে নতুন নীতিমালা তৈরি’, ‘নতুন নীতিমালা না হওয়া পর্যন্ত যৌথ প্রযোজনায় চলচ্চিত্র নির্মাণ সম্পর্কিত কার্যক্রম স্থগিত রাখা’ এবং ‘চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে ৫০টি এইচডি প্রজেক্টর মেশিন কিনে সিনেমা হলগুলোর প্রজেকশন কার্যক্রমে যুক্ত করার সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বৈঠকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও চলচ্চিত্র) মো. মনজুরুর রহমান, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশনের (বিএফডিসি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন কুমার ঘোষ, যুগ্ম সচিব (চলচ্চিত্র) মো. ইউছুব আলী মোল্লা, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাকির হোসেন, উপসচিব (চলচ্চিত্র) শাহীন আরা বেগম, চলচ্চিত্র পরিবারের সদস্য দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, খোরশেদ আলম খসরু, মুশফিকুর রহমান গুলজার, বদিউল আলম খোকন, অভিনেতা রিয়াজ ও জায়েদ খান উপস্থিত ছিলেন।


Leave a reply

ই-বুক ডাউনলোড করুন

সাপ্তাহিক জরিপ

ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত কোন ছবিটি সবচেয়ে বেশি ভালো লেগেছে?

রাজনীতি
নবাব
বস টু

surveymaker

Shares