Select Page

লাইফ সাপোর্টে আমজাদ হোসেন

লাইফ সাপোর্টে আমজাদ হোসেন

# মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে লাইফ সাপোর্টে আমজাদ হোসেন
# বাসায় অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায় তাকে
# ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রয়েছেন নামি এ নির্মাতা

মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে রবিবার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনকে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার। সকালে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হলে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের ইমপালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে।

পরে অবস্থা খারাপ হওয়ায় হাসপাতালের নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে নেওয়া হয়। চিকিৎসক শহীদুল্লাহ সবুজের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন তিনি।

৭গুলজার বলেন, ‘পারিবারিক সূত্রে জেনেছি, সকাল ৯টায় বাসায় অচেতনভাবে পাওয়া যায় তাঁকে। সঙ্গে সঙ্গে নেওয়া হয় হাসপাতালে। আমজাদ ভাই ৪৮ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রয়েছেন। পরিচালক সমিতি ও চলচ্চিত্রসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের পক্ষ থেকে দেশবাসীর কাছে আমি তাঁর জন্য দোয়া কামনা করি। সুস্থ হয়ে তিনি দ্রুত আমাদের মাঝে ফিরে আসুন—এমনটাই আশা করি।’

আমজাদ হোসেনের ছেলে নির্মাতা-অভিনেতা সোহেল আরমান বলেন, ‘আমি যখন বুঝতে পেরেছি, আব্বা হাত-পা নাড়তে পারছিলেন না। তখনই আব্বাকে নিয়ে হাসপাতালে আসি। ডাক্তার তখন জানালেন, আব্বা ব্রেনস্ট্রোক করেছেন। আব্বার শারীরিক অবস্থা ভালো না। যে কারণে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে, যাতে সুনিবিড় চিকিৎসা হয়। আমি সবার কাছে দোয়া চাই, যেন আমার আব্বাকে আল্লাহ সুস্থভাবে আমাদের মধ্যে ফিরিয়ে দেন। আমি সন্তান হিসেবে আমার চেষ্টার কোনো ত্রুটি করছি না।’

আমজাদ হোসেনের জন্ম ১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট, জামালপুরে। পঞ্চাশের দশকে ঢাকায় এসে সাহিত্য ও নাট্যচর্চার সঙ্গে জড়িত হন। প্রথমেই তিনি অভিনয়ে নিজেকে তুলে ধরেন মহিউদ্দিন পরিচালিত ‘তোমার আমার’ চলচ্চিত্রে। এর পর তিনি অভিনয় করেন মুস্তাফিজ পরিচালিত ‘হারানো দিন’ চলচ্চিত্রে।

তার পরিচালিত চলচ্চিত্রগুলো হচ্ছে ‘বাল্যবন্ধু’, ‘পিতাপুত্র’, ‘এই নিয়ে পৃথিবী’, ‘বাংলার মুখ’, ‘নয়নমণি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘সুন্দরী’, ‘কসাই’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি’, ‘দুই পয়সার আলতা’, ‘সখিনার যুদ্ধ’, ‘ভাত দে’, ‘হীরামতি’,‘প্রাণের মানুষ’,‘সুন্দরী বধূ’,‘কাল সকালে’, ‘গোলাপী এখন ঢাকায়’, ‘গোলাপী এখন বিলেতে’।

সূত্র : কালের কণ্ঠ ও বাংলাদেশ প্রতিদিন


মন্তব্য করুন

Shares