Select Page

‘শনিবার বিকেল’ নিয়ে ফারুকীর আল্টিমেটাম

‘শনিবার বিকেল’ নিয়ে ফারুকীর আল্টিমেটাম

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডে চার বছর ধরে আটকে আছে মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত এবং জাজ মাল্টিমিডিয়া, ছবিয়াল ও টেনডেম প্রডাকশনস প্রযোজিত ‘শনিবার বিকেল’। ঢাকার বহুল আলোচিত হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলার ঘটনা থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ছবিটি বানিয়েছেন তিনি। সেই ছবির মুক্তির জন্য অনেক চেষ্টার করে ব্যর্থ হয়েছে ফারুকী।

মূলত একই ঘটনা নিয়ে ভারতে নির্মিত একটি সিনেমা মুক্তি পেতে যাচ্ছে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি। যেটার নাম ‘ফারাজ’। এই খবর শুনে আরও বেশি হতাশ ও ক্ষুব্ধ ফারুকী। তাই এক প্রকার আল্টিমেটাম দিয়েছেন তিনি। বলেছেন, আগামী ২ ফেব্রুয়ারির মধ্যেই তার ছবিটি দর্শকের সামনে হাজির করতে হবে।

গতকাল মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) ফেসবুকে তিনি ক্ষুব্ধ সুরে বলেছেন, “ফেব্রুয়ারির ২ তারিখের মধ্যে ‘শনিবার বিকেল’ বাংলাদেশের মানুষের সামনে হাজির করতে দিতে হবে। কথা আমাদের একটাই।’’

‘শনিবার বিকেল’ মুক্তির অনুমতি না দেওয়ার কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল, এই সিনেমার মাধ্যমে বিদেশের মানুষের কাছে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হবে। তবে এটাকে যৌক্তিক কারণ মনে করেন না ফারুকী। তার ভাষ্য, “ইউটিউবে এই বিষয়ে হাজার হাজার ভিডিও আছে, আর ওনারা ভাবছেন একটা সিনেমা আটকে এই ঘটনা ধামাচাপা দেবেন। আর ‘শনিবার বিকেল’ তো বিদেশে দেখানোই হচ্ছে! কোথাও ভাবমূর্তি খসে পড়ার ঘটনা তো শুনি নাই। হলিউড রিপোর্টার তো তাদের রিভিউতে আপনাদের নিয়ে হাসাহাসি করছেন। তারা বলেছে, এই ছবি দেখে তারা বোঝে নাই ভাবমূর্তি কেমনে খসবে! তাদের মনে হয়েছে, ভাবমূর্তির যদি কিছু হয় এই ছবির ফলে, সেটা হতে পারে ভাবমূর্তি বৃদ্ধি!”

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কাছে দুটি প্রশ্নও করেছেন ফারুকী। সেটা এমন, “ফেব্রুয়ারি ৩ তারিখ যে ‘ফারাজ’ মুক্তি পাবে! এখন আপনি কীভাবে ওটা ধামাচাপা দেবেন? ‘শনিবার বিকেল’র প্রথম সেন্সর প্রদর্শনীর পর সেন্সর বোর্ড ছবির প্রশংসা করে বলেছেন দ্রুত সার্টিফিকেট দেবেন। কার ইশারায় এটার দ্বিতীয় প্রদর্শনী হলো, সেটার তদন্ত কি কোনও দিন হবে না?”

এ দিকে ‘শনিবার বিকেল’-এ অভিনয় করেছেন নুসরাত ইমরোজ তিশা। তিনিও বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তার বক্তব্য, “ভারতে ফেব্রুয়ারির ৩ তারিখে মুক্তি পাচ্ছে ‘ফারাজ’ নামের একটা সিনেমা। যেটা হোলি আর্টিজান নিয়ে বানানো। চার বছর আগে একই ঘটনা থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে আমরা একটা ছবি বানিয়েছি ‘শনিবার বিকেল’ নামে, যেটা আমাদের সেন্সর বোর্ড এখনও আটকে রেখেছে। আমাদের চার বছর পর বানানো ‘ফারাজ’ আমাদের আগে মানুষ দেখবে- কি অবিশ্বাস্য না? সরকারের সংশ্লিষ্ট দফতরের কাছে জোর দাবি জানাই, ‘ফারাজ’ মুক্তির আগেই আমাদের ছবি ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তি নিশ্চিত করতে হবে।”

এদিকে গত বছরের আগস্টের শেষ দিকে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘শনিবার বিকেল’ ছবিটি হলি আর্টিজানের ঘটনা নিয়ে নির্মিত। সেখানে দুজন পুলিশ সদস্যসহ বেশকিছু হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া র‍্যাব, সেনাবাহিনী ও পুলিশ অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে জঙ্গিদের দমন করেছে। এ বিষয়গুলো ছবিতে আসেনি। আমি সেন্সর বোর্ডের সঙ্গে কথা বলেছি। বোর্ড থেকে তাদেরকে (পরিচালক) বলার পর সংযোজন করে জমা দিয়েছিলো। কিন্তু সেগুলো যথেষ্ট নয়। এরপর তারা আপিল করে।

মন্ত্রী জানান, আপিল বোর্ড খুব শিগগিরই জানিয়ে দিবে কী কী সংযোজন করতে হবে ছবিটিতে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন, সংযোজনের কাজটি হয়ে গেলেই ‘শনিবার বিকেল’ মুক্তিতে কোনো বাধা থাকবে না।

ছবিটি এক শটে নির্মিত। এ ধরনের ছবিতে কীভাবে সংযোজন বিয়োজন করা যাবে। এ নিয়ে কথা বলেছেন মোরশেদুল ইসলাম। তিনি ছবিটি দেখেছেন। তিনি বলেন, ‘এটা তো এক শটের সিনেমা। এখানে কিছু সংযোজন করা সম্ভব না। সিনেমার শেষে কিছু একটা যোগ করে দিতে হবে। সেটাই হয়তো আপিল বোর্ডের নির্দেশে থাকবে।’

এই সিনেমার বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, ইয়াদ হুরানি, নাদের চৌধুরী, ইরেশ যাকের, ইন্তেখাব দিনার প্রমুখ।


১ টি মন্তব্য

  1. দারাশিকো

    কথা আমাদের একটাই। ফেব্রুয়ারির ২ তারিখের মধ্যে ‘শনিবার বিকেল’ বাংলাদেশের মানুষের সামনে হাজির করতে দিতে হবে।

মন্তব্য করুন

Shares