Select Page

শাকিব খান এবং আমার সাম্প্রতিক ভাবনা

শাকিব খান এবং আমার সাম্প্রতিক ভাবনা

Shakib Khan২০১৩ তে শাকিব খানের ৪টা মুভি মুক্তি পেয়েছে।

১) জোর করে ভালোবাসা হয়না

২) দেবদাস

৩) জজ ব্যারিষ্টার পুলিশ কমিশনার

৪) নিষ্পাপ মুন্না

ব্যাবসা করেছে সবগুলোই। কিন্তু সিনেমাতে ব্যবসার সাথে শিল্পের যে যোগসূত্র থাকে তা কি ৪টা মুভিতে ছিল? বলতে গেলে অনেক কিছুই বলা যাবে, তবে, সংক্ষেপে বলা যায়, মোটেই দুটোর কম্বিনেশন ছিলনা তার মুভিগুলোতে।

এই চারটি মুভির মধ্যে দুটি মুভি পরিষ্কারভাবেই ভারতীয় মুভির নকল/কপি। ক্যারিয়ারের এই সময়ে এসে শাকিব খানের এইসব মুভি করার ক্ষেত্রে বিচক্ষনতার পরিচয় দিতে হবে। এতদিনের ক্যারিয়ারকে আরেকটু উপরের ধাপে পৌছানোর দিকে মনোযোগ দিতে হবে। সকল শ্রেনীর দর্শকের কাছে যাওয়ার জন্য ‘নিষ্পাপ মুন্না’ টাইপের ছবির চেয়ে ‘দেবদাস’ টাইপের মুভিকে গুরুত্ব দিতে হবে।

এর মানে কিন্তু সাহিত্যিক নির্ভর মুভিতেই শাকিব থাকবে অন্যখানে থাকবেনা তেমন না। নকল চিত্রনাট্য যথাসম্ভব পরিহার করা উচিৎ এই মুহুর্তে। এটা শাকিব খানের ক্যারিয়ারের জন্যই ভাল হবে। এখনো তার সিনেমায় কি কি রাখা হয় সেসব ব্যাপারে শাকিব খান নিজেও ওয়াকিবহাল না। ধরা যাক, পুরো মুভির কাজের তদারকি শাকিব খান করেন না। সেক্ষেত্রে মুভির অন্যান্য ষ্টারকাষ্টে এমন কেউ আছে কি যে তার মুভির মার্কেটিং এর জন্য খারাপ ফল আনতে পারেন? অথবা নোংরামো করানো হতে পারে এমন কেউ আছে কি না সেটাও শাকিব খান জানেন বলে আমার মনে হয় নি।

এখন সময় এসেছে মুভিনির্মাতার পাশে থেকে চিত্রনাট্য তৈরির সময় থেকে শেষ পর্যন্ত একটা মুভিতে তার সময় দেওয়ার। নিজের মনের মত একটা মুভি তার ক্যারিয়ারে নতুন মাত্রা যোগ করবে। নয়তোবা এই টাইপের মুভি করে মুভির সংখ্যা আর ব্যবসাই হবে ।শিল্পমানে সেসব উত্তীর্ন হবেনা। নতুন দর্শক ও আগ্রহ পাবেনা। কিছুদিন আগেই সে দুটি টিভি কমার্শিয়ালে কাজ করেছে যা এখন নিয়মিত প্রচার হচ্ছে টেলিভিশনে। যথেষ্ট স্মার্টভাবেই শাকিব খানকে উপস্থাপন করা হয়েছে সেখানে। নতুন দর্শক এই বিজ্ঞাপনের সাথে শাকিবকে মিলাতে ব্যার্থ হবে যদি সন্ত্রাসী মুন্না টাইপের মুভিতে অহরহ অভিনয় করতে থাকে শাকিব খান।

বদিউল আলম খোকন এবং শাহাদাত হোসেন লিটনরা দীর্ঘদিন মুভি বানাচ্ছে। কিন্তু কি বানাচ্ছে সেটা কিন্তু আমরা জানি। ক্যারিয়ার গঠন তো শাকিবের ২০০৮ এ পরিপূর্ন হয়ে গেছে। এখন সে দেশের সেরা তারকা। ফিল্মি পলিটিক্স ছেড়ে ভাল ফিল্ম কিভাবে বানানো যায়, কিভাবে পরিচালকদের ভালো ফিল্ম বানাতে বাধ্য করানো যায় সে নিয়ে ভাবা উচিত। নতুন চিত্রনাট্যে তাদের কাহিনী বানাতে বাধ্য করার ক্ষমতা শাকিবের এতদিনে হয়েছে এবং সেটা বুঝার জন্য পিএচডি ডিগ্রীর প্রয়োজন নেই।

এই লিটন আর বদিউলদের কাছ থেকেই ভাল মুভি বানিয়ে নিতে হবে। শর্তারোপ করতে হবে – ‘ভাল মুভিতে আমাকে পাবেন নাহলে লামছাম নকল মুভিতে (যেখানে দৃশ্যও সাউথ মুভি থেকে কপি করবেন) সেসব মুভিতে আমাকে পাবেন না।”

ভাল চিত্রনাট্যতে পরিচালকেরা এভাবেই ঝুকবেন। শাকিব খান এটা করাতে না পারলে বুঝতে হবে শাকিব খান নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে এখনো চিন্তিত। সিকিউরড ফিল করছে না সে।
তার এরকম ভাবনা দর্শকদের জন্য খুবই খারাপ ব্যাপার হবে। কারন তার একটা ফ্যান বেইজ তৈরী হয়েছে এতদিনে। এছাড়া সাধারন দর্শক তো আছেই যারা রেগুলার সিনেমাহলে যাবেই সিনেমাহলে যেই মুভিই চলুকনা কেন।

এই বছরে তার ভালো মুভি হল দেবদাস এবং এই মুভিতে শাকিব খানের অভিনয় অনেকের হৃদয়কেই নাড়া দিয়েছে। অন্তত যাদের রিভিউ পড়েছি তা থেকে এটাই অনুমান করে নিয়েছি যে সে খুবই ভাল অভিনয় করেছে দেবদাস মুভিতে। সুন্দর চেহারার সাথে অভিনয়ও সে ভালো করে এটা বছর সাতেক আগেই সে প্রমান করে দিয়েছে সুভা মুভিতে, আমার স্বপ্ন তুমি মুভিতে।

সুতরাং শাকিব খান ভক্তরা – আপনাদের হিরোকে বুঝান নিষ্পাপ মুন্নার মত নকল মুভি থেকে কিছুটা দূরে থাকতে। ভালো মুভিতে মনোযোগ দিতে। শাকিব খানের প্রতি এই আমাদের পরামর্শ। বাংলা সিনেমাকে আরো দূর এগিয়ে নিতে তার স্পষ্ট ভুমিকা চাই। ভালো সিনেমাতে বেশী করে দেখতে চাই। মানহীন মুভি থেকে তার অবসর চাই। বর্তমান সিনেমা মার্কেটে ৫/৬ কোটি টাকা বাজেটের মুভিও খুব সহজেই ব্যাবসা করতে পারবে যদি গল্প ও নির্মান সেরকম হয়।

আশা করি শাকিবের বোধ বুদ্ধির বিকাশ ঘটবে। সাথে এও আশা করছি এটা তার মধ্যে বেশ ভালোভাবেই আছে।

[starrater tpl=44]


আমাদের সুপারিশ

৩ টি মন্তব্য

  1. সওদাগর

    শাকিব খান কে নিয়ে কিছু বলবো না, রিয়াজকে নিয়ে বলি। ঢাকাই চলচ্চিত্রের একজন গড়পড়তা নায়ক ভাল পরিচালকের হাতে পরে কি ধরনের অভিনয় করতে পারে, আমরা দেখেছি। কোলকাতার প্রসেনজিতের সম্পর্কেও একই রকম কথা শুনেছি।

    ক্যারিয়ারের এই সময়ে, যখন শাকিব দেশের এক শ্রেণীর মানুষের কাছে “কিং খান”, সময় এসেছে সবার “কিং” হবার। মূল কাজটা শাকিবকেই করতে হবে। অনেক বেশি বিচক্ষতনার পরিচয় দিয়ে কাজ পছন্দ করতে হবে।

  2. জামাল উদ্দিন আদনান

    কথা হইলো এইটাই… শাকিব খানরে তুলবো তুলবো ঠিক আছে, কিন্তু তারে তার ত্রুটিগুলাও বুঝায়ে দিতে হবে – সমালোচকরা যা করে। গালাগালি করে যারা তারা আর সমালোচকদের মধ্যে এইটাই পার্থক্য। শাকিবরেও বুঝতে হবে গালাগালি যারা করে তাদেরটা পাত্তা না দিলেও সমালোচকদের কথায় কান দিতে হবে, নিজের নাম নিয়ে কিং- মনোভাব বন্ধ করতে হবে। সে এখনো বাংলা চলচ্চিত্রের সেরা ৫০ জন অভিনেতার মধ্যেও নাই – সেটা তারে বুঝতে হবে, এবং সেরা হওয়ার জন্যে কাজ করতে হবে।

  3. shahrukh sakib

    অনেক ভাল লিখসেন হাবিব ভাই, একেবারে একমত আপনার লিখার সাথে, শাকিবের অনেক ক্ষমতা আছে এখন, ইচ্ছা করলেই ও অনেক কিছু করে ফেলতে পারে, পরিচালকরা ওঁর কথা শুনতে বাধ্য থাকবে কারণ ওঁর উপরই এখন একমাত্র ভরসা করা যায় যে লগ্নিকৃত টাকা ফেরত আসবে… ছেলেটার সুমতি হলেই হয় 🙂

মন্তব্য করুন

Shares