Select Page

১৩টি সিনেপ্লেক্সের ঘোষণা মন্ত্রীর, সালমানের নামে শুটিং ফ্লোর নিয়ে বললেন শাকিব

১৩টি সিনেপ্লেক্সের ঘোষণা মন্ত্রীর, সালমানের নামে শুটিং ফ্লোর নিয়ে বললেন শাকিব

বাংলা চলচ্চিত্রের বরপুত্র সালমান শাহ’র ৪৮তম জন্মদিন ছিল ১৯ সেপ্টেম্বর। এ উপলক্ষে টিএম ফিল্মস নিবেদিত ঢুলি কমিউনিকেশনস-এর আয়োজনে রাজধানীর মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে শুরু হচ্ছে সপ্তাহব্যাপী (২০ থেকে ২৬ সেপ্টেম্বর) চলচ্চিত্র উৎসব।

উৎসবের জমকালো উদ্বোধন হলো বৃহস্পতিবার বেলা ১২টায় মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। অন্যদিকে উৎসব উদ্বোধন করেন ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‌‌‘সারা দেশে তৈরি হচ্ছে নতুন সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত ১৩টি সিনেপ্লেক্স। বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে এগুলো নির্মাণ করা হচ্ছে।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘চলচ্চিত্র ও সংস্কৃতিবান্ধব এ সরকার বরাবরই দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে সারা দেশে ২৮টি হাইটেক পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এগুলোর ১৩টিতে আধুনিক প্রযুক্তির সিনেপ্লেক্স যুক্ত করা হচ্ছে। গত মাসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমতি দিয়েছেন।’

তিনি ঢুলি কমিউনিকেশনস ও টিএম ফিল্মস-এর এই আয়োজনের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এই উৎসবের উদ্বোধক ছিলেন শাকিব খান। তিনি বলেন, ‘সালমান শাহের মৃত্যুর এত বছর পরেও তিনি মানুষের কাছে সমানভাবে জনপ্রিয়। কোটি ভক্তের হৃদয়ে জায়গা করে আছেন। তার জন্মোৎসবের আয়োজন উদ্বোধন করতে সংশ্লিষ্টরা আমাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। এটি খুব ভালো উদ্যোগ। এমন উদ্যোগ নিয়মিত হওয়া দরকার।’

উপস্থিত সালমান ভক্তদের দাবি প্রসঙ্গে শাকিব খান বলেন, ‘অন্য অনেকের মতোই সালমান শাহ আমার প্রাণের নায়ক। অনেক দিন ধরে তার নামের এফডিসিতে একটি ফ্লোরের দাবি করা হচ্ছে। সামনেই এফডিসিতে আমার শুটিং আছে তখন আমি তাদের (বিএফডিসি কর্তৃপক্ষ) সঙ্গে আলোচনা করব। যেন সালমান শাহের নামে একটি ফ্লোর বা রাস্তার নামকরণ করা হয়।’

এ ছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন গানবাংলা টিভি ও টিএম ফিল্মসের চেয়ারম্যান ফারজানা মুন্নী, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ফালগুনী হামিদ ও চিত্রনায়িকা শবনম বুবলী। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সালমান শাহর প্রথম ছবির পরিচালক সোহানুর রহমান সোহান ও শেষ ছবির পরিচালক ছটকু আহমেদ। ছিলেন নির্মাতা অরুণ চৌধুরী, এস এ হক অলিক, রেদওয়ান রনি, চিত্রনায়িকা আইরিন সুলতানা, অমৃতা খান, জাহারা মিতু, কণ্ঠশিল্পী আরিফ, সাব্বির, লুইপা, ঐশী, রাশেদসহ সালমান শাহ ভক্তরা।

উৎসবের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক টিএম ফিল্মস-এর চেয়ারম্যান ফারজানা মুন্নী বলেন, ‘সালমান শাহ আমাদের সর্বস্তরের মানুষের কাছে স্বপ্নের নায়ক। তাকে নিয়ে আয়োজিত এই বিশেষ উৎসবের সঙ্গে আমরা যুক্ত হতে পেরে ভালো লাগছে।আমাদের উদ্দেশ্য আগামী প্রজন্মের চলচ্চিত্র নির্মাতা, অভিনয়শিল্পী ও দর্শকদের জন্য একটি আন্তর্জাতিক মানের প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা।’

উৎসবে আরও বক্তব্য রাখেন, সোহানুর রহমান সোহান, ফাল্গুনী হামিদ, ছটকু আহমেদ, অরুণ চৌধুরী, এস এ হক অলিক, শবনম বুবলী, জাহারা মিতু, দেওয়ান হাবিব ও উৎসব আহ্বায়ক নিপু বড়ুয়া।

পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন আনজাম মাসুদ। শুরু হয় সালমান শাহকে নিয়ে তৈরি সিমিত রায় অন্তরের একটি ডকুফিল্ম প্রদর্শনের মাধ্যমে। শেষ হয় জন্মদিনের কেক কাটার মধ্য দিয়ে।

উৎসব আয়োজক ঢুলি কমিউনিকেশনস-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহমুদ মানজুর জানান, ২০ সেপ্টেম্বর থেকে উৎসবে প্রদর্শিত হচ্ছে সালমান শাহ অভিনীত ৭টি বিশেষ সিনেমা। এর মধ্যে রয়েছে ২০ সেপ্টেম্বর ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’, ২১ তারিখ ‘তোমাকে চাই’, ২২ তারিখ ‘মায়ের অধিকার’, ২৩ তারিখ ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ২৪ তারিখ ‘তুমি আমার’, ২৫ তারিখ ‘অন্তর অন্তরে’ এবং উৎসবের পর্দা নামবে ২৬ সেপ্টেম্বর ‘সত্যের মৃত্যু নাই’ ছবিটি দিনব্যাপী প্রদর্শনের মাধ্যমে।

মধুমিতা হল কর্তৃপক্ষ জানায়, শুক্রবারে (২০ সেপ্টেম্বর) মর্নিং শো-সহ চারটি প্রদর্শনী হবে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির। বাকি ছবিগুলোর তিনটি করে শো হবে রোজ। শো টাইম: সকাল ১০টা থেকে ১২ টা (শুক্রবার), বেলা ১২টা থেকে ৩টা, ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা এবং ৬টা থেকে রাত ৯টা।

এর আগে ২০১৪ সালে ঢুলি কমিউনিকেশনসের উদ্যোগে রাজধানীর বলাকা প্রেক্ষাগৃহে অনুষ্ঠিত হয় ‘সালমান শাহ স্মরণ উৎসব’। সে বছর ৬ সেপ্টেম্বর এই নায়কের মৃত্যুবার্ষিকীকে ঘিরে আয়োজিত উৎসবটি ব্যাপক সাড়া ফেলে সারা দেশে।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

স্পটলাইট

Saltamami 2018 20 upcomming films of 2019
Coming Soon
ঈদুল আজহায় কোন সিনেমাটি দেখছেন?
ঈদুল আজহায় কোন সিনেমাটি দেখছেন?
ঈদুল আজহায় কোন সিনেমাটি দেখছেন?

[wordpress_social_login]

Shares