Select Page

সিনেমায় যারা মা

সিনেমায় যারা মা

মা চরিত্র ছাড়া চলচ্চিত্রের কোন গল্পের যেন পরিপূর্ণতা পায় না। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেরও প্রায় প্রতিটি ছবিতে নায়ক-নায়িকাদের পাশাপাশি মায়ের চরিত্রটি সমান গুরুত্ব পেয়ে থাকে। বহু সিনেমা নির্মাণ হয়েছে মাকে নিয়েই। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করে সুনাম অর্জন করেছেন অনেকেই। এদের মধ্যে রয়েছে এক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় নায়িকারাও।

সুমিতা দেবী : বাংলা চলচ্চিত্র ইতিহাসে সুমিতা দেবী একটি অনন্য নাম, যাকে বলা হয় ‘ফার্স্ট লেডি’। ক্যারিয়ারের শুরুতে তাকে নায়িকা হিসেবে দেখা গেলেও সত্তরের দশক থেকে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় শুরু করেন তিনি। ‘১৩ নং ফেকু ওস্তাগার লেন’ ছবিতে মমতাময়ী মায়ের চরিত্রে সম্পুর্ণ আলাদা দেখায় সুমিতা দেবীকে। মা হিসেবে খান আতাউর রহমানের ‘সুজন সখী’ ছবিতে অভিনয় করে তিনি দারুণ প্রশংসা লাভ করেন। এছাড়াও বহু সিনেমায় মা চরিত্রে অনবদ্য অভিনয় করেন সুমিতা দেবী।

রানী সরকার : ষাটের দশক থেকে আশির দশক বাংলা চলচ্চিত্রে নিয়মিত মায়ের চরিত্রে অভিনয় করতেন।কোমলময়ী কিংবা রাগী সব চরিত্রেই তিনি অসাধারণ ছিলেন। কাঁচের দেয়াল, ফেরারী বসন্ত, স্বামী স্ত্রী’সহ বহু ছবিতে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন রানী সরকার।

রওশন জামিল : সত্তর ও আশির দশকের আরেকজন জনপ্রিয় ও শক্তিশালী মা হলেন রওশন জামিল। সূর্যগ্রহণ, মাটির ঘর, বউ শাশুড়ি, পেনশনসহ অসংখ্য চলচ্চিত্রে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। অনেকটা কড়া মায়ের চরিত্রে অভিনয় করলেও দর্শকদের প্রিয় মুখ হয়ে ওঠেন জাতীয় পুরস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী।

মিরানা জামান : সাদাকালো যুগে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করে যারা সুপরিচিতি পেয়েছেন তাদের মধ্যে অন্যতম এই মিরানা জামান।মতি মহল, নতুন বউ’সহ বহু ছবিতে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি।

রোজী আফসারী : রোজী আফসারীকে বলা হয় বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মায়াবী চেহারার মা। সত্তর ও আশির দশকে বহু ছবিতে রোজী আফসারী মায়ের চরিত্রে অভিনয় করে দারুণ জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তিনি দ্বীপ নেভে নাই, তিতাস একটি নদীর নাম, গোলাপী এখন ট্রেনে, নরম গরম, অশিক্ষিত’সহ বেশ কিছু জনপ্রিয় ছবিতে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন।

মায়া হাজারিকা : বাংলা চলচ্চিত্রের চিরাচরিত মা তিনি নন, বেশ অহংকরী এই মায়া হাজারিকা।সন্তানদের ভালোবাসায় তিনি বাধা হয়ে দাঁড়াতেন।তিনি সীমানা পেরিয়ে, অনুরাগ’সহ অনেক ছবিতে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন।

আয়শা আখতার : বাংলা চলচ্চিত্রের নির্ভেজাল মা তিনি, দুঃখ-কষ্টেও তাঁর হাসিমুখ ছিল চির অমলিন।আশির দশকে তিনি হয়ে উঠেন অন্যতম জনপ্রিয় মা।জাতীয় পুরস্কার জয়ী এই গুণী অভিনেত্রী আয়শা আখতার রজনীগন্ধ্যা, অনুরাগ, নদীর নাম মধুমতি’সহ বহু ছবিতে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন।

আনোয়ারা : বাংলা চলচ্চিত্রে সবচেয়ে বেশি ছবিতে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করা অভিনেত্রী হলেন আনোয়ারা। সেই হিসেবে তাকেই বাংলাদেশের ছবিতে সবচেয়ে জনপ্রিয় মা হিসেবে গণ্য করা হয়। নতুন ও পুরাতন মিলিয়ে দেশের প্রায় সব নায়ক-নায়িকাদেরই মা হয়েছেন তিনি। আটবার জাতীয় পুরস্কার জয়ী এই অভিনেত্রী মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন গোলাপী এখন ট্রেনে, শুভদা, দাঙ্গা, রাধা কৃষ্ণ,  ভাত দে, বর্তমান, শ্রাবণ মেঘের দিনের মতো জনপ্রিয় সব ছবিতে।

মিনু রহমান :  আশির দশকের বাণিজ্যিক ছবিতে তিনি ছিলেন প্রায় নিয়মিত।সেই সময়ের সব বড় তারকাদের মা হয়েছেন তিনি।কোমলমতী কিংবা বদমেজাজী সব চরিত্রেই অভিনয় করেছেন তিনি।’সৎ ভাই’ ছবিতে তাঁর অসাধারণ অভিনয় এখনো সবার চোখে ভাসে। চলচ্চিত্রে তিনি নায়ক জসিমের মা বলে খ্যাত।

শবনম : শবনম প্রধানত নায়িকা হিসেবে চলচ্চিত্রে এলেও পরে তিনি মা হিসেবেও নিজেকে সুন্দরভাবে মেলে ধরেন। ‘আম্মাজান’ ছবিতে অভিনয় করে দারুণ আলোচিত হন তিনি।এছাড়া সন্ধি, দিল ছবিতেও তিনি মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন।

শাবানা : বাংলা চলচ্চিত্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা শাবানা, মা হিসেবেও পর্দায় ভীষন জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন তিনি।মায়ের আবেগময়ী ভূমিকায় শাবানা ছিলেন অপ্রতিদ্বন্দী। দশবার জাতীয় পুরস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী অপেক্ষা,মরণের পরে, সত্য মিথ্যা, সত্যের মৃত্যু নেই, পিতা মাতা সন্তান, রাগ অনুরাগ, অজান্তে, মা যখন বিচারক’সহ অসংখ্য ছবিতে মায়ের ভূমিকায় তিনি অসাধারণ অভিনয় করেন।

সুষমা : বাংলা চলচ্চিত্রে সুষমা কুটিল অভিনেত্রী হিসেবে পরিচিত, তিনি বেশ কয়েকটি ছবিতে কুটিল মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন, এর মধ্যে লক্ষ্মীর সংসার, ছোট বউ, মায়ের দোয়া অন্যতম।

ডলি জহুর : শুরুতে টেলিভিশন অভিনেত্রী থাকলেও পরে চলচ্চিত্রেও মা হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন ডলি জহুর। ‘এইসব দিন রাত্রী’ নাটকে টুনির মা চরিত্রে অভিনয় করে বিপুল প্রশংসা অর্জন করেন তিনি যা তাকে চলচ্চিত্রে অভিনয়ে উৎসাহ দেয়,পরবর্তীতে তিনি হয়ে উঠেন নব্বই পরবর্তী সবচেয়ে জনপ্রিয় মা।সুনিপুন অভিনয়ে তারকা কিংবা দর্শক সব জায়গায় তিনি হয়েছেন প্রিয় মা।জাতীয় পুরস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী আগুনের পরশমনি, লাভ স্টোরি, আনন্দ অশ্রু, বাবা কেন চাকর, সন্তান যখন শত্রু, প্রিয়জন, নিরন্তর, ঘানি, দারুচিনি দ্বীপ’সহ অসংখ্য জনপ্রিয় ছবিতে মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করে প্রশংসিত হন।

খালেদা আক্তার কল্পনা : বাংলা চলচ্চিত্রে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করা একজন সফল অভিনেত্রী। অভিনয়ের কারণে একসময় শিক্ষকতা পেশা ছেড়ে দেন তিনি। এদেশের দর্শকের কাছে মা চরিত্রে অভিনয় করে তিনি হয়ে উঠেছেন একজন অনন্য অসাধারণ অভিনেত্রী। তার অভিনীত প্রায় পাঁচ শতাধিক চলচ্চিত্রে নায়ক রুবেলের মায়ের চরিত্রে বেশি দেখা গেছে তাকে। জাতীয় পুরস্কার জয়ী এই অভিনেত্রীর উল্লেখযোগ্য ছবি জ্বীনের বাদশা, রাধাকৃষ্ণ, মায়ের কান্না, স্বপ্নের পুরুষ ও মৃত্যুদণ্ড।

শর্মিলী আহমেদ : চলচ্চিত্রে প্রথমে তিনি অভিনয় করেছেন নায়িকা চরিত্রে। হাতেগোনা ক’টি ছবিতে নায়িকা ছিলেন শর্মিলী আহমেদ। এরপর নায়িকা থাকা অবস্থায় প্রথম মায়ের চরিত্রে অভিনয় করলেন ১৯৭৬ সালে ‘আগুন’ ছবিতে। এই ছবি দ্বৈত চরিত্রে রাজ্জাক তার স্বামী ও ছেলের অভিনয় করেন। তারপর মমতাময়ী মায়ের রূপে নিয়মিত টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে হাজির হয়েছেন শর্মিলী আহমেদ। দহন, প্রেমিক, প্রেমের প্রতিদান, ত্যাগ’সহ বেশকিছু ছবিতে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন।

সুচরিতা : বাংলা চলচ্চিত্রের ড্রিম গার্ল খ্যাত জনপ্রিয় নায়িকা সুচরিতা নব্বইয়ের শেষে এসে মায়ের ভূমিকায় নিয়মিত অভিনয় করা শুরু করেন। কোটি টাকার কাবিন, পিতার আসন, কত যে আপন, টাকা, জান আমার জান, ঢাকাইয়া পোলা বরিশালের মাইয়া, ঘরের লক্ষ্মী, মা আমার চোখেত মনি’সহ বেশ কিছু ছবিতে তিনি মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। জাতীয় পুরস্কার জয়ী সুচরিতা, চাষী নজরুল ইসলামের ‘হাঙ্গর নদী গ্রেনেড’ ছবিতে অসাধারণ অভিনয় করেছিলেন। মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক এ ছবিতে প্রথমে দুরন্ত কিশোরী এবং পরে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন। দেশের জন্য নিজের সন্তানকে উৎসর্গের দৃশ্যটি এখনও দর্শকদের হৃদয়ে দাগ কেটে আছে।

ববিতা : বাংলা চলচ্চিত্রের হার্টথ্রুব অভিনেত্রী ববিতা, নায়িকা হিসেবে বেশ সফল।তবে মায়ের ভূমিকায় নিজের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি, এই চরিত্রে তিনি উচ্চকিত অভিনয় করেন প্রায়ই।এর মাঝে দুটি চলচ্চিত্রে মায়ের ভূমিকায় তিনি অভিনয় করে বেশ প্রশংসিত হয়েছিলেন একটি বসুন্ধরা,অন্যটি হাছন রাজা।সাতবার জাতীয় পুরস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী নব্বইয়ের মাঝামাঝি এসে নিয়মিত মায়ের চরিত্রে অভিনয় করা শুরু করেন। এর মধ্যে মহামিলন, মায়ের অধিকার, প্রাণের চেয়ে প্রিয়, অবুঝ বউ, খোদার পরে মা, মনের জ্বালা, পুত্র যখন পয়সাওয়ালা অন্যতম।

রাশেদা চৌধুরী : নব্বই দশকের শেষে এসে বাংলা চলচ্চিত্র মায়ের চরিত্রে আবিষ্কার করে রাশেদা চৌধুরীকে।এই অভিনেত্রীর আলোচিত ছবিগুলোর মধ্যে ম্যাডাম ফুলি, ভেজা বেড়াল, টাকা, ক্ষুদে যোদ্ধা, কাল সকালে, চার সতীনের ঘর অন্যতম।

এছাড়া শারমিন, রেহানা জলি, রেবেকা’সহ অনেক অভিনেত্রী মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তবে তাঁরা কেউই দর্শকদের মনে সেভাবে জায়গা করে নিতে পারেননি।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

স্পটলাইট

Saltamami 2018 20 upcomming films of 2019
Coming Soon

[wordpress_social_login]

Shares