Select Page

‘হাওয়া’র শুটিং শুরু

‘হাওয়া’র শুটিং শুরু

প্রথম চলচ্চিত্র ‘হাওয়া’র শুটিং শুরু করলেন তিন শতাধিক বিজ্ঞাপন, একগুচ্ছ প্রশংসিত নাটকের নির্মাতা মেজবাউর রহমান সুমন। ছবিটিতে অভিনয় করছেন চঞ্চল চৌধুরী, শরিফুল রাজ ও নাজিফা তুষি।

চ্যানেল আই অনলাইন জানায়, রবিবার সেন্টমার্টিন দ্বীপে ‘হাওয়া’র শুটিং শুরু হয়। সেখানে মাসভর  চলবে দৃশ্যায়ন।

বেশিরভাগ শুটিং দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপে। বাকি কাজ হবে কক্সবাজার ও টেকনাফ এলাকায়।কয়েকদিন আগে ‘হাওয়া’র শুটিং ইউনিট সেখানে পৌঁছালেও  রবিবার শুরু হলো শুটিং। গত কয়েকদিন ধরে ইউনিটের প্রত্যেকেই রিহার্সালে অংশ নিয়েছেন। প্রতিকূল পরিবেশে শুটিংয়ে দীক্ষা নিয়েছেন।

মেজবাউর রহমান সুমন তার ‘হাওয়া’ চলচ্চিত্রে প্রসঙ্গে জানান, এটি মাটির গল্প নয় বরং পানির গল্প, সমুদ্রের গল্প।তিনি এর আগে বলেছিলেন, ”সমুদ্র এমন এক বিশালতার নাম যার পাড়ে বসে আমরা সাধারণ মানুষ এর সৌন্দর্য দেখি, রোমান্টিসিজমে ভুগি। এর পাড়ের মানুষগুলোর গল্প জানলেও জানি না সমুদ্রে চলাচলরত মানুষগুলোর ভেতরের গল্প। সেখান থেকে ফেরার গল্প হয়তো জানি, কিন্তু না ফেরার গল্প আমরা ক’টা জানি? এই না জানা মৌলিক গল্পটিই আমি আমার এই সিনেমার মাধ্যমে জানাতে চাই।”

সম্পর্ক, প্রতিশোধ এবং মৃত্যুকে উপজীব্য করে এই গল্প সাজিয়েছেন মেজবাউর রহমান সুমন। এটি মাটির গল্প নয় বরং পানির গল্প। সমুদ্র পাড়ের মানুষ প্রধান উপজীব্য হলেও সমুদ্র পাড়ের গল্প নয় বরং সমুদ্রের গল্প থাকছে এখানে।

নির্মাতা সুমনের ভাষ্য, ‘হাওয়া’র প্রধান উপাদান সমুদ্র, ঢেউ আর একটি ট্রলার।

‘হাওয়া’ চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণে আছেন কামরুল হাসান খসরু। প্রযোজনা করছে সান মিউজিক এন্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড।

এর আগে রাজ-তুষির অভিষেক সিনেমা ‘আইসক্রিম’-এর কিছু অংশের দৃশ্যায়ন হয় সেন্টমার্টিনে। তবে দ্বীপে রাজের কোনো দৃশ্য ছিলো না।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?

সাম্প্রতিক খবরাখবর

[wordpress_social_login]

Shares