Select Page

অগ্নি ২ : আন্তর্জাতিক পরিসরে সামর্থ্যের উজ্জ্বল চিহ্ন

অগ্নি ২ : আন্তর্জাতিক পরিসরে সামর্থ্যের উজ্জ্বল চিহ্ন

-agnee-2

ঈদে সবসময় বলাকাতে সিনেমা দেখতে পছন্দ করি। তাই মধ্যবিত্ত মানুষের রিভিউ বুঝতে সুবিধা হয়। কিন্তু ‘অগ্নি ২’ বলাকাতে না আসায় যেতে হল মধুমিতা সিনেমা হলে। এখানে মধ্যবিত্তের পাশাপাশি নিম্নবিত্তের যথেষ্ট মানুষের আনাগোনা দেখলাম। আর শোনার সুযোগ পেলাম তারা আসলে কেমন মুভি চায়, কেন চায়।

শুরুতে কলাকুশলীর নাম ভালো করে লক্ষ্য করলাম। প্রত্যেকটি সেক্টরে যারা কাজ করেছে তাদের অর্ধেক বাংলাদেশের, অর্ধেক ভারতের। এটা দেখে অনেক ভালো লাগল। অবশেষে একটি সিনেমাকে সত্যিকারার্থে আমি যৌথ প্রযোজনার সিনেমা বলতে পারলাম। যদিও জাজ মাল্টিমিডিয়া গোটা সিনেমার ৭০ ভাগ খরচ বহন করেছে, তাই এই সিনেমা ছিল জাজের প্রকৃত সক্ষমতা পরিমাপের মাপকাঠি।

অনেক গৌরচন্দ্রিকা করলাম, এবার আসল জায়গায় আসি। প্রথমে দেখা যায় তানিশার ভালোবাসা ড্রাগন বা শিশির তথা আরিফিন শুভকে হত্যা করেছে পাইথন, যে কিনা অগ্নির মেইন ভিলেন গুলজারের ভাই। শুভর হত্যার প্রতিশোধ নিতে মাহি তার ‘অগ্নি ২’ মিশন শুরু করে। নানা ঘটনাক্রমে সিনেমার নায়ক ওম জড়িয়ে যায় অগ্নির এই মিশনে। অগ্নি জানে না পাইথন কে। সে কি শিশিরের হত্যার প্রতিশোধ নিতে পারবে? জানতে হলে দেখতে হবে ‘অগ্নি ২’।

‘অগ্নি ২’র স্টোরি বেশ পাকাপোক্ত ও ভালো। সিনেমার প্রথম অর্ধেক বেশ দ্রুত এগিয়েছে, দ্বিতীয় অর্ধেক ছিল স্বাভাবিক গতিতে। ১০টি এ্যাকশন দৃশ্য ছিল। প্রত্যেকটি দৃশ্য ছিল দুর্দান্ত। মাহি ফাটিয়ে মারপিট করেছেন। থাইল্যান্ডে ওর ফাইটিং ট্রেনিং নেয়া সার্থক। এই সিনেমার এ্যাকশনকে দশে দশ দিবো। কতদিন আশায় ছিলাম এ রকম ফাইট দেখব বাংলা সিনেমায়। দর্শক ভীষণ উপভোগ করেছে ফাইট সিকুয়েন্স। এন্ডিং আরেকটু ভালো হলে দর্শক হয়ত বেশি খুশি হতো।

নির্মাণ নিয়ে বলতে গেলে প্রথমেই বলা দরকার বহুজাতিক সিনেমা, সিনেমার বেশিরভাগ চরিত্র থাইল্যান্ডের। এ ছাড়া দক্ষিণ ভারত, কলকাতা, বাংলাদেশ, পাঞ্জাবী চরিত্র ছিল। কোন চরিত্র অপ্রাসঙ্গিক লাগেনি। এত বড় পরিসরে এতগুলো আলাদা চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে পরিচালক ও স্ক্রিপ্ট লেখক উভয়ই সফল হয়েছেন। আবদুল্লাহ জহির বাবুইফতেখার চৌধুরী দু’জনই এজন্য বাহবা পাবেন। কারণ কাজটা খুবই কঠিন ছিল। তবে থাই, তামিল, হিন্দি ভাষায় বলা কিছু সংলাপ আছে— যেগুলোতে সাবটাইটেল ছিল না বলে ভালো লাগেনি।

agnee-3-640

ক্যামেরার কাজ জাস্ট দুর্দান্ত। বাংলা সিনেমায় সিনেমাটিক ভাবটা কেন জানি পাই না। ‘অগ্নি ২’র ঝকঝকে ছবি, ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ও ভিজুয়াল ইফেক্ট আপনাকে মুগ্ধ করতে বাধ্য। মনে প্রশ্ন এসেছে অন্য সিনেমাগুলোতে এই সিনেমাটিক ইফেক্ট পাই না কেন?

সিনেমার প্রাণ ছিল গানগুলো। প্রত্যেকটি শ্রুতিমধুর, গুনগুনিয়ে গাওয়ার মতো এবং কোরিওগ্রাফি দুর্দান্ত। কিন্তু বেশ কিছু দৃশ্যে অতিরিক্ত খোলামেলা পোশাকে মেয়েদের দেখানো হয়েছে যা যথেষ্ট আপত্তিকর লেগেছে। সেন্সর বোর্ড এতো বেশি ভায়লেন্স ও অর্ধনগ্ন মানুষ দেখানোর পরও কিভাবে সাধারণ গ্রেডে ছাড়পত্র দেন বুঝলাম না।

চরিত্রগুলোর ব্যাপারে যদি বলি, মাহি খুবই ভালো অভিনয় করেছে। সারা সিনেমায় নিজের উপর ফোকাস রাখা এতো সহজ না। নায়ক হিসেবে ওমকে বেশ ভালো লেগেছে। আফসোস! বাংলাদেশে ওমের সাথে পাল্লা দেওয়ার মতো অভিনয় শাকিব খান আর শুভ ছাড়া কারো পক্ষে করা সম্ভব ছিল না। ওম এনারজেটিক, নিজের চরিত্রে মিশে গিয়েছিলেন। নাচেনও অসাধারণ। খরাজ মুখার্জি এ রকম এ্যাকশন সিনেমাতেও অনেক হাসিয়েছেন। ভিলেন হিসেবে আশিষ বিদ্যার্থী বেশ ভালো করেছেন। এ ছাড়া বাকিরাও নিজ নিজ চরিত্রে প্রাণবন্ত ছিলেন। কিন্তু মিশা সওদাগরের মত বলিষ্ঠ অভিনয় খুব মিস করেছি।

সিনেমা প্রথম থেকে প্রেডিকটেবল লাগছিল। কিন্তু শেষ দিকের একটা চমৎকার টুইস্ট বাজি মেরে দিয়েছে। ওস্তাদের মার আসলেই শেষ রাতে!

সবশেষে যদি বলি ‘অগ্নি ২’ কেমন লেগেছে? আমি বলব সিনেমাটি প্রমাণ করেছে আন্তর্জাতিক পরিসরে বহুজাতিক অভিনেতা নিয়ে বড় বাজেটে সিনেমা বানাতে আমাদের চলচ্চিত্র প্রস্তুত। এর বড় প্রমাণ ‘অগ্নি ২’। আমরা চাইলেই পারি। নিজেদের উপর আস্থা রাখলে আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে আমরা অবশ্যই নিজেদের রিপ্রেজেন্ট করতে পারি। ‘অগ্নি ২’ এটাও চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় আমাদের ভালো নায়কের সঙ্কট আছে। এক–দুইজন নায়ক দিয়ে একটা ইন্ডাস্ট্রি চলতে পারে না।

1434642739_agnee-2

‘অগ্নি ২’ কমার্শিয়াল ছবি হিসেবে বেশ ভালো নির্মাণ। আমি এই সিনেমাকে দশে আট দিবো। যারা এ্যাকশন প্রিয়, আমাদের সিনেমার ক্রম ধাবমান বিপ্লবের সঙ্গী হতে চান এবং যারা বাংলা সিনেমা নিয়ে নাক সিটকান— তাদের সবার ‘অগ্নি ২’ দেখা দরকার। অন্তত সিনেমাটাকে পচানোর জন্য হলেও দেখবেন।

আমাদের সিনেমা আসলেই বড়সড় বিপ্লবের দিকে যাচ্ছে। আর হ্যা ‘অগ্নি ২’ হাউসফুল ছিল এবং আমি মধ্যবিত্তের পাশাপাশি নিম্নবিত্তের চোখে মুখে সন্তুষ্টি দেখলাম। আশা করি এই ঈদে মুক্তি পাওয়া প্রতিটি সিনেমা আপনারা দেখবেন এবং বাংলা সিনেমার পাশেই থাকবেন।

 


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?

[wordpress_social_login]

Shares