Select Page

অপুর হাতে ১১ ছবি

অপুর হাতে ১১ ছবি

একযুগ আগে ‘সিটিবাস’ নাটক দিয়ে দর্শকদের কাছে প্রথম পরিচিতি পেয়েছিলেন রাশেদ মামুন অপু। এটি প্রচারের পর ‘মামুর বেটা নাকি’, ‘আমি তোতা মিয়া’, ‘যবের ব্যাপার’, ‘ছোট ভাইকে পাশতেই পারছেন না’সহ বেশকিছু সংলাপ দর্শকদের মুখে মুখে ঘুরেছে অনেকদিন।

বড়পর্দায় নোমান রবিনের ‘কমন জেন্ডার’ ছবিটি প্রথম করেন। তবে রায়হান রাফী ‘দহন’-এর একটিমাত্র সিন বড়পর্দায় তাকে অপরিহার্য করে তোলে। একই নির্মাতার ‘জানোয়ার’ দিয়ে সম্প্রতি তুমুল আলোচনায় অপু। জানালেন টানা ১১টি সিনেমা শেষ করেছেন।

তাকে নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বাংলা ট্রিবিউন। সেখান থেকে জেনে নিন তার ব্যস্ততার খবর।

জানোয়ার, নবাব এলএল.বি, ট্রল- ওয়েব ফিল্মে তাকে দর্শকরা ইতোমধ্যে দেখেছেন। কাজ করেছেন- দামাল, গাংচিল, পরাণ, বর্ডার, মুক্তি; নামের ছবিতে। আর সম্প্রতি চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন ‘কসাই’ ও ‘যাও পাখি বলো তারে’ সিনেমায়। বিচিত্র সব চরিত্রগুলো।

সাম্প্রতিক সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে সবচেয়ে আলোচিত কাজ হিসেবে প্রশংসা পাচ্ছে ওয়েব ফিল্ম ‘জানোয়ার’। আর সেখানে বেশিরভাগই কৃতিত্ব দিচ্ছেন এই অভিনেতাকে।

করোনাকালের পর শুধু চলচ্চিত্র নিয়েই সময় পার করছেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘‘আমার জায়গা থেকে আমি সবসময় শতভাগ ঢেলে দিয়েছি। কিন্তু ‘জানোয়ার’ আমাকে যে জায়গায় নিয়ে গেছে, তা আগে কখনও যেতে পারেনি। ছবিতে তো আমি একজন ভিলেন, কিন্তু মানুষ আমাকে এমনভাবে মূল্যায়ন করছে যে আপ্লুত হয়ে পড়ছি। তারচেয়েও বড় কথা, ওটিটি প্ল্যাটফর্ম আসলে আমাদের প্রশংসা পাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে। এর আগেও তো অনেক ভালো কাজ করেছি, কিন্তু দর্শকদের সংস্পর্শে এতটা আসতে পারিনি।’’

এরমধ্যে ‘কসাই’ ছবিতে প্রথমবারে মতো স্বনামে আসবেন তিনি। এটি পরিচালনা করছেন অনন্য মামুন।

ক্যারিয়ারের সবচেয়ে সুসময় পার করছেন অপু। তারপরও নাকি আছেন ‘খুব চাপে’। তার মতে, এখন তিনি নিজেই নিজের সবচেয়ে বড় বাধা। আগের চরিত্র ছাপিয়ে যাওয়ার যে প্রচেষ্টা করেন তিনি, ‘জানোয়ার’ তা কঠিন চ্যালেঞ্জে ফেলে দিয়েছে। চাইছেন, সেটাকেও উতরে যেতে।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Shares