Select Page

ইমরান মাহমুদুলের ৫১ গান দেখা হয়েছে ১৩৫ কোটির বেশিবার

ইমরান মাহমুদুলের ৫১ গান দেখা হয়েছে ১৩৫ কোটির বেশিবার

সিনেমা ও ইউটিউব কেন্দ্রিক শিল্পী হিসেবে ইমরান মাহমুদুল জনপ্রিয়তা পান আধা যুগেরও বেশি আগে। এর মাঝে অর্ধশতাধিক গানের দর্শক ভিউ কোটির ঘর ছাড়িয়েছে। যা দুই বাংলা মিলিয়ে কোনো শিল্পীর দখলে এমন রেকর্ড নেই বলে মনে করেন রিয়্যালিটি শো থেকে উঠে আসা এই তারকা।

১ কোটি থেকে ১০ কোটি পর্যন্ত ভিউ হয়েছে, এমন ৫১টি গানের তালিকা গত বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) রাতে নিজের ফেসবুক পেজে প্রকাশ করেছেন এই সংগীতশিল্পী। ওই দিন তালিকায় থাকা সবগুলো গানের ভিডিওয়ের মিলিত ভিউ প্রায় ১৩৫ কোটি। তালিকার বাইরে থাকা গান মিলিয়ে ১৫০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে নিসন্দেহে!

এই তালিকায় বিভিন্ন শিল্পীর সঙ্গে দ্বৈত গাওয়া গান আছে ২৯টি। বাকিগুলো তাঁর একক গাওয়া। কোটি ভিউ হওয়া গানের তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন ‘মন জানে’। এটি ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’ ছবির গান। দ্বৈত গানটিতে ইমরানের সঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন কনা।

৫১টি গানের এই তালিকায় সর্বোচ্চ ভিউ হওয়া গান বসগিরি সিনেমার ‘দিল দিল’। বর্তমানে গানটির ভিউ সাড়ে ১০ কোটি ছাড়িয়েছে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৯ কোটি ২০ লাখ ভিউ হয়েছে পোড়ামন–২–এর ‘ওহে শ্যাম’ গানটি। দুটি গানই ইমরান ও কনার গাওয়া।

ইমরানের দেয়া ৫১ গানের তালিকা

এই অর্জন নিয়ে প্রথম আলোকে ইমরান বলেন, ‘এটি নিঃসন্দেহে বাংলাদেশি হিসেবে আমার জন্য আনন্দের, গর্বের। টানা কোটি ভিউয়ের গান উপহার দেওয়া কঠিন। ধারাবাহিকভাবে এটি অব্যাহত রাখা চ্যালেঞ্জের ব্যাপার। কিন্তু আমি সেই ধারা অব্যাহত রাখার চেষ্টা করে গেছি, যাচ্ছি। এটি সম্ভব হয়েছে, হচ্ছে শ্রোতা-দর্শকের গানের প্রতি বিশ্বাস, ভালোবাসা থেকে। শ্রোতা–দর্শক ছাড়াও গানগুলোর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট গীতিকার, সুরকার, ভিডিও নির্মাতা, সিনেমার প্রযোজক–পরিচালক, নায়ক–নায়িকা—সবার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।’

সাত বছর আগেই বাংলা গানে দর্শক ভিউয়ের রেকর্ড গড়েন ইমরান। ২০১৫ সালে তাঁর গাওয়া ‘বলতে বলতে চলতে চলতে’ প্রথম বাংলা গান হিসেবে কোটি ভিউয়ের মাইলফলক ছোঁয়। গানটির সঙ্গে তাঁর আবেগের যোগ আছে জানিয়ে ইমরান বলেন, ‘গানটির রেকর্ডের সঙ্গে আমার আবেগ জড়িয়ে আছে। গানটির বর্তমান ভিউ ৮ কোটি ২০ লাখ। এ ছাড়া বিশ্বসুন্দরী সিনেমার “তুই কি আমার হবি রে” গানটি আমাকে আবেগপ্রবণ করেছে, যার বর্তমান দর্শক ভিউ ৭ কোটি ২০ লাখ। গানটি গেয়ে আমি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, মেরিল–প্রথম আলো পুরস্কার ও চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছি।’

ইমরান বলেন, ‘সময়ের বিবর্তনে অ্যালবাম সংস্করণ থেকে বের হয়ে ইউটিউব প্ল্যাটফর্মে প্রবেশ করে মিউজিক ইন্ডাস্ট্রি। আমি অত্যন্ত ভাগ্যবান, গান প্রকাশের ধরনে পরিবর্তন এলেও আমার প্রতি শ্রোতা-দর্শকের ভালোবাসা কমেনি। ইউটিউবে প্রকাশিত আমার প্রথম গান (বলতে বলতে চলতে চলতে) অল্প দিনেই রেকর্ড গড়ে কোটি ভিউ পার হয়ে যায়। ৭ বছরের ব্যবধানে ৫১টি গানের দর্শক ভিউ কোটির মাইলফলক স্পর্শ করেছে।’

কোটি ভিউ হওয়া অর্ধশতাধিক গানের মধ্যে ইমরানের পছন্দের গান কোনগুলো? এই সংগীতশিল্পী বলেন, তার নিজের বেশি পছন্দের গান হাতে গোনা, সবচেয়ে বেশি পছন্দ ‘সবাই চলে যাবে’। এর ভিউ প্রায় দেড় কোটি। আরও পছন্দের গান আছে, যেগুলোর কোটি ভিউ হয়নি। এই গায়ক জানান, ‘আমার ইচ্ছে কোথায়’, ‘ক্ষয়’ ও ‘শুধু তোমায় ঘিরে’ তাঁর খুব পছন্দের গান, তবে সেগুলোর কোটি ভিউ হয়নি।

২০০৮ সালে চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠের মাধ্যমে সংগীতাঙ্গনে পা রাখেন তিনি। এরপর প্রকাশিত হয় তাঁর একাধিক একক ও মিশ্র অ্যালবাম।

এ দিকে ইউটিউবে এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে বেশিবার দেখা বাংলা গান হলো আরমান আলিফের ইতিহাস তৈরি করা ‘অপরাধী’, প্রায় ৩৫ কোটি। এ ছাড়া এই গায়কেরর ‘নেশা’ শোনা হয়েছে প্রায় ২০ কোটিবার, অন্য গান ‘বেইমান’ প্রায় ১১ কোটিবার। ‘কার বুকেতে হাসো’ গানের ভিউ ৬ কোটিবারের বেশি। অর্থাৎ, এই চারটি গানের ভিউ ইমরানের কোটির বেশি ভিউ পাওয়া ৫১টি গানের প্রায় অর্ধেক।


মন্তব্য করুন

Shares