Select Page

খসরুর দুঃখ প্রকাশ, নওশাদ বললেন, ‌‘ক্ষোভ নেই’

খসরুর দুঃখ প্রকাশ, নওশাদ বললেন, ‌‘ক্ষোভ নেই’

যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মাণে অনিয়ম নিয়ে চলমান আন্দোলনে সিনেমা হল মালিক সমিতির সভাপতি ইফতেখার উদ্দিন নওশাদের গায়ে হাত তুলেছিলেন চলচ্চিত্র পরিবারের বেশ ক’জন নেতাকর্মী। সেই অভিযোগে দায়ী ছিলেন চলচ্চিত্র প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু।

রোববার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে চলচ্চিত্র পরিবার ও চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির মিলনমেলা অনুষ্ঠানে প্রযোজক খসরু প্রদর্শক সমিতির নেতা নওশাদকে ‘প্রিয় বড় ভাই’ দাবি করে ভুল বোঝাবুঝির জন্য ক্ষমা চেয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন। এদিকে নওশাদ সেদিনের ঘটনায় তার কোনো ‘ক্ষোভ’ নেই বলে জানান।

এরপর খসরু বলেন, ‘সিনেমা হল মালিক নেতার প্রতি নয়, ক্ষোভ ছিল সেন্সর বোর্ডের সদস্যের প্রতি। তবে যা হয়ে গেছে, তা তো গেছেই। সবকিছুর জন্য আমি ব্যাক্তিগত ভাবে ক্ষমা চাই। তিনি (নওশাদ) আমার বড় ভাই। দেখা হলেই বুকে টেনে নেন। তারসঙ্গে এখনো সখ্যতার অভাব নেই। আমরা মিলেমিশে থাকব।’

খসরু আরও বলেন, ‘চলচ্চিত্রের স্বার্থে কোনো কম্প্রোমাইজে যাবো না। আমাদের হল দখল করে সংকটে ফেলা হচ্ছে। অনেক ভাল সিনেমা হল পলিটিক্সে ক্ষতির মুখে পড়ছে। কী অন্যায় কোটি কোটি টাকা লগ্নি করা প্রযোজকদের! জাজ মাল্টিমিডিয়া অনেকদিন ধরেই চলচ্চিত্রকে নির্যাতন করছে।’

এদিকে নওশাদ বলেন, ‘একজনের গায়ে হাত তোলা সবসময়ই কষ্টের। আমার মনেও কষ্ট ছিল। তবে আজকের এ চমৎকার আয়োজনের পর আমার আর কোনো ক্ষোভ নেই। আমরা এখন থেকে সবাই বন্ধু। চলুন এক হয়ে কাজ করি। সবাই ভালো থাকুন, সবার জন্য আমার শুভ কামনা।’

নওশাদ একতাবদ্ধ হয়ে চলচ্চিত্রের সুদিন ফিরিয়ে আনতে আহবান জানিয়ে বলেন, ‘অনেকদিন পর ঢাকা অ্যাটাক ছবিটি হাউজফুল যাচ্ছে। আমরা চাই এভাবে সব ছবি দর্শক জয় করুক। চলচ্চিত্রের প্রবীণ মানুষ ফারুক সাহেব, সোহেল রানা সাহেব আছেন। তাদের মতো তারকা ও নেতাদের হাত ধরে চলচ্চিত্রের সুদিন ফিরে আসুক।

মিলনমেলা অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র পরিবারের আহ্বায়ক চিত্রনায়ক ফারুক, সাধারণ সম্পাদক শোয়েব আহমেদ, হাসান ঈমাম, সোহেল রানা, আমজাদ হোসেন, সোহানুর রহমান সোহান, অঞ্জনা সুলতানা, মিশা সওদাগর, জায়েদ খান, সাইমন, অরুণা বিশ্বাসসহ হল মালিক ও চলচ্চিত্র পরিবারের নেতাকর্মীরা। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন চিত্রনায়ক রিয়াজ।

সূত্র : জাগো নিউজ


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

Shares