Select Page

নায়করাজের সম্মান রাখবেন আলমগীর-ফারুক

নায়করাজের সম্মান রাখবেন আলমগীর-ফারুক

শনিবার বাবা নায়করাজ রাজ্জাকের স্মরণসভায় এসে পুত্র বাপ্পারাজ অনেক অভিমানী কথা শোনালেন। তার বাবাকে নিয়ে কিছু ভুল ধারণার জবাবও দিলেন। এবং চলচ্চিত্রের সংকট কাটাতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান করেন এই অভিনেতা।

সেই আহ্বানের প্রেক্ষিতে নায়করাজকে নিয়ে বলতে গিয়ে আশ্বস্ত করলেন অভিনেতা আলমগীর। তিনি রাজ্জাককে বড়ো ভাইয়ের মতোন দেখতেন বলে জানালেন। এরপর তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় সবার কাছে দোয়াও চাইলেন।

এরপর বাপ্পারাজকে উদ্দেশ্য করে আলমগীর বলেন, ‘বাপ্পাকে বলছি, আমাদের চলচ্চিত্র পরিবার এক থাকবে। ভাইয়ে ভাইয়ে ঝগড়া হতে পারে, দ্বন্দ্ব হতে পারে এমনকি মারামারিও হতে পারে। কিন্তু আমি কথা দিচ্ছি এই দ্বন্দ্ব যতো দ্রুত সম্ভব আমরা মিটমাট করবো। এই চলচ্চিত্রকে নিয়ে রাজ্জাক ভাই যে স্বপ্ন দেখতেন সেই স্বপ্ন আমরা বাস্তবায়ন করবো। এটা কথা দিলাম।’

এদিকে ফারুক বলেন, ‘মায়ের পেটের ভাই না হলেও রাজ্জাক ভাই ছিলেন আমার ভাইয়ের মতো। উনি আমাকে ছোট ভাইয়ের মতো আদর, শাসন করতেন। আমরা ছিলাম রক্তের বাঁধনে বাধা রাজ্জাক-ফারুক। যতদিন বাঁচব তাকে আমার বড় ভাইয়ের আসনে রাখব। বিভিন্ন মিডিয়ায় ছবি দেখেছি আমি আর আলমগীর মিলে রাজ্জাক ভাইয়ের গালে চুমু খাচ্ছি। ভাইয়ের মতো না হলে এটা পারতাম না।’

তিনি বলেন, ‘চলচ্চিত্র পরিবার গঠিত হওয়ার আগে রাজ্জাক ভাই আমাকে একদিন ডেকেছিলেন। বলেছিলেন, ফারুক এফডিসিতে আবার কী হচ্ছে? তুই একটু দেখনারে ভাই! আমি বলেছিলাম এত বড় দায়িত্ব আমার পক্ষে একা নেয়া সম্ভব না ভাই। তারপরও তিনি আমাকে এই দায়িত্ব নিতে বলেছিলেন।’

ফারুক বলেন, ‘তাকে সবাই নায়করাজ, মহানায়ক এসব উপাধি দিয়েছেন। এসব কোনোটাই মিথ্যা নয়। কিন্তু আমার কাছে তিনি আমার ভাই, আমার বড় ভাই ছিলেন। আমার আর তার মধ্যে যে সুন্দর সুসম্পর্ক ছিল তার বাড়ির মানুষও জানত না। আমাদের প্রতিযোগিতা ছিল। তবে সেটা অনস্ক্রিনে। স্ক্রিনের বাইরে আমরা ছিলাম খুব ঘনিষ্ঠ। আমি সবসময় তাকে সম্মান করেছি। তিনি কখনও বলতে পারবেন না তার সঙ্গে বেয়াদবি করেছি।’

এ অভিনেতা আরও বলেন, ‘দেশের প্রতিটি মানুষকে আমি বলতে চাই অন্তত একবার রাজ্জাক ভাইয়ের জন্য দোয়া করবেন। তিনি যেন বেহেশতবাসী হন। আল্লাহ আমার ভাইকে অবশ্যই ভালো রেখেছেন।’

শোকসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন সোহেল রানা, সুচন্দা, রোজিনা, ফেরদৌস, নূতন, ওমর সানী, সম্রাট, আমজাদ হোসেন, এফডিসির এমডি তপন কুমার, মিশা সওদাগর, জায়েদ খান, বাপ্পী, প্রদর্শক সমিতির সভাপতি ইফতেখার আহমেদ নওশাদ, প্রযোজক খসরু প্রমুখ।

আলোচনা সভার সঞ্চালক ছিলেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান।

সূত্র : জাগো নিউজ


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

স্পটলাইট

Saltamami 2018 20 upcomming films of 2019
Coming Soon
বাংলা সিনেমা ২০১৯ সালে কেমন যাবে?
বাংলা সিনেমা ২০১৯ সালে কেমন যাবে?
বাংলা সিনেমা ২০১৯ সালে কেমন যাবে?

[wordpress_social_login]

Shares