Select Page

প্রতারণার মামলা ও শাকিবের জবাব

প্রতারণার মামলা ও শাকিবের জবাব

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হার্টবিট প্রডাকশনশাকিব খানের সম্পর্কটা দারুণ ছিল। এই প্রডাকশনের হয়ে ‘আমার প্রাণের প্রিয়া’, ‘মনের জ্বালা’, ‘ফুল অ্যান্ড ফাইনাল’, ‘মনে প্রাণে আছো তুমি’, ‘খোদার পরে মা’ এবং সর্বশেষ ‘লাভ ম্যারেজ’-এর মতো ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন তিনি। পেয়েছেন দুইবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও।

কিন্তু সেই প্রডাকশনের সঙ্গে আর সুসম্পর্ক টিকল না শাকিবের। প্রতারণার মামলা করতে যাচ্ছেন প্রডাকশনটির কর্ণধার তাপসী ঠাকুর

তিনি লিখিত অভিযোগ পাঠিয়েছেন সংবাদমাধ্যমে। সেখানে বলেন, ‘১০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে শাকিব খানকে ২০১৭ সালের রোজার ঈদের জন্য নতুন ছবির সিডিউল বাবদ ১৫ লাখ টাকা সাইনিং মানি দেয় হার্টবিট প্রোডাকশন। শাকিব খান মৌখিকভাবে কনফার্ম করেন এবং বলেন, মার্চ-এপ্রিলে সিডিউল রাখা আছে। এ বিষয়ে একাধিকার শাকিব মৌখিকভাবে কনফার্ম করেন। যার কারণে হার্টবিট ছবি নির্মাণের সবরকম প্রস্তুতি গ্রহণ করে এবং প্রচুর অর্থলগ্নি করে। কিন্তু লিখিত সিডিউলের ব্যাপারে শাকিব টাল-বাহানা করতে থাকে।’

তিনি আরো লেখেন, ‘১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে হার্টবিট প্রোডাকশন জানতে পারে যে, ভারতের শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মসকে শাকিব ঈদের সিডিউল মার্চ-এপ্রিল দিয়ে দিয়েছে। তখন হার্টবিট কর্তৃপক্ষ শাকিবের কাছে সাইনিং মানির ১৫ লক্ষ টাকা ফেরত চাই। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে হার্টবিট কর্তৃপক্ষকে পুরো টাকা ফেরত তো দিলই না, ফেরত দিবে কবে বলেননি। শাকিব হার্টবিটের ছবিতেই প্রথম ও দ্বিতীয়বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। অথচ হার্টবিটের সাথে এভাবে প্রতারণা করতে তার বিবেকে বাধলো না। দীর্ঘ চার মাসের উপর সময় ধরে হার্টবিটের সাথে ইঁদুর-বিড়াল খেলা করল। প্রযোজক সমিতি, পরিচালক সমিতি এবং শিল্পী সমিতির কাছে প্রশ্ন একজন শাকিব খান কি যা ইচ্ছে তাই করতে পারে? হার্টবিট প্রোডাকশনের যে সামাজিক ও আর্থিক ক্ষতি শাকিব করল এজন্য হার্টবিট প্রোডাকশন অচিরেই আদালতের শরণাপন্ন হবার জন্য সব রকমের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে।’

মূলত প্রতিষ্ঠানটির ব্যানারে ‘লাভ ম্যারেজ ২’ সিনেমায় অভিনয়ের কথা ছিল শাকিবের।

এদিকে কালের কণ্ঠকে শাকিব বলেন, ‘কেন তারা মামলা করবেন! আমি তো বলেছি টাকা ফেরত দেব। তা ছাড়া এ অবস্থার জন্য তাঁরাই দায়ী। একেকবার একেক কথা বলেছেন। কখনো বলেছেন যৌথ প্রযোজনায়, আবার কখনো হোম প্রডাকশনে ছবিটি নির্মাণের কথা বলেছেন। সব মিলিয়ে আমি দ্বিধান্বিত ছিলাম। তাই ভেঙ্কটেশকে শিডিউল দিয়েছি। ’


মন্তব্য করুন

Shares