Select Page

শুটিং শুরু দেড় মাস পর, এখনই হল বুকিং!

শুটিং শুরু দেড় মাস পর, এখনই হল বুকিং!

শাকিব খানের নতুন ছবি শুটিং শুরুর দেড় আগে হল বুকিং। ছবি : এসকে মুভিজ

# কাজী হায়াত-শাকিব খান জুটির ‘বীর’র শুটিং শুরু হচ্ছে জানুয়ারির মাঝামাঝিতে। এখনই শুরু হয়ে গেছে হল বৃকিং
# প্রযোজকের দাবি, ইতোমধ্যে কয়েকটি বড় হল অগ্রিম টাকা দিয়েছে
# একটি হলের প্রতিনিধি বলেন, হল চালানোর জন্য বছরে শাকিবের অন্তত ছয়টি ছবি দরকার। কিন্তু শাকিবের হাতে আছে তিন-চারটা ছবি। তাই আগেভাগেই বুকিং করে রাখা নিরাপদ মনে করেছি
# কাজী হায়াৎ বলেন, আমার একটা সময় ছিল যখন প্রযোজকরা লাইন দিয়ে অপেক্ষা করতেন আমাকে দিয়ে ছবি নির্মাণ করার জন্য

শাকিব খান হলের বক্স অফিসের রাজা। ছবি যেমন হোক প্রথম কয়েকদিন তো টিকিট কাউন্টারে শোরগোল থাকবেই। আর ধামাকা ছিল হলে তো অনেক দিন চলে। এ নিয়ে নতুন কিছু বলার নেই। যদিও কয়েক দিন হল বুকিং মানি নিয়ে শাকিবের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে সিয়ামকে সংবাদমাধ্যম তুলে ধরলে অনেকেই আপত্তি জানান।

নতুন খবর হলো ১০ জানুয়ারি শুরু হবে কাজী হায়াতের পরিচালনায় শাকিবের ‘বীর’। এখনো নায়িকাও চূড়ান্ত হয়নি। শুটিংয়ের দেড় মাস আগেই শুরু হয়েছে হল বুকিং। অর্থাৎ, সিনেমার শুটিং শুরু হওয়ার আগে থেকে এগিয়ে থাকেন শাকিব।

যশোরের মণিহার, সিরাজগঞ্জের সাগরিকা, চট্টগ্রামের সিনেমা প্যালেস, শেরপুরের সত্যবতী, সিলেটের বিজিবির মতো বড় হলগুলো এরই মধ্যে ছবিটির জন্য অগ্রিম টাকা দিয়েছে, জানালেন প্রযোজক ইকবাল হোসেন জয়। কাজী হায়াতও বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

কাজী হায়াত কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রায় পাঁচ বছর পর পরিচালনায় ফিরছি। দীর্ঘ অনুপস্থিতির পরও হল মালিকরা আমার ছবির প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছেন। উৎসাহ দেওয়ার জন্য অগ্রিম বুকিংও করেছেন। তাঁদের বিশ্বাসের প্রতি সম্মান জানিয়ে কথা দিচ্ছি, শাকিব খানকে নিয়ে ব্যতিক্রমী ছবি উপহার দেব।’

মণিহার হলের প্রতিনিধি আলী আকবর বলেন, ‘ছবিটির সহপ্রযোজক শাকিব খান। তার তত্ত্বাবধানে নির্মিত হবে ছবিটি। তা ছাড়া কাজী হায়াতের মতো গুণী পরিচালকও আছেন। তাই সাত পাঁচ না ভেবে আমরা ছবিটি নিয়েছি।’

সাগরিকা হলের প্রতিনিধি সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘হল চালানোর জন্য বছরে শাকিবের অন্তত ছয়টি ছবি দরকার। কিন্তু শাকিবের হাতে আছে তিন-চারটা ছবি। তাই আগেভাগেই বুকিং করে রাখা নিরাপদ মনে করেছি। তা ছাড়া কাজী হায়াতের সঙ্গে প্রথম কাজ করতে যাচ্ছেন শাকিব। অন্য রকম কিছু হবে—এমনটা আশা করাই যায়।’

পরিচালক কাজী হায়াৎ

এনটিভি অনলাইনকে ছবিটি নিয়ে কাজী হায়াৎ বলেন, “এক সময় আমি ছবির মাধ্যমে মানুষের জীবনের কথা বলেছি। এখন আর সেসব ছবি নির্মাণ করা যায় না। সেন্সর বোর্ড আটকে দেয়। তারপরও আমি ‘বীর’ শিরোনামে একটি নতুন চলচ্চিত্র শুরু করছি। এখানে প্রতীকী অর্থে রাজনৈতিক সামাজিক প্রেক্ষাপট তুলে ধরব। আমার ছবিতে নায়ক মান্নাকে দর্শক যে রূপে দেখেছে, সেই রূপে পর্দায় হাজির করব শাকিব খানকে।”

আপনার নির্মিত দাঙ্গা, ত্রাস, চাঁদাবাজ, সিপাহী ছবি দর্শক পছন্দ করেছেন। তবে পরের বেশ কিছু ছবি দর্শকপ্রিয়তা পায়নি। ‘বীর’ ছবিটি আসলে কতটা দর্শকপ্রিয়তা পাবে বলে মনে হয়? এমন প্রশ্নের জবাবে কাজী হায়াৎ বলেন, ‘আমি সব সময় চেষ্টা করি নিজের মতো ছবি নির্মাণ করতে। আমার একটা সময় ছিল যখন প্রযোজকরা লাইন দিয়ে অপেক্ষা করতেন আমাকে দিয়ে ছবি নির্মাণ করার জন্য। তবে গল্প নিয়ে কাজ করার সময় দিতেন না। একটা ছবির প্রাণ হচ্ছে গল্প, সেটি যদি ঠিক না থাকে তাহলে ভালো চলচ্চিত্র হবে না। এই ছবির গল্প নিয়ে কাজ করার মতো অনেক সময় আমি পেয়েছি। ছবির প্রযোজক আমাকে সেই সময় দিয়েছেন। এ কারণে এই ছবিটি নিয়ে আমি আশাবাদী। ছবিটি অবশ্যই দর্শক পছন্দ করবেন।’

‘বীর’ শিরোনামে এই ছবিটি বন্ধু ও প্রযোজক মোহাম্মদ ইকবালের সঙ্গে যৌথভাবে চলচ্চিত্র প্রযোজনা করতে যাচ্ছেন নায়ক শাকিব খান। ছবিতে নায়িকা হিসেবে কাজ করছেন মৌমিতা মৌ। এ ছাড়া আরেকজন নায়িকা রয়েছেন বলে জানিয়েছেন প্রযোজক ইকবাল।


মন্তব্য করুন

Shares