Select Page

সারা ভারত ‘হাওয়া’র নাচনের অপেক্ষায়

সারা ভারত ‘হাওয়া’র নাচনের অপেক্ষায়

গত নভেম্বরে কলকাতায় অনুষ্ঠিত চতুর্থ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উৎসবে মেজবাউর রহমান সুমন পরিচালিত ‘হাওয়া’ ঘিরে রীতিমতো ‍উন্মাদনা তৈরি হয়। ঘণ্টার পর ঘণ্টা প্রেক্ষাগৃহের বাইরে ছবিটি দেখার জন্য লাইনে অপেক্ষা করেছেন দর্শকরা। সেই প্রত্যাশা মেটাতে প্রদর্শন সংখ্যাও বাড়াতে হয়। এবার সিনেমাটি কলকাতার পাশাপাশি ভারতের অন্যান্য রাজ্যে মুক্তি পেতে যাচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছি, সাফটা চুক্তির আওতায় ভারতের বাংলাদেশের ব্লকবাস্টারটি মুক্তি পাবে। এর আগে কলকাতায় এই চুক্তির আওতায় নামমাত্র কিছু ছবি মুক্তি পেয়েছে বা বিনিময়ের পর সে সব ছবি ফেলে রাখা হয়েছে। ‘ছুঁয়ে দিলে মন’-এর মতো ব্যতিক্রম ছাড়া বড় কোনো ছবি যায়নি। এমনকি বাংলাদেশের নির্মিত যৌথ প্রযোজনার সিনেমাও অবহেলা পেয়ে আসছিল। তবে এর উল্টো চিত্র দেখা যায় বাংলাদেশে।

কলকাতায় ‌‘হাওয়া’ রিলিজ হবে আগামী ১৬ ডিসেম্বর। এরপর ৩০ ডিসেম্বর বাকি ভারতে মুক্তি পাবে। পরিবেশক সংস্থা রিল্যায়ান্স এন্টারটেইনমেন্ট এই তথ্য দিয়েছে তাদের টুইটার হ্যান্ডেলে। সেই টুইট শেয়ার করেছেন পরিচালক সুমনও।

সিনেমার নির্বাহী প্রযোজক অজয় কুণ্ডু প্রথম আলোকে বলেন, সাফটা চুক্তির আওতায় সিনেমাটি ভারতে মুক্তির প্রক্রিয়া চলছে। মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত হলেও এখনো হলের তালিকা তারা হাতে পাননি। ‘হাওয়া’ সিনেমার বিপরীতে কলকাতা থেকে কোন সিনেমাটি ঢাকায় আসছে, তা–ও জানাতে পারেননি তিনি। হলের পাশাপাশি কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ১৬ ডিসেম্বর সিনেমাটির বিশেষ প্রদর্শনী হবে বলে জানান অজয় কুণ্ড।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, আগামী ১৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ২৮তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। তার একদিন পরেই মুক্তি পাচ্ছে ‘হাওয়া’। স্থানীয় ইন্ডাস্ট্রির একাংশ মনে করছে, ওই সময়ে শহরে ছবি দেখার একটা ঝোঁক থাকে। প্রযোজক বিষয়টি মাথায় রেখেই ছবি মুক্তির এই কৌশল নিয়েছেন।

আগামী বছরের অস্কারে সেরা আন্তর্জাতিক ফিচার চলচ্চিত্রের জন্য বাংলাদেশ থেকে মনোনীত হয়েছে ‘হাওয়া’। গত ২৯ জুলাই বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় মেজবাউর রহমান সুমন পরিচালিত ‘হাওয়া’, যা এখনো কয়েকটি হলে প্রদর্শিত হচ্ছে। পাশাপাশি উত্তর আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়ায় রেকর্ড ব্যবসা করেছে।

ছবির গল্প মাঝসমুদ্রে গন্তব্যহীন একটি মাছ ধরার ট্রলারে আটক মাঝিমাল্লা এবং এক রহস্যময় বেদেনিকে ঘিরে কাহিনি আবর্তিত হয়েছে।

সিনেমার প্রযোজনা সংস্থা সান মিউজিক অ্যান্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড এবং নির্মাণ সংস্থা ফেইসকার্ড প্রোডাকশন। মেজবাউর রহমান সুমনের কাহিনি এবং সংলাপে চলচ্চিত্রটির চিত্রনাট্য লিখেছেন মেজবাউর রহমান সুমন, সুকর্ণ সাহেদ ধীমান ও জাহিন ফারুক আমিন।

‘হাওয়া’র মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, নাফিজা তুষি, শরিফুল রাজসহ অনেকে।


মন্তব্য করুন

Shares