Select Page

‘সাড়ে ১২ লাখ টাকা ফেরত দিয়েছি’

‘সাড়ে ১২ লাখ টাকা ফেরত দিয়েছি’

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান হার্টবিট প্রোডাকশনের হয়ে জাকির হোসেন রাজুর ‘আমার প্রাণের প্রিয়া’, ‘মনেপ্রাণে আছো তুমি’, শাহিন সুমনের ‘খোদার পরে মা’, ‘লাভ ম্যারেজ’, মালেক আফসারীর ‘ফুল অ্যান্ড ফাইনাল’ ছবিগুলোতে অভিনয় করেছেন শাকিব। কিন্তু সেই প্রোডাকশন হাউস থেকেই এবার শাকিবের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ করা হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার তাপসী ঠাকুর লিখিত বক্তব্যে জানান, গত বছরের সেপ্টেম্বরে শাকিব খানকে নতুন ছবিতে চুক্তিবদ্ধ করেন তারা। এজন্য অগ্রিম ১৫ লাখ টাকাও দেন। মৌখিকভাবে এ বছরের মার্চে এ ছবির শিডিউল দেয়ার কথা থাকলেও তিনি শিডিউল দেননি। অবশেষে তারা জানতে পারেন কলকাতার ভেঙ্কটেশ প্রোডাকশনকে তিনি শিডিউল দিয়েছেন। তখন তার কাছে টাকা ফেরত চাওয়ার পর তিনি লুকোচুরি করেন।

এ অভিযোগের কথা শুনে বিস্মিত হয়েছেন শাকিব খান। তিনি মানবজমিনকে বলেন, ‘হার্টবিটের কাছে আমি এটা আশা করিনি। আমি তাদের কাছ থেকে নেয়া ১২ লাখ ৫০ হাজার টাকা এ বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি ফেরত দিয়েছি। সেটার লিখিত রসিদও আমার কাছে আছে। গণমাধ্যমকে চাইলে আমি এটা দেখাতেও পারব। আর বাকি আড়াই লাখ টাকা হয়তো প্রোডাকশন ম্যানেজারের কাছে আছে। চাইলে সেটাও আমি ফেরত দিব। আর ছবির শিডিউলের জন্য আমি অনেক সময় দিয়েছি। তারা একবার বলে যৌথ প্রযোজনার ছবি করবে। আবার বলে লোকাল আলাদা প্রোডাকশন করবে। আমি একজন শিল্পী। আমার তো কাজের জন্য বসে থাকলে চলবে না। তারা কোনো লিখিত শিডিউলও তো আমার কাছ থেকে নেয়নি। তাই আমি মার্চের শিডিউল ভেঙ্কটেশ প্রোডাকশনকে দিয়েছি। এত পুরোনো একটি প্রোডাকশন হাউসের কাছ থেকে এমন অভিযোগ আমি আশা করিনি।’

মূলত প্রতিষ্ঠানটির ব্যানারে ‘লাভ ম্যারেজ ২’ সিনেমায় অভিনয়ের কথা ছিল শাকিবের।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?

[wordpress_social_login]

Shares