Select Page

সুখের হয়নি ‌‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’

সুখের হয়নি ‌‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’

nishiddo-premer-golpo-simla-mamun২০১৪ সালের আগস্টে শুরু হয়েছিল রুবেল আনুশ পরিচালিত ‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’র শুটিং। একটি গান বাদ রেখেই ক্যামেরা ক্লোজ হলো চলতি বছরের ৮ আগস্ট। শুটিং না হওয়া নিয়ে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ আনলেন রুবেল ও সিনেমাটির নায়িকা সিমলা

নির্মাতা রুবেল আনুশ এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘অনেক যত্ন নিয়ে আমি ছবিটা নির্মাণ করছিলাম। কিন্তু নায়িকা সিমলার অসহযোগিতায় ছবির একটি গান বাদ দিয়ে ছবিটি মুক্তি দিতে হচ্ছে। গতকাল ছিল আমার ছবির শেষ শুটিং। আমরা পুরো ইউনিট সকাল ৮টা থেকে রেডি হয়ে সেটে অপেক্ষায় ছিলাম। একই সময়ে আমি নায়িকাকে আনার জন্য একটি প্রাইভেটকার ভাড়া করে উনার বাড়িতে পাঠাই। কিন্তু তিনি বাসা থেকে গাড়িতে ওঠেন দুপুর ১২টায়। সেখান থেকে গাড়ি নিয়ে সরাসরি চলে যান স্কয়ার হাসপাতালে। সেখান থেকে তিনি তাঁর কাজ শেষ করে বিকেল ৫টায় আমার সেটে আসেন। তখন বৃষ্টির কারণে সূর্যের আলো কম ছিল। এ ছাড়া যে সময় আছে, তাতে শুটিং শেষ করতে পারব না বলে শুটিং প্যাকআপ করি। উনি বাসায় চলে যান।’

রুবেল জানান, ‘ম্যাডাম ফুলি’-খ্যাত এ নায়িকার শিডিউল ফাঁসানোর কারণে বার বার উদ্যোগ নিয়ে সিনেমাটি সময় মতো শেষ করতে পারেননি। এমনকি প্রযোজক চলে গিয়েছিলেন। আরো জানান, আগেই পারিশ্রমিকের চেয়ে বেশি টাকা বুঝে নিয়েছেন। গাফিলতির কারণে সিমলাকে দিয়ে ডাবিং করাবেন না। তার বিরুদ্ধে শিল্পী সমিতিতে অভিযোগ করবেন।

অন্যদিকে সিমলা রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আশা-তিশা মাল্টিমিডিয়ার ব্যানারে শ্যামল কান্তির প্রযোজনায় সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে। আমি এ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। সিনেমাটির প্রযোজক রুবেল আনুশকে দিয়ে কাজটি করাবে না। তাই তিনি অন্য প্রযোজককে নিয়ে কাজ করাবেন। এরকম হলে আমি তো কাজটি করতে পারি না। কারণ আমি চুক্তি করেছি আগের প্রযোজকের সঙ্গে। এ সিনেমার কাজ শেষ হয়নি বরং ঝামেলা শুরু হলো। প্রযোজকের অনুমতি ছাড়া চুরি করে শুটিং করছেন পরিচালক।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি আজকে জানতে পারলাম, পরিচালক সমিতির অনুমতি না নিয়েই রুবেল সিনেমার কাজটি করছেন। এমনকি পরিচালক সমিতিতে এ সিনেমার নামও নিবন্ধন করা নেই।’

সেটে দেরি করে যাওয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমি দেরি করে যাইনি। আমি ঠিক সময়ই গিয়েছি। আমি তা প্রমাণ করতে পারব। তাদের লাইটে সমস্যা ছিল।’

তিনি আরো বলেন, ‘শুটিং স্পটে গিয়ে আমি প্রযোজক সংক্রান্ত সমস্যা জানতে পারি। রুবেল আনুশ আমার সঙ্গে তখন খুব খারাপ ব্যবহার করেছে। এতে আমি হতবাক হয়েছি। কারণ একজন জুনিয়র পরিচালক সিনিয়র শিল্পীর সঙ্গে এমন দৃষ্টিকটু ব্যবহার করে কীভাবে! এ অধিকার তাকে কে দিয়েছে?’

nishiddo-premer-golpo-simla-mamun1

এখন কি এ সিনেমার কাজ আপনি করছেন না? এমন প্রশ্নের জবাবে সিমলা বলেন, ‘এ সিনেমার কাজ আমি করছি না তা নয়। প্রযোজকই এ সিনেমা করছেন না। তাছাড়া এ সিনেমার পারিশ্রমিকও এখনও পুরোটা পাইনি। এবং আমার শিডিউল নিয়েছে অনেক আগেই। কিন্তু তাদের সমস্যার কারণে এতদিন শুটিং করতে পারিনি।’

এ প্রসঙ্গে রুবেল আনুশ বলেন, ‘আমি পরিচালক সমিতি থেকে অনুমতি নেইনি। পরিচালক সমিতিতে নাম নিবন্ধন করা হয়নি। আমার ইচ্ছে ছিল সিনেমার কাজ শেষে করে এসব কাজ করব।’

‘নিষিদ্ধ প্রেমের গল্প’-এ সিমলার বিপরীতে মূল চরিত্রে অভিনয় করছেন ‘ঘেটুপুত্র কমলা’খ্যাত মামুন। আরো অভিনয় করেছেন আবুল হায়াত, শিমুল খান, পুলক, বাপ্পী, লাবণী, সাদিয়া, আলিফ, মুসা, টুটুল চৌধুরী, আফরিন প্রমুখ।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?
২০২০ সালে বাংলা চলচ্চিত্রের অবস্থা কেমন হবে?

[wordpress_social_login]

Shares