Select Page

‘স্যান্ড সিটি’র জন্য ৩৭ লাখ টাকার তহবিল পেলেন মেহেদী হাসান

‘স্যান্ড সিটি’র জন্য ৩৭ লাখ টাকার তহবিল  পেলেন মেহেদী হাসান

সুইস ফান্ড ভিশন সুড এস্টের জন্য নির্বাচিত হয়েছে মেহেদী হাসানের প্রথম ফিচার ফিল্ম ‘স্যান্ড সিটি’। নির্মাতা নিজেই এ খবর জানিয়েছেন।

এটি মেহেদীর প্রথম ফিচার ফিল্ম হলেও এর আগে একাধিক শর্টফিল্মের জন্য আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছেন তিনি।

এ তহবিলের অর্থমূল্য ৪০ হাজার সুইস ফ্রাঁ, বাংলাদেশে এর মূল্যমান প্রায় ৩৭ লাখ টাকা।

কয়েক বছর ধরে ‘স্যান্ড সিটি’ নিয়ে কাজ করছেন মেহেদী। এ তহবিল তার কাজ আরও একধাপ এগিয়ে দিল।

ট্রিগন-ফিল্ম ফাউন্ডেশন, ফেস্টিভ্যাল ইন্টারন্যাশনাল ডি ফিল্মস ডি ফ্রিবুর্গ, লোকার্নো ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, ভিশনস ডু রিয়েল ইন নিওন এবং ইন্টারন্যাশনাল কুর্জফিল্মটেজ উইন্টারথার এবং সুইস এজেন্সি ফর ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কো-অপারেশন (এসডিসি) এর যৌথ উদ্যোগ গড়ে উঠেছে এই ফান্ড।

চলতি বছর জমা পড়ে ১৭২টি চলচ্চিত্র প্রকল্প, সেখান থেকে একটি তথ্যচিত্র এবং চারটি ফিচার ফিল্মকে দেওয়া হয় এবারের ফান্ড, যার একটি মেহেদী হাসানের ‘স্যান্ড সিটি’।

এর আগে সুইজারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ৭১তম লোকার্নো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ওপেন ডোরস হাব-এ ‘স্যান্ড সিটি’ জিতে নিয়েছিল উৎসবটির মর্যাদাপূর্ণ ‘সিএনিসি’ পুরস্কার। এখানেই শেষ নয়, কান চলচ্চিত্র উৎসবের একটি বিশেষ আয়োজন লা ফেব্রিক দ্য সিনেমা দ্য ম্যুন্দ বিভাগেও স্থান করে নেয় চলচ্চিত্র প্রকল্পটি।

চলচ্চিত্রটির মূল চরিত্র দুইটি। একজন নারী, অন্যজন পুরুষ। তবে তারা সরাসরি সম্পর্কিত না। শুধু একটা বিষয়ে তাদের মিল আছে, আর সেটি হচ্ছে বালু। তাদের প্রত্যেকের জীবনে কোন না কোন ভাবে ‘বালু’ হাজির আছে। ‘বালু’ তাদের একই সূত্রে গেঁথে রাখে।

‘স্যান্ড সিটি’র নির্মাণ শুরু হবে ২০২২ সালে। খনা টকিজের পক্ষে ছবিটি প্রযোজনা করছেন রুবাইয়াত হোসেন ও আদনান আহমেদ।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Shares