Select Page

অর্থ সংকটে ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ ও ‘পেয়ারার সুবাস’!

অর্থ সংকটে ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ ও ‘পেয়ারার সুবাস’!

অর্থ সংকটে আটকে গেছে নূরুল আলম আতিকের নির্মাণাধীন দুই ছবি— ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ ও ‘পেয়ারার সুবাস’! খবর বণিক বার্তা।

অনুদানপ্রাপ্তির প্রায় দুই বছর পর গত বছরের ২২ মার্চ নির্মাতা নূরুল আলম আতিক শুরু করেন তার বহুল আকাঙ্ক্ষিত ছবি ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’র শুটিং। কুষ্টিয়া, ঠাকুরগাঁওয়ের বিভিন্ন লোকেশনে টানা শুটিং ব্যস্ততা দেখে অনেকেই তখন ধরে নিয়েছিল, হয়তো অচিরেই প্রেক্ষাগৃহমুখী হবে ছবিটি।

কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে এর ঠিক আড়াই মাস পর ৯ জুন সিরাজগঞ্জে কোনো রকম ঘোষণা ছাড়াই এ ছবির শুটিং স্থগিত করে আতিক শুরু করে দেন ‘পেয়ারার সুবাস’ নামে আরেকটি ছবির শুটিং।

কোন অবস্থানে আছে ‘লাল মোরগের ঝুঁটি’ ও ‘পেয়ারার সুবাস’? এমন প্রশ্নে আতিক জানান, এখনো ছবি দুটোর বেশকিছু কাজ বাকি আছে।
তাহলে সেগুলো শেষ করছেন না কেন? নির্মাতা বলেন, ‘ছবি দুটোর কাজ পুরোপুরি শেষ না করতে পারার পেছনে মূলত অর্থ সংকটই দায়ী। এবং আমি এ অর্থসংস্থান নিয়েই বিপাকে আছি।’

এরপর তার কাছে প্রশ্ন রাখা হয়, অর্থ সংকটে পড়তে হলো কেন? ‘আসলে আগে থেকে কোনো ছবির ক্ষেত্রেই নির্দিষ্ট করে বলা যায় না ঠিক কী পরিমাণ অর্থ খরচ হবে। ছবি দুটোর সংশ্লিষ্ট নানা কাজে বরাদ্দকৃত অর্থ খরচ হয়ে গেছে। এখন তাই আমাকে আবার অর্থসংস্থানের পেছনে ছুটতে হচ্ছে।’

নূরুল আলম আতিক আরো জানিয়েছেন, চলতি বছর শীতকালের মধ্যেই পেয়ারার সুবাসের শুটিং শেষ করে ফেলতে হবে। তা না হলে এ ছবির পুরো কাজ শেষ করতে তাকে আরো অনেকটা সময় বসে থাকতে হবে। ছবিটির শুটিংও প্রায় শেষ বললেই চলে। বাকি রয়েছে সাউন্ড ও মিউজিকের কাজ। একই সঙ্গে জানিয়েছেন, লাল মোরগের ঝুঁটির কাজ আগে শুরু হলেও পেয়ারার সুবাসের কাজই শেষ করবেন প্রথমে। অর্থাৎ পেয়ারার সুবাস শেষ না করা পর্যন্ত স্বাভাবিকভাবেই আটকে থাকবে লাল মোরগের ঝুঁটির কাজ।

লাল মোরগের ঝুঁটি ও পেয়ারার সুবাস দুই ছবিতেই অভিনয় করছেন অভিনেত্রী জয়া আহসান। প্রথমটিতে তিনি পদ্ম চরিত্রে আর দ্বিতীয়টিতে পেয়ারার চরিত্রে অভিনয় করছেন।


অামাদের সুপারিশ

মন্তব্য করুন

ই-বুক ডাউনলোড করুন

BMDb ebook 2017

Coming Soon
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?
বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকের অভিনয়শিল্পী বাছাই কেমন হয়েছে?

Shares