Select Page

তিন সমিতি রাজি হলেই দেশে চলবে বলিউড সিনেমা

তিন সমিতি রাজি হলেই দেশে চলবে বলিউড সিনেমা

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সম্প্রতি বৈঠকে বসেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ। ২ জানুয়ারির ওই বৈঠকে হিন্দি ছবি আমদানির অগ্রগতি নিয়ে মন্ত্রীর সঙ্গে সমিতির আলোচনা হয়েছে। সেখানে চলচ্চিত্রের প্রধান তিন সমিতি থেকে লিখিত অনাপত্তি জমা দিতে বলেছেন মন্ত্রী। খবর সারাবাংলা।

প্রদর্শক সমিতির উপদেষ্টা সুদীপ্ত কুমার দাশ জানান, আমরা যখন মন্ত্রীর কাছে যখন হিন্দি ছবি আমদানির ব্যাপারে কথা শুরু করি তখন তিনি বলেছেন- আমাদের তো এ ব্যাপারে কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু এর আগে কিন্তু শিল্পী সমিতির আপত্তির কারণে অনুমতি দেওয়া সম্ভব হয়নি। তাই আপনারা চলচ্চিত্রের প্রধান তিন সমিতি— প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতি, পরিচালক সমিতি এবং শিল্পী সমিতির কাছ থেকে লিখিত অনাপত্তি নিয়ে আসেন। আমরা এরপর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।

সুদীপ্ত বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১ হাজার কোটি টাকা প্রকল্পের জন্য আমরা হল মালিকদের কাছ থেকে মাত্র ৩৪টি আবেদন পেয়েছি। আরও ২০-২৫টি আবেদন প্রক্রিয়াধীন। বিনিয়োগকারীরা মূলত এ টাকা ফেরত কীভাবে আসবে তার নিশ্চয়তা চান। আর এর জন্য তারা হিন্দি ছবি আমদানি করতে চান। আমরা বলেছি বছরে ১০টি হিন্দি ছবি আমদানি করা গেলে সিনেমা হলগুলো টিকে থাকবে। কারণ হল টিকে থাকার মতো তো দেশীয় ছবি এ মুহূর্তে নেই।’

কিন্তু হিন্দি ছবির আমদানির ক্ষেত্রে তো সবচেয়ে বড় বাধা হিন্দি ছবি আমদানি নিষিদ্ধের আইন। সে ব্যাপারে কোনো কথা হয়েছে কি? ‘মন্ত্রী আমাদের বলেছেন প্রধান তিন সমিতির অনাপত্তি পেলে আইনি বাধাসহ অন্যান্য যে সকল বিষয় সংশোধন করা লাগবে সেগুলো সংশোধনের উদ্যোগ নিবেন তারা। সে ব্যাপারে তারা আন্তরিক’ — বলেন সুদীপ্ত।

গেল জুলাইয়ে এক প্রতিবেদন বলা হয়েছিল, হিন্দি ছবি চালানোর জন্য ডিসিপি প্রজেকশন সিস্টেম আছে দেশের ৭-৮টি সিনেমা হলে। যার কারণে সবার আগে প্রজেকশন সিস্টেম ঠিক করতে হবে।

সুদীপ্ত বলেন, ‘আমরা আশা করছি ৫০টি সিনেপ্লেক্সের ঋণ অনুমোদন আগামী জুনের মধ্যে হয়ে যাবে। এর বাইরেও ব্যক্তি উদ্যোগে অনেকেই আধুনিক সিনেমা হল নির্মাণ করছেন। তখন এগুলো কোনো সমস্যায় থাকবে না।’


মন্তব্য করুন

Shares